রোনালদোর এই কীর্তি ইতিহাসে আর কারো নেই
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

রোনালদোর এই কীর্তি ইতিহাসে আর কারো নেই

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৪২ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০২০

রোনালদোর এই কীর্তি ইতিহাসে আর কারো নেই
আমি ইতালিতে এসেছি জুভেন্টাসের হয়ে ইতিহাস গড়ার জন্য। ২০১৮ সালে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার ব্যাখ্যায় এই দাম্ভকিপূর্ণ বাক্যটাও উচ্চারণ করেছিলেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। তবে দাম্ভিকতার গন্ধ ছড়ালেও কথাটা যে তার সামর্থের বহিপ্রকাশ, জুভেন্টাসের জার্সি গায়ে সেটা প্রমাণ করেই চলেছেন পর্তুগিজ সুপারস্টার। তবে সত্যিকারের প্রমাণটা করলেন গতকাল রাতে। কাল জুভেন্টাসের জুভেন্টাস স্টেডিয়ামে রোনালদো এমন একটা কীর্তি গড়েছেন, যে কীর্তি ইতিহাসে আর কোনো ফুটবলারের নেই।

মানে কাল রোনালদো লিখেছেন নতুন ইতিহাস। ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে গড়েছেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, স্প্যানিশ লা লিগা ও ইতালিয়ান সিরি আ’তে ৫০ গোল করার অনন্য কীর্তি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও স্প্যানিশ লা লিগায় করেছেন যথাক্রমে ৮৪ ও ৩১১ গোল। তিন লিগে ন্যূনতম ৫০ গোলের মাইলফলক ছুঁতে বাদ ছিল কেবল ইতালিয়ান সিরি আ। কাল সেই অপূর্ণতাও পূর্ণ করেছেন পর্তুগিজ তারকা। লাৎসিও বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণটিতে কাল জোড়া গোল করেছেন রোনালদো। এই ২ গোলের সুবাদে সিরি আ’তে তার গোল হয়ে গেল ৫১টি। গত মৌসুমে ২১ গোল করা রোনালদো এবার এ পর্যন্ত করেছেন ৩০ গোল।

মানে কাল প্রথম গোলটি করেই ইতিহাসের পাতায় নাম লেখান পর্তুগিজ তারকা। পরে আরও একটি গোল করে নিজের কীর্তিটাই আরও একটু ব[ করেছেন। পাশাপাশি দলকে এনে দিয়েছেন ২-১ গোলের মহাগুরুত্বপূর্ণ জয়। যে জয়ে টানা ৯ম লিগ শিরোপার সুবাস পাচ্ছে জুভেন্টাস।

সত্যিই তাই। কালকের জয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইন্টার মিলানের চেয়ে ৮ পয়েন্টে এগিয়ে গেল জুভেন্টাস। ৩৪ ম্যাচ শেষে জুভেন্টাসের পয়েন্ট ৮০, ইন্টার মিলানের ৭২। যার অর্থ, বাকি ৪ ম্যাচ থেকে ২ পয়েন্ট পেলেই টানা ৯ম স্কুডেটোটা ঘরে তুলবে জুভেন্টাস। ৪ ম্যাচে দরকার ২ পয়েন্ট, এ অবস্থায় জুভেন্টাসের শিরোপা জিততে না পারাটা হবে ৯ম আশ্চার্য়ের বিষয়!

দলকে জেতানোর পথে রোনালদো কাল আরও একটা রেকর্ড গড়েছেন। ইতালিয়ান সিরি আ’র ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে গড়েছেন ৫০ গোল করার কীর্তি। যে কীর্তিটি এতোদিন ছিল ইউক্রেনিয়ান কিংবদন্তি আন্দ্রেই শেভচেঙ্কোর দখলে। এসি মিলানের হয়ে শেভচেঙ্কো প্রথম ৫০ গোল করেছিলেন ৬৮ ম্যাচে। রোনালদো কীর্তিটা গড়লেন তার চেয়েও ৭ ম্যাচ কম খেলে। মানে মাত্র ৬১ ম্যাচেই রোনালদো সিরি আ’তে করে ফেললেন ৫১ গোল।

এই ২ গোলের সুবাদে ইতালিয়ান সিরি আ’র শীর্ষ গোলদাতার আসনেও পৌঁছে গেছেন রোনালদো। অবশ্য সেখানে তার আরও একজন সঙ্গী আছেন। লাৎসিওর ইতালিয়ান ফরোয়ার্ড সিরো ইমোবাইল। মৌসুমে দুজনেরই লিগ গোলের সংখ্যা এখন সমান ৩০টি করে। কাল মুখোমুখি দ্বৈরথের আগে সিরো ইমোবাইল-ই এগিয়ে ছিলেন। তার নামের পাশে ছিল ২৯ গোল, রোনালদোর ২৮টি। তো কাল রোনালদোই প্রথমে ২ গোল করে ছাপিয়ে যান সিরো ইমোবাইলকে। পরে লাৎসিওর হয়ে সান্ত্বনার একটা গোল করে রোনালদোকে ছুঁয়েছেন সিরো ইমোবাইল।

কাল রোনালদো দুটো ইতিহাসই গড়েছেন নিজের প্রথম গোলটির মাধ্যমে। যে গোলটি তিনি করেছেন পেনাল্টি থেকে। দ্বিতীয়টি করেছেন আর্জেন্টাইন তারকা পাওলো দিবালার পাশ থেকে।

কেআর

 

: আরও পড়ুন

আরও