অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি আজ
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ১ ডিসেম্বর ২০২১ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি আজ

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৪০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০২১

অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি আজ
বাংলাদেশের বিপক্ষে দুরন্ত জয় পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। একই রকম চাপে থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। দুবাইয়ে আজ বৃহস্পতিবার পরস্পরের বিপক্ষে খেলতে নামছে দুই দল।

বিশ্বকাপের চলতি আসরে দুই দলের এটা দ্বিতীয় ম্যাচ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ১১৮ রান টপকেছিল ৫ উইকেট হারিয়ে। হাতে ছিল আরও ২ বল। শারজাহতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৫ উইকেটে জয় পায় শ্রীলঙ্কা। 

মাহমুদুল্লাহ বাহিনীর ১৭১ রান টপকে যায় ৭ বল আগে চারিথ আশালাঙ্কার অপরাজিত ৮০ ও ভানুকা রাজাপক্ষের ৫৩ রানে চড়ে। 

আবুধাবিতে দক্ষিণ আফ্রিকার ৯ উইকেটে ১১৮ রান টপকে যায় অস্ট্রেলিয়া ১৯.৪ ওভারে। দলকে চাপের মুখে জয় উপহার দেন স্টিভেন স্মিথ ৩৪ বলে ৩৫ রানের ইনিংস খেলে। শেষ দিকে মার্কাস স্টয়নিশ ২৪ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংসটি খেলেন ১৬ বলে ৩ চারে।

নিজেদের প্রথম ম্যাচ জিতে অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা দুই দলই সুবিধাজনক অবস্থানে। আজ যারা জিতবে, টানা দুই জয়ে তাদের সম্ভাবনা বেড়ে যাবে সেমিফাইনালে যাওয়ার। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার রান তাড়া করা সহজ না হলেও শারজার উইকেট কোনো সমস্যাই করতে পারেনি লঙ্কানদের।

শ্রীলঙ্কা-অস্ট্রেলিয়ার সর্বশেষ দেখা ২০১৯ সালে। ঘরের মাঠে তিন ম্যাচের সেই টি-টোয়েন্টি সিরিজটাতে লঙ্কানদের হোয়াইটওয়াশই করেছিল অস্ট্রেলিয়া। এই বিশ্বকাপের আগেও লঙ্কানদের ততটা গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। 

তবে কোয়ালিফায়ারসহ টানা চার জয়ে দলটি ভিন্ন বার্তাই দিচ্ছে। বিশেষ করে বাংলাদেশের বিপক্ষে চারিথা আশালঙ্কা ও ভানুকা রাজাপক্ষে যেভাবে ব্যাটিং করেছে তাতে দলটি বড় কিছুরই আশা জাগাচ্ছে এ আসরে।

এই গ্রুপে অস্ট্রেলিয়ার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচটা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সেটিই পেরিয়ে আসার পর তারাও এই মুহূর্তে আত্মবিশ্বাসী। বোলিং-ফিল্ডিংয়ে প্রথম ম্যাচে নিজেদের সেরাটাই দেখিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। জস হ্যাজেলউড অসাধারণ বোলিং করেছেন, কার্যকর ছিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও। তবে টপ অর্ডারে ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চের রানে ফেরার অপেক্ষা বাড়ছেই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অবশ্য ৫৫.৯০ গড় আত্মবিশ্বাস জোগাতে পারে ওয়ার্নারকে।

২০২১-এ সুপার টুয়েলভের দলগুলোর মধ্যে জয়ের হার সবচেয়ে কম এই দুটি দলেরই। তবে বিশ্বকাপে নতুনভাবেই দেখা যাচ্ছে তাদের। আজ মুখোমুখি লড়াইয়ে কারা পার্থক্য গড়ে দেয়, সেটিই এখন দেখার।

মার্কাস স্টোয়নিস অস্ট্রেলিয়া দলে দারুণ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছেন। বিশ্বকাপের আগেই বলেছিলেন সেরা ফিনিশার হতে চান তিনি। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে সেই স্টোয়নিসকেই দেখা গেছে। এ ম্যাচেও তাই লঙ্কানদের মাথাব্যথার কারণ হতে পারেন তিনি। 

ওদিকে নড়বড়ে টপ অর্ডার নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার দুশ্চিন্তা হতে পারেন লাহিরু কুমারা। এই পেসার গতি ও কার্যকারিতায় নিজের সামর্থ্য প্রমাণ করেছেন। মহেশ থিকসানাও ফিরছেন এই ম্যাচে। তাতে জায়গা ছেড়ে দিতে হবে বিনুরা ফার্নান্ডোকে। অস্ট্রেলিয়ার একাদশ অপরিবর্তিত থাকার সম্ভাবনাই বেশি। 

মিচেল মার্শ ও স্টোয়নিসকে বল হাতে নিতে হয়নি প্রথম ম্যাচে। আজ ম্যাক্সওয়েল বা অন্য কেউ কোটা পূরণ না করলে তাঁদেরও দেখা যেতে পারে বোলিং প্রান্তে। ক্রিকইনফো

তবে শেষ পর্যন্ত কন্ডিশন ঠিকঠাক কাজে লাগাতে পারাই মূল ব্যাপার হয়ে উঠতে পারে এ ম্যাচে। অস্ট্রেলিয়া এটা নিয়ে ভেবেছে শুরু থেকেই। তাই স্টিভেন স্মিথকে ব্যাটিং অর্ডারে একটু নিচেও নামিয়ে দেওয়া হয়েছে, টপ অর্ডার ব্যর্থ হলে যাতে ইনিংসটাকে মেরামত করতে পারেন। মিকি আর্থারের দলও নিশ্চয় সেটা মাথায় রাখছে। 

এইচআর
 

আরও পড়ুন

আরও