লকডাউনে এসি পরিষ্কার করুন নিজেই
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ১২ মে ২০২১ | ২৯ বৈশাখ ১৪২৮



লকডাউনে এসি পরিষ্কার করুন নিজেই

পরিবর্তন ডেস্ক ২:১৪ অপরাহ্ণ, মে ০২, ২০২১

লকডাউনে এসি পরিষ্কার করুন নিজেই
যেকোনো গ্যাজেট ভালো রাখার প্রথম শর্ত পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা। বছরে একবার সার্ভিসিং করিয়ে নেওয়াই ভালো। বেশিরভাগ বাড়িতে শীতের সময় এসি মেশিন ব্যবহার হয় না। তাই ব্যবহারের আগে ধুলো ময়লা পরিষ্কার করে না নিলে একদিকে মেশিন ঠাণ্ডা হতে সময় বেশি লাগে। অন্যদিকে বাড়তি বিদ্যুৎ প্রয়োজন হয় বলে বিলের বোঝা বাড়ে।
যদিও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা এই সময় এসি থেকে দূরেই থাকতে বলছেন সবাইকে। তবে প্রবল গরম, আবার বৃষ্টি। আর্দ্রতাও প্রচুর। এই সময়টায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মেশিন ছাড়া থাকতে পারেন না অনেকেই। এছাড়া অনেকদিন এসি বন্ধ অথবা নিয়ম করে এসি তো পরিষ্কার করতে হয়। সমস্যা হছে এই সময় এসি মেকানিককে খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। আর খুঁজে পেলেও করোনা আবহে বাড়িতে বাইরে থেকে কেউ আসবেন ভেবেও আতঙ্ক। তাই মেশিন পরিষ্কার ও দেখভালও নিজেই করে ফেলতে চাইছেন অনেকেই। আর সেটা করাই এখন উচিত।

. রোজকার ব্যবহারের জন্য অন্যান্য মেশিনের মতোই এয়ারকন্ডিশনারেরও কিছু ওয়্যার অ্যান্ড টিয়ার হয়। আর এসব ফেলে রেখে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মেশিন চালাতেই থাকলে আচমকা দুম করে কাজ করা বন্ধ করে দেয়।

. বাড়িতে সাধারণত দু রকমের এয়ারকন্ডিশনার মেশিন ব্যবহার করা হয়। স্পিল্ট এবং উইন্ডো এসি, ইদানিং বড় হল ঘরের জন্যে অনেকেই টাওয়ার এসিও ব্যবহার করছেন। স্পিল্ট এসি ঘরের সিলিংয়ের কাছাকাছি লাগানো হয় বলে পরিষ্কার করতে অসুবিধা হয়। তবে ভাঁজ করা সিঁড়ি থাকলে মেশিন পরিষ্কার করতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

এসি পরিষ্কার রাখতে মেনে চলুন:

১. এসি মেশিনের বাইরে ও ভিতরে ধুলো ময়লা জমলে সহজে ঠাণ্ডা হয় না। তাই আসবাব মোছার মতো নিয়ম করে মেশিনের চারপাশ শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে পরিষ্কার রাখুন।

২. এসির সুইচ ঠিক কাজ করছে কি না চেক করে নিতে হবে।

৩. অনেকেই গরমের দিনে ১৬ ডিগ্রিতে এসি চালান। কিন্তু এখন ২৪- ২৫ ডিগ্রিতে চালিয়ে রাখলে মেশিনে বাড়তি চাপ পড়ে না। শুরুতে কিছুক্ষণ কম তাপমাত্রায় চালিয়ে নিয়ে তারপর তাপমাত্রা বাড়িয়ে দিতে হবে।

৪. ঘরের জানলা দরজা ভালো করে বন্ধ না রাখলে মেশিনে বাড়তি চাপ পড়ে ঘর ঠাণ্ডা হতে দেরি হয়।

৫. এসি মেশিনের এয়ার ফিল্টার নিয়মিত পরিষ্কার রাখা দরকার। মেশিনের ঢাকা খুলে নিয়ে ফিল্টার বের করে নিন। শুকনো ধুলো ঝেড়ে নিয়ে কুসুম গরম পানিতে সাবান গুলে ডুবিয়ে ভালো করে ধুয়ে পানি ঝেড়ে শুকনো করে নিয়ে ফিল্টার লাগাতে হবে।

৬. ময়লা জমলে মেশিন ঠিকমত ঠাণ্ডা হয় না। ফিল্টার লাগানোর সময় সুইচ অন করে দেখে নিতে হবে বাতাস ঠিক মত বেরোচ্ছে কি না।

৭. শক যেন না লাগে সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। ভিজা হাতে সুইচে বা মেশিনে দেওয়া একেবারেই ঠিক নয়। দরকার হলে রাবারের শুকনো চটি পরতে হবে।

৮. ইভাপরেটর কয়েল বাইরে থেকে পরিষ্কার করে মুছে রাখতে হবে। আউটডোর ইউনিট নিজেরা পরিষ্কার না করাই ভালো। শুধুমাত্র ধুলো ময়লা পরিষ্কার করে মুছে নিলেই যথেষ্ট।

৯. শীতকালে আউটডোর ইউনিট ঢেকে রাখলে ভাল হয়। বিল নিয়ন্ত্রণে রাখতে কিছুক্ষণ চলার পর এসি বন্ধ করে ফ্যান চালিয়ে রাখতে হবে।


ইসি
 

আরও পড়ুন

আরও