মাহফুজের গানই যেন মৃত্যু দিয়ে সত্যি হলো
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

মাহফুজের গানই যেন মৃত্যু দিয়ে সত্যি হলো

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২১

মাহফুজের গানই যেন মৃত্যু দিয়ে সত্যি হলো
মাহফুজুল আলম ইসলামী সংগীত অঙ্গনের এক পরিচিত নাম। ইসলামী সংগীত নিয়ে কাজ করতেন কলরবে। হঠাৎ কয়েক দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন। ২০ জুলাই সকালে জ্বরের মাত্রা বেশি হলে নরসিংদীর একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তিনি ইন্তেকাল করেন।


ঠিক ঈদের আগেরদিন মাহফুজুলের মাত্র ২৩ বছরে পৃথিবী ছেড়ে চলে যাওয়া কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না ভক্তরা। মৃত্যুর মাত্র ১০ দিন আগে নিজের সর্বশেষ গানটি ইউটিউবে প্রকাশ করেছিলেন মাহবুব। তবে বিস্ময়কর হলেও সত্য যে মাহফুজ ১৯ দিন আগে মানে ১ জুলাই একটি অনুপ্রেরণামূলক গান নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করেন। একজন মানুষের মৃত্যুর পরে তার স্বজনরা যেন ভেঙে না পড়ে- এমন বিষয়ের ওপর গান। 

'যখন সন্ধ্যা নেমে জোনাকিরা আসে/আর ফুল গুলো সুবাস ছড়ায় রাতে/তোমার ঘরের খেলনাগুলো/চুপ অভিমানে ঘরে ফিরে যায় ভাঙামনে/তাই তো ওরা আমায় বলে- তুমি ভেঙে পড়ো না এভাবে/কেউ থাকে না চিরদিন সাথে/যদি কাঁদো এভাবে তার ঘুম ভেঙে যাবে/ ও চাঁদ বলো না সে লুকিয়ে আছে কোথায়/সে কি খুব কাছে...' 

তুমি ভেঙে পড়ো না এভাবে/কেউ থাকে না চিরদিন সাথে/যদি কাঁদো এভাবে তার ঘুম ভেঙে যাবে- এ কথাগুলো তো তার ভক্তদের, শুভাকাঙ্ক্ষীদের মনের কথা। একদম কাকতালীয়ভাবে মাহফুজ আলমের চলে যাওয়ায় ধাক্কা খেয়েছেন ভক্তরা। গানটি গেয়েছিলেন প্রীতম হাসান। রাকিব হাসানের লেখা এই গানটি নতুন করে গান মাহফুজ। ১৯ দিন আগে ইউটিউবে আপলোড দেন তিনি।  

মাহফুজ আলমের ইসলামী গান ব্যপক জনপ্রিয়। ইউটিউবে এক লাখের ওপর সাবস্ক্রাইবার রয়েছে তার ব্যক্তিগত চ্যানেলে। 

মাহফুজুল আলম বাংলাদেশের ইসলামী সঙ্গীত জগতের একজন কর্মঠ ও বিপুল শ্রোতাপ্রীয় শিল্পী ছিলেন। তিনি একাধারে সাউন্ড ডিজাইনার, গীতিকার এবং শিল্পী ছিলেন। ইসলামী সঙ্গীতের অসংখ্য শ্রুতিমধুর সংগীত তিনি গেয়েছেন এবং সাউন্ড ডিজাইন করেছেন। 

বাংলাদেশের সর্বাধিক জনপ্রিয় ইসলামী সঙ্গীত চ্যানেল হলিটিউনে চারশ’র বেশি গান কম্পোজ করেছেন তরুণ এ শিল্পী। এছাড়া প্রায় দুই শতাধিক গান তিনি নিজেও গেয়েছেন। শ্রোতাদের কাছে মাহফুজুল আলমের সঙ্গীতের আলাদা কদর ছিলো সব সময়। 

তার ইন্তেকালে ইসলামী সঙ্গীত জগতের অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এত অল্প বয়সে তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন ইসলামী সঙ্গীত জগতের গুনগ্রাহীরা। 

কলরবের প্রধান পরিচালক রশিদ আহমদ ফেরদাউস শোক প্রকাশ করে বলেন, মাহফুজ আলমের মৃত্যুতে আমরা সকলেই গভীরভাবে শোকাহত এবং হতবিহ্বল। ইসলামী সঙ্গীত জগতের একজন বিনয়ী এবং কর্মঠ শিল্পী হিসেবে মাহফুজ তার ভক্তদের মনে আজীবন বেঁচে থাকবেন। আমরা তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি জান্নাত নসিব হওয়ার দোয়া করছি। 

মাহফুজুল আলম ১৯৯৮ সালের ১ জানুয়ারী নরসিংদী জেলার মাধবদী থানার বরপা ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন। শিক্ষাজীবনেও মেধার সাক্ষর রেখেছেন তিনি। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামি স্টাডিজে অনার্স সম্পন্ন করেছেন।

মঙ্গলবার বাদ আসর নরসিংদীর নিজ গ্রামে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় কলরবের শিল্পী, স্থানীয় আলেম-উলামা, সাধারণ মানুষ ও ভক্তবৃন্দ অংশ গ্রহণ করে। জানাজা শেষে তাকে তার পিতার পাশেই দাফন করা হয়।

ওএস/ইসি

 

আরও পড়ুন

আরও