হোয়াইট ওয়াশ এড়াতে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১২৪
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

হোয়াইট ওয়াশ এড়াতে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১২৪

ক্রীড়া ডেস্ক ৩:৫৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২১

হোয়াইট ওয়াশ এড়াতে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১২৪
টস জিতে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানকে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতেও চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়তে পারল না বাংলাদেশ।

ওপেনার নাঈম শেখের অর্ধশতকে মান বাঁচানো সংগ্রহ পেল বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রান সংগ্রহ করেছে টাইগাররা।

নাঈম ৫০ বল খেলে ৪৭ রানে করে মোহাম্মদ ওয়াসিমের বলে কট এন্ড বোল্ড হন। সমান দুটি করে ছক্কা ও বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন তিনি। তৃতীয় ম্যাচেও শুরুটা তেমন একটা ভালো হলো না বাংলাদেশের। 

নাঈম শেখের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু একধাপ উপরে উঠে কিছুই করতে পারলেন না। ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারেই আউট হন তিনি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তৃতীয় ডেলিভারিতেই উইকেট পেলেন শাহনওয়াজ দাহানি। আগের ম্যাচের সর্বোচ্চ স্কোরারকে ৫ রানে ফেরালেন। ওয়ানডাউনে নেমে ঝড়ো রান তোলাটা হয়নি শামীম পাটওয়ারীর। তবুও গত দুই ম্যাচের চেয়ে কিছুটা হলেও ভালো বলতে হয়। নাঈম-শামীম জুটিতে ৩০ রান এসেছে। 

ওপেনিংয়ে সুযোগ পেয়ে আজ ৪ বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন শামীম। ২৩ বলে ২২ রান করে উসমান কাদিরের বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেছেন। পাওয়ার প্লে শেষ হতেই আক্রমণে এলেন উসমান কাদির। দ্বিতীয় বলেই উইকেট পেলেন এই লেগ স্পিনার।

সপ্তম ওভারে কাদিরের বলে বেরিয়ে এসে ছক্কায় ওড়াতে চেয়েছিলেন শামীম। কিন্তু মারে জোর ছিল না। বাউন্ডারির অনেক আগেই ইফতেখার আহমেদের তালুবন্দী হন। শামীমের বিদায়ের পর মাঠে নামেন অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ধ্রুব। আজকেও ভালোই শুরু করেছিলেন।

কিন্তু ১৫তম ওভারে কাদিরকে আবার ছক্কার চেষ্টা করেন আফিফ। কিন্তু টাইমিং হয়নি। সবহজ ক্যাচ গ্লাভসবন্দি করেন কিপার রিজওয়ান। ভাঙে ৪২ বলে ৪৩ রানের জুটি। দুই ছক্কায় ২১ বলে ২০ রান করেন আফিফ। 

শেষ দিকে ওপেনার নাঈমের বিদায়ে ব্যাট হাতে সোহান নেমে তেমন কিছুই করতে পারেননি। মাত্র ৪ রান করে ওয়াসিমের বলে আউট হন। 

১৯তম ওভারে হারিস রউফের প্রথম বলে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও। ১৩ বলে ১৩ রানে শেষ হয় তার ইনিংস।

এর আগে প্রথম ম্যাচে ১২৭ রান করা বাংলাদেশ দ্বিতীয় ম্যাচে করেছিল মাত্র ১০৮ রান।

বাংলাদেশ একাদশ: মোহাম্মদ নাঈম, শামীম হোসেন, নাজমুল হোসেন শান্ত, আফিফ হোসেন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), আমিনুল ইসলাম, শরিদুল ইসলাম, মেহেদি হাসান, তাসকিন আহমেদ, নাসুম আহমেদ।

পাকিস্তান একাদশ: মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), বাবর আজম (অধিনায়ক), হায়দার আলী, সরফরাজ আহমেদ, খুশদিল শাহ, ইফতিখার আহমেদ, মোহাম্মদ নওয়াজ, উসমান কাদির, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, হারিস রউফ, শাহনেওয়াজ দাহানি।

এইচআর

 

আরও পড়ুন

আরও