ফেনীতে ভুট্টা চাষে বাড়ছে আগ্রহ
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ২০ জুন ২০২১ | ৬ আষাঢ় ১৪২৮

ফেনীতে ভুট্টা চাষে বাড়ছে আগ্রহ

ফেনী প্রতিনিধি ১২:২৭ অপরাহ্ণ, জুন ০৫, ২০২১

ফেনীতে ভুট্টা চাষে বাড়ছে আগ্রহ
ফেনীতে দিন দিন বাড়ছে ভুট্টা চাষ। কৃষি বিভাগের পরামর্শে স্বল্প খরচে অধিক মুনাফা অর্জনে ভুট্টা চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকদের। লাভজনক এই ভুট্টা চাষে কৃষকদের আগ্রহী করে তোলার লক্ষ্যে উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর কৃষকদের সার বীজ ও কৃষি পুনর্বাসনসহ পরামর্শ সহায়তা দিয়ে কৃষকদের উৎসাহী করছে। ফলে দিন দিন কৃষকের আগ্রহ বাড়ছে ভুট্টা চাষে।

ফেনীতে দিন দিন বাড়ছে ভুট্টা চাষ। কৃষি বিভাগের পরামর্শে স্বল্প খরচে অধিক মুনাফা অর্জনে ভুট্টা চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকদের। লাভজনক এই ভুট্টা চাষে কৃষকদের আগ্রহী করে তোলার লক্ষ্যে উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর কৃষকদের সার বীজ ও কৃষি পুনর্বাসনসহ পরামর্শ সহায়তা দিয়ে কৃষকদের উৎসাহী করছে। ফলে দিন দিন কৃষকের আগ্রহ বাড়ছে ভুট্টা চাষে ।

জানা গেছে, উপজেলার ফাজিলপুর, কাজিরবাগ, পাঁচগাছিয়া, শর্শদি ও ধলিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকেরা উচ্চ ফলনশীল এনকে (৪০), পালওয়ান, টাইটান, ৯৮১ সহ বিভিন্ন হাইব্রিড জাতের ভুট্টা আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করেছে। মানুষের খাদ্যের পাশাপাশি মাছ, হাঁস-মুরগী ও গো-খাদ্য হিসেবে ভুট্টার ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় এর চাহিদাও বেড়েছে অনেক বেশি। ভুট্টা গাছের পাতা সুষম গো-খাদ্য এবং কান্ড জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত হয়, ফলে একদিকে যেমন কৃষক তার গবাদি পশু পালন ও জ্বালানি চাহিদা মেটাতে পারে অপরদিকে বাজারে ভুট্টার ব্যাপক চাহিদা থাকায় কৃষক এ ফসল চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে। আর তাই উপজেলার অপেক্ষাকৃত উঁচু জমিগুলোতে এখন ব্যাপক ভুট্টার চাষাবাদ হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, এবার জেলার ছয় উপজেলায় এক হাজার দুইশত ২০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে সরকারি প্রণোদনা। এর মধ্যে উন্নত জাতের বীজ, প্রয়োজনীয় রাসায়নিক সার পৌঁছানোসহ পরিচর্যার জন্য এক হাজার ৫০০ টাকা করে কৃষকদের ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করা হয়।

সংশ্লিষ্টরা জানান, পতিত ও অনাবাদি জমিতে কম খরচে ভুট্টা চাষ করে লাভবান হচ্ছে জেলার কৃষকরা। জেলার চরাঞ্চলের সোনাগাজী উপজেলা অন্য জেলার চেয়ে বেশি পরিমাণ প্রায় ৭১ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ করেছে। ভুট্টা মাছ, মুরগী ও গবাদি পশুর খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করায় দিন দিন এর চাহিদা বাড়ছে ও লাভজনক চাষ হিসেবে এ অঞ্চলের মানুষের কাছে ব্যাপক আশা জাগিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুরে ভুট্টা চাষে কৃষকদের আরো উদ্বুদ্ধ করতে কৃষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফাজিলপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মজিবুল হক রিপনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফেনীর উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম।

স্থানীয় উপ-সহকারী কৃষি অফিসার মোহাম্মদ আবু  তৈয়বের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে পরামর্শমূলক বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. আহসান হাবিব। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আবু ইউছুফসহ সাংবাদিক ও শতাধিক কৃষক উপস্থিত ছিলেন।

ফাজিলপুর ইউনিয়নের কৃষক মো. আলমগীর হোসেন জানান, ভুট্টা চাষে জমিতে পানি সেচ কম লাগে এবং ফলনও অন্য ফসলের তুলনায় বেশী হয়, ফলে তিনি ধান আবাদের চেয়ে ভুট্টার আবাদে অধিক আগ্রহী। 

তিনি আরো বলেন, ভুট্টা মাছ ও মুরগীর খাবার হিসেবে ব্যাপক ব্যবহার হচ্ছে। তাছাড়া ভুট্টা বাজারে বিক্রি করার পরও এর শুকনো গাছ ও মোচা বাড়িতে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা যায়। 

এবার ভুট্টা চাষে খরচ মিটিয়ে বিঘা প্রতি পঁচিশ হাজার টাকা লাভ করেছেন তিনি। প্রতি একরে ভুট্টার ফলন হয় ১২৫ মণ বা ৫ দশমিক ৫ টন। যা অন্যান্য ফসলের তুলনায় অনেক বেশি। 

উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম বলেন, ফেনীতে চলতি বছরে দুইশত ১৭ হেক্টর জমিতে ভুট্টা আবাদ করেছে। ইতোমধ্যে মাঠ থেকে ফসল ঘরে তোলা হয়েছে। ব্যয় মিটিয়ে এক কোটি ৩০ লাখ ২০ হাজার টাকা মুনাফা পাবেন স্থানীয় কৃষকরা।

এসকে/
 

আরও পড়ুন

আরও