গরমে গোঁফ-দাড়ির যত্ন
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১ | ৫ আষাঢ় ১৪২৮

গরমে গোঁফ-দাড়ির যত্ন

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৪২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০২১

গরমে গোঁফ-দাড়ির যত্ন
রুপচর্চায় আজকাল মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেরাও পিছিয়ে নেই। তারাও চায় নিজেকে সুন্দর ভাবে গুছিয়ে রাখতে। আর বিয়ার্ড ছেলেরা একটু বেশি যত্নবান তাঁদের দাড়ি গোঁফ নিয়ে। তাই এই ভ্যাপসা গরমে গোঁফের যত্ন কিভাবে নেবেন তার কিছু টিপস রইলো আপনাদের জন্য।
১. গোঁফকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা ও এর সঠিক পরিচর্যা করা খুবই প্রয়োজন। তাই প্রতিদিন নিয়ম করে দাড়ি ট্রিম করা আবশ্যিক। তাতে দাড়ি থাকে সুগঠিত।

২. ত্বকের মতো দাড়ির ক্ষেত্রেও ক্লিনজিং, টোনিং, ময়েশ্চারাইজিং ভীষণ প্রয়োজন। গোসলের সময় ভালো ক্লিজার দিয়ে প্রতিদিন দাড়ি পরিষ্কার রাখতে হবে। ঘরোয়া উপায়ে লেবু দিয়েও ক্লিন করা যেতে পারে।

৩. ক্লিনজিং এর পর সপ্তাহে ৩-৪ দিন করুন স্ক্রাবিং। প্রতিদিনের ধুলো বালি ব্যাকটেরিয়া দাড়িতে জমে থাকে। যা রোমকূপ বন্ধ করে দেয়। ফলে ব্রণর মতো সমস্যা দেখা দেয়। তাই স্ক্রাবিং করলে মৃত কোষ পরিষ্কার হয়ে যায় এবং ব্রণর সমস্যা কমবে।

৪. দাড়ির ক্ষেত্রেও ময়েশ্চারাইজিং মাস্ট। বাজারে চলতি বিয়ার্ড অয়েল এক্ষেত্রে ময়েশ্চারাইজার হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়াও ঘরোয়া কিছু উপাদান দিয়েও বানানো যায় ময়েশ্চারাইজার। এর জন্য নারকেল তেল, আলমন্ড অয়েল সমপরিমান নিয়ে তাতে টি ট্রি বা লেমন এসেনশিয়াল অয়েল ৬-৮ ফোঁটা দিয়ে মিশিয়ে নিলেই হবে। এই তেল দাড়িতে যোগাবে পুষ্টি। দাড়ি থাকবে নরম কোমল।

৫. সপ্তাহে একদিন ঘোরে বানানো প্যাক লাগান দাড়িতে। এই প্যাক বানানোর জন্য লাগবে ১ টেবিল চামচ আলমন্ড অয়েল, ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল, ১ টেবিল চামচ দুধ আর ২ টেবিল চামচ মধু সব একসাথে মিশিয়ে নিয়ে সামান্য গরম করে নিন। এবার তা দাড়িতে লাগিয়ে মিনিট ১৫ পর ধুয়ে নিন। এই পাকের ব্যবহারে দাড়ি থাকবে নরম স্বাস্থ্যজ্জল।

৬. চুলের মতো দাড়িতেও হয় খুশকির সমস্যা। সেক্ষেত্রে ভুলেও চুলের শ্যাম্পু বা ট্রিটমেন্ট দাড়িতে করতে যাবেন না। কারণ চুল ও দাড়ির ত্বক আলাদা। দাড়ির খুশকি মেটাতে গেলে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার বা লেবুর রসের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে দাড়ির ত্বকে লাগান। এই প্যাকের ব্যবহারে কমবে খুশকির সমস্যা।

৭. সব কিছুর পড়ে রোদে বেরোনোর আগে সানস্ক্রিন না লাগালে সব খাটনি বৃথা। সানস্ক্রিন দাড়িকে প্রটেক্ট করে পলিউশন থেকে। আবহাওয়ার পরিবর্তনের সাথে সাথে দাড়িও রুক্ষ শুস্ক হয়ে যায় সেক্ষেত্রে সানস্ক্রিনের ব্যবহারে দাড়ি থাকে নরম কোমল ও জেল্লাদার।

৮. দাড়িকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তুলতে বাইরের পরিচর্চার সাথে খাদ্যভ্যাসেও আনতে হবে পরিবর্তন। বেশি করে ফ্যাট, প্রোটিন, ভিটামিন জাতীয় খাওয়ার খেতে হবে। এছাড়াও প্রচুর পরিমানে পানি পান করা দাড়ির স্বাস্থ্যজ্জল থাকার ক্ষেত্রে উপকারী।

ইসি
 

আরও পড়ুন

আরও