পাহাড়ে ৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিবে ১০০ সাইক্লিস্ট
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

পাহাড়ে ৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিবে ১০০ সাইক্লিস্ট

রাঙামাটি প্রতিনিধি ২:৫০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৮, ২০২০

পাহাড়ে ৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিবে ১০০ সাইক্লিস্ট
রাঙামাটির সাজেক থেকে থানচি ৩০০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথে তিন দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডিসিএইচটি বাইক মাউন্টেন প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।

সোমবার তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডি সিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ ২০২০’ নামে এই প্রতিযোগিতা পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

সহযোগিতায় রয়েছে বাংলাদেশ অ্যাডভেঞ্চার ফাউন্ডেশনসহ তিন পার্বত্য জেলার সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরগুলো। ৩০০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ পাড়ি দেওয়ার এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে তিন পার্বত্য জেলা থেকে ৪৫ জন এবং দেশের অন্যান্য জেলা থেকে ৫৫ জনসহ সর্বমোট ১০০ জন ক্রীড়াপ্রেমী সাইক্লিস্টস অংশগ্রহণ করছে।

সাজেকের রুইলুই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সফিকুল আহম্মদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান ও খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সংরক্ষতি আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, স্থানীয় পর্যটন বিকাশে এই ধরনের প্রতিযোগিতা খুব কার্যকরি। ভবিষ্যতে এই ধরনের প্রতিযোগিতা আয়োজনের মাধ্যমে এই অঞ্চলকে বি্শ্ববাসীর কাছে তুলে ধরার মাধ্যমে স্থানীয় অধিবাসীদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তিনি।

আয়োজকরা জানায়, রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার ‘সাজেক ভ্যালি’ তে তিনদিনের মাউন্টেইন বাইক প্রতিযোগিতা কর্মসূচির সোমবার প্রথম দিন সকাল আটটায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাইক্লিস্টরা প্রধম ধাপে ‘সাজেক ভ্যালি’ হতে রাঙামাটি চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়াম পর্যন্ত ১৩০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ পাড়ি দিবে।

দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সকাল ৮টায় রাঙামাটি চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়াম হতে বান্দরবান স্টেডিয়াম পর্যন্ত তারা ৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত পাহাড়ি পথ পাড়ি দিবে। শেষদিন বুধবার বান্দরবান স্টেডিয়াম থেকে থানচির সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ পর্যন্ত ৮০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ পাড়ি দিয়ে শেষ হবে তিন দিনের এই আনুষ্ঠানিকতা।

আয়োজকরা আরও জানায়, ১০০ সাইক্লিস্টসরা তিনদিনে ৩০০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ পাড়ি দেওয়ার পর শেষদিন সমাপনী অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হবে। এর মধ্যে প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়নকে ৩ লাখ টাকা, প্রথম রানারআপকে ২ লাখ টাকা, দ্বিতীয় রানারআপকে ১ লাখ টাকা, বিশেষ পুরস্কার হিসেবে দেড় লাখ টাকাসহ মোট ৭ লাখ টাকার পুরস্কার বিতরণ করা হবে। এছাড়া সফল প্রতিযোগীদের সনদপত্র, মেডেল ও ক্রেস্ট দেয়া হবে।

এসকে/ইসি

 

 

আরও পড়ুন

আরও