চট্টগ্রামকে হারিয়ে বিপিএলের শুভ সূচনা বরিশালের
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ২৫ মে ২০২২ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

>

চট্টগ্রামকে হারিয়ে বিপিএলের শুভ সূচনা বরিশালের

ক্রীড়া ডেস্ক ৫:৪৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২২

চট্টগ্রামকে হারিয়ে বিপিএলের শুভ সূচনা বরিশালের
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) উদ্বোধনী ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৪ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়ে শুভ সূচনা করল ফরচুন বরিশাল। আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন বরিশালের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে চট্টগ্রাম তুলতে পারে ১২৫ রান। জবাব দিতে নেমে ৪ উইকেট এবং ৮ বল হাতে রেখেই জয় তুলে নিয়েছে বরিশাল। এতে পূর্ণ ২ পয়েন্ট নিয়ে এবারের আসর শুরু করল ৩ মৌসুম পর বিপিএলে ফেরা বরিশাল।

আজ (শুক্রবার) শুরু হওয়া বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের অষ্টম আসরের আগেও আলোচনায় সেই উইকেট। উইকেটের আলোচনায় বাড়তি ঘি ঢেলে দিল এবারের বিপিএলের প্রথম ম্যাচ। সেই চিরাচরিত মন্থর আর স্পিন ট্র্যাক। উইকেটের আলোচনা পাশ কাটিয়ে মাঠের পারফরম্যান্সে অবশ্য দারুণ শুরু করেছে ফরচুন বরিশাল। 

করোনাভাইরাসের কারণে দর্শক শূন্য গ্যালারিতে ১২৬ রানের লক্ষ্য টপকাতে নেমে বরিশালের ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে মিরাজের করা তৃতীয় বলে বোল্ড হন নাজমুল হোসেন শান্ত। ফুলার লেন্থের বলটি পড়তে পারেননি শান্ত। আঘাত করে মিডল আর লেগ স্টাম্পের মাঝামাঝি। ১ রান করে ফেরেন শান্ত, খেলেন ৬ বল।

সৈকত আলি আর সাকিব দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এবারও ঝুলিয়ে দিয়ে সফল মিরাজ। ফুলার লেন্থে পড়ে ভেতরে ঢুকে যাওয়া বলটি টেনে বাউন্ডারিতে পাঠানোর চেষ্টা করেন সাকিব, সেটি ব্যাট ফাকি দিয়ে সরাসরি আঘাত করে স্টাম্পে। সাকিব ফেরেন ১৭ বলে ১৬ রান করে। এতে দ্বিতীয় উইকেটে ভাঙে ২৫ রানের পার্টনারশিপ। ইনিংসের ১২তম ওভারে তৌহিদ হৃদয় মুকিদুল ইসলামের বলে ১৬ রান করে আউট হলে কিছুটা বিপদে পড়ে বরিশাল।

তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে খেলা ওপেনার সৈকত আলিকে ফিরে ম্যাচের মোমেন্টার ফেরানোর চেষ্টা করেন মিরাজ। সৈকত ৩০ বল খেলে ৩৯ রানে আউট হলে মিরাজের করা পরের বলেই লেগবিফোরের ফাঁদে পড়েন ইরফান শুক্কুর। আউট হন ১৬ রান করে। পরের ওভারে নতুন ব্যাটসম্যান সালমান হোসেন শূন্য রানের মাথায় রান আউট হলে খানিক বিপদে পড়ে বরিশাল। তবে সে বিপদ বাড়তে দেননি ব্রাভো ও জিয়াউর।

দুজনের হার না মানা ইনিংসের ওপর ভর করে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই হয় তুলে নেয় বরিশাল। ৪ উইকেটে পাওয়া জয়ে ব্রাভো ১২ এবং জিয়া ১৯ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন। চট্টগ্রামের হয়ে ৪ ওভার বল করে মাত্র ১৬ রান নিয়ে মিরাজ একাই নেন ৪ উইকেট। মুগ্ধর দখলে ১ উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নামা চট্টগ্রামের ইনিংসের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি। প্রথম ওভার হাত ঘোরাতে আসা নাঈম হাসানের করা ফুলার লেন্থের বলটা ঠিকঠাক পড়তে না পারার খেসারত দেন ওপেনার এভিন লুইস, নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ধরা পড়েন বাউন্ডারি লাইনে। ফেরেন ৬ রান করে। চট্টগ্রামকে পরের ওভারে আরও চেপে ধরেন সাকিব, দেন মোটে ২ রান। 

চতুর্থ ওভার করতে আসা আলজারি জোসেফ নিজের প্রথম বলেই আফিফ হোসেনের উইকেটটা তুলে নিয়ে চাপটাও ধরে রাখেন। তার বলে উইকেটরক্ষক ইরফান শুক্কুরের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন আফিফ। করেন সমান ৬ রান। পরের ওভারে এক রান দিয়ে সাকিব এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন সাব্বির রহমানকে। অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ আর শামীম পাটেয়ারী টেস্ট মেজাজের ব্যাটিংয়ে দলের চাপ আরো বাড়িয়ে তোলেন।

নাঈমের বলে মিরাজ আউট হন ২০ বল খেলে ৯ রান করে। জোসেফের বলে শামীম ১৪ রান করে সাজঘরে ফেরার আগে খেলে যান ২৩ বল। নাঈম ইসলাম ১৮ বলে ১৫ রান করে ফেরেন সেই জোসেফের তৃতীয় শিকার হয়ে। শেষ দিকে বেনি হাওয়েলের ঝোড়ো ইনিংস কক্ষপথে ফেরায় চট্টগ্রামকে। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ৩টি করে চার আর ছয়ের মারে তিনি খেলেন ২৮ বলে ৪১ রানের ইনিংস। তাতে চতটগ্রামের ইনিংস শেষ করে ১২৫ রান তুলে

স্কোরকার্ড

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স: ২০ ওভার, ১২৫/৮; (লুইস ৬, জ্যাকস ১৬, আফিফ ৬, সাব্বির ৮, মিরাজ ৯, শামিম ১৪, নাইম ১৫, হাওয়েল ৪১, মুকিদুল ৪*, শরিফুল ০*); (নাইম ৪-০-২৫-২, সাকিব ৪-০-৯-১, জোসেপ ৪-০-৩২-৩, লিন্টট ৪-০-১৮-১, ৪-০-৩৯-১)।

ফরচুন বরিশাল: ১৮.৪ ওভার, ১২৬/৬; (শান্ত ১, সৈকত ৩৯, সাকিব ১৩, হৃদয় ১৬, শুককুর ১৬, ব্রাভো ১২*, সালমান ০, জিয়াউর ১৯*); (নাসুম ৪-০-১৯-০, মিরাজ ৪-০-১৬-৪, শরিফুল ৩-০-২৯-০, জ্যাকস ১-০-৭-০, হাওয়েল ৩.৪-০-২৬-০, মুকিদুল ৩-০-২৫-১)

ফলাফল: ফরচুন বরিশাল ৮ বল এবং ৪ উইকেট হাতে রেখে জয়ী

এএইচএ
 

আরও পড়ুন

আরও
               
         
close