প্রাক্তনের জন্য গোলাপী স্বর্গ
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

প্রাক্তনের জন্য গোলাপী স্বর্গ

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:২০ অপরাহ্ণ, জুন ১৪, ২০২১

প্রাক্তনের জন্য গোলাপী স্বর্গ
প্রাক্তনকে ফিরে পাওয়ার স্বপ্নে গোলাপী স্বর্গ গড়ে তুলেন চীনের গুয়াংডং প্রদেশের হিটউ গ্রামের এক যুবক। প্রাক্তন বান্ধবীকে মুগ্ধ করার জন্য অনেক প্রচেষ্টার পর একটি ছোট্ট জঞ্জাল ভূমিকে গোলাপী স্বর্গে পরিণত করেছিলেন। যার নাম দেয়া হয় ‘লাভ আইল্যান্ড’। তবে তো চেষ্টার পরও তার পুরানো প্রেমিকাকে ফিরে পেতে ব্যর্থ হন।
চীনের গুয়াংডং প্রদেশের হিটউ গ্রামের যুবকের নাম জিয়াও জু। এক মাসের মধ্যে তিনি প্রায় ১০০,০০০ ইউয়ান (১৫,৫০০ ডলার) খরচ করে তার গ্রামের কাছাকাছি একটি হ্রদ থেকে উত্থিত দ্বীপকে রূপকথার প্রেমের দ্বীপে পরিণত করে।

নকল চেরি ফুল, দোনলা, নদীর পাড়ে বসার জন্য পাথরের ব্যবস্থা এবং আরো অনেক কিছু দিয়ে তিনি দ্বীপটি সাজান। তিনি কিছু স্থানীয়কে তার কাজে হাত দেওয়ার জন্য রাজি করিয়েছিলেন। স্থানীয়রাও তাকে সাহায্য করেছে। তবে, দুর্ভাগ্যক্রমে তার প্রত্যাশা পূরণ হয়নি।

৩০ বছর বয়সী জিয়াও জু গুয়াংজু শহরে কাজ করার সময় তার প্রাক্তন বান্ধবীর সাথে দেখা করেছিলেন তারপর তারা দুজনে একসাথে ছিলেন। যখন তিনি তার বৃদ্ধ বাবা-মাকে দেখাশোনা করার জন্য হিটউ গ্রামে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কিন্তু তার গার্লফ্রেন্ড নগর জীবনকে ছেড়ে দিতে চাননি। প্রেমিকার পরিবারও গ্রামাঞ্চলে তার বসবাসকে সম্মতি দেয়নি। সুতরাং তারা ব্রেক আপ 

তবে প্রেমের শেষ ছিল না, জিয়াও তার প্রাক্তনকে দেখাতে চেয়েছিলেন, তিনি এখনো তাকে ভালোবাসেন। তিনি প্রেমিকার প্রতি তার অনুভূতিগুলো পুরো প্রদর্শনটিতে রাখার পরিকল্পনা করেছিলেন। ২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর তিনি বাড়ির কাছাকাছি হ্রদ থেকে উঠে আসা জঞ্জাল ভূমিকে তার ভালোবাসার এক অনন্য প্রতীক হিসাবে রূপান্তরিত করার কাজ শুরু করেছিলেন।

তিনি কয়েক ডজন নকল পীচ এবং চেরি ফুলের গাছ এবং প্লাস্টিকের গোলাপী ডেইজি লাগিয়েছিলেন সেই দ্বীপে। পাথর দিয়ে পাকা রাস্তা তৈরি করেন, দোলনা স্থাপন করেন এবং স্থানীয়দের সহায়তায় এই গোলাপী স্বর্গে খিলানযুক্ত কাঠের সেতু নির্মাণ করেন। প্রেমের দ্বীপটি তৈরি করতে তার এক মাস সময় লেগেছে। এতে জিয়াও জুকে প্রায় এক লক্ষ ইউয়ান খরচ করতে হয়েছে বলে জানা গেছে। প্রকল্পটির কাজ শেষ করার পরে, তিনি তার প্রাক্তন বান্ধবীর কাছে এর ছবি পাঠিয়েছিলেন। এবং সে প্রেমীকাকে জানান যে এই সমস্ত কিছু সে তার জন্যই করেছে। ভালোবাসার এমন উদাহারণ দেখে তার প্রেমিকা মুগ্ধ হলেও হুয়ের আশা মতো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

তার প্রাক্তন তাকে বলেন, ‘তোমার আন্তরিক উতসর্গের জন্য তোমাকে ধন্যবাদ! আপনি আমার চেয়ে ভালো কিছু খুঁজে পাবে’।

জিয়াও যখন তার লাভ আইল্যান্ড নষ্ট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তখন ভালোবাসার এই অস্বাভাবিক প্রদর্শনের গল্পটি বিশ্বের নজরে পড়েছিল। গ্রামে স্থানীয় এবং দর্শনার্থীরা ছবি তিুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে দিতে শুরু করে। দূর-দূরান্ত থেকে প্রেমিক প্রেমিকারা একে একে প্রথম দেখার জন্য আসতে শুরু করেন। এভাবে গুয়াংডং গ্রামে অবস্থিত এই গোলাপী মরুদ্যানের ছবিগুলো চীনা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে শুরু করে। এইভাবে জিয়াও শো’র দুঃখের প্রেমের গল্পটি সবাই জানতে পারে।

গত কয়েক মাস ধরে, জিয়াওর গোলাপী দ্বীপটি অসংখ্য ফটো আপ করার, পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বিবাহ অনুষ্ঠিত হয়েছে এই দ্বীপে। এটি বর্তমানে প্রেমের প্রতীক হয়ে উঠেছে। তিনি তার আসল মিশনে ব্যর্থ হওয়া সত্ত্বেও লাভ আইল্যান্ড প্রেমের বার্তা প্রেরণের উদ্দেশ্যটি পূরণ করেছে। নির্মাতা তাতে অন্তত খুশি।

জিয়াং জু বলেন, প্রেমের দ্বীপটি আমার ইচ্ছা পূরণ করেনি। তবে এটি অন্যকে পরিপূর্ণ করেছে এবং অন্যের ভালোবাসা প্রত্যক্ষ করেছে। এটিও একটি ভালো দিক।’ হিটউ ভিলেজের উপসচিব জু জিংফেং বলেছেন, যে প্রেমের দ্বীপের অপ্রতিরোধ্য সাফল্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে আরও বেশি পর্যটন বাড়ানোর আশায় ইন্টারনেটে প্রচার শুরু করতে অনুপ্রেরণা জাগিয়েছে।

ইসি

 

আরও পড়ুন

আরও