মিয়ানমারে গুলিতে নিহত আরও ২, জাতিসংঘের নিন্দা
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ মার্চ ২০২১ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

মিয়ানমারে গুলিতে নিহত আরও ২, জাতিসংঘের নিন্দা

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:০০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১

মিয়ানমারে গুলিতে নিহত আরও ২, জাতিসংঘের নিন্দা
মিয়ানমারে ক্ষমতা দখল করা সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে৷ শনিবার দেশটি মান্ডালে শহরে প্রতিবাদকারীদের ওপর গুলি ছোড়ে নিরাপত্তা বাহিনী৷

মিয়ানমারে ক্ষমতা দখল করা সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে৷ শনিবার দেশটি মান্ডালে শহরে প্রতিবাদকারীদের ওপর গুলি ছোড়ে নিরাপত্তা বাহিনী৷

এ বিক্ষোভে অন্তত দুইজনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছেন সেখানকার জরুরি সেবাদানে নিয়োজিত কর্মীরা৷

মেডিকেল শিক্ষার্থীদের আয়োজিত এই বিক্ষোভে প্রায় এক হাজার মানুষ যোগ দেন৷ ৯ ফেব্রুয়ারি পুলিশের গুলিতে এক তরুণীর মৃত্যু প্রতিবাদে বিক্ষোভের আয়োজন করেন তারা৷

মান্ডালেভিত্তিক একটি স্বেচ্ছাসেবী উদ্ধার দলের প্রধান হ্লাইং মিন ও জানিয়েছেন, একটি শিপইয়ার্ডের কাছে এই সহিংসতায় প্রায় ৩০ জন আহত হয়েছেন৷

শুক্রবার গুলিতে প্রাণ হারানো মিয়া থোয়েট থোয়েট খিয়াং এর স্মরণে প্রতিবাদকারীরা ফুল ও ব্যানার হাতে মান্ডালে ও ইয়াঙ্গুনের রাস্তায় নামেন৷ নিরাপত্তা বাহিনী প্রতিবাদকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস, জলকামান ও রবার বুলেট ছোড়ে৷

গুলিতে দুই বিক্ষোভকারী নিহত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই মিয়ানমারের জনপ্রিয় অভিনেতা লু মিনকে আটক করা হয়েছে। সরকারি পেশাজীবীদের বিক্ষোভে যোগ দিতে প্ররোচিত করার অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। খবর এএফপি ও রয়টার্সের

এদিকে মিয়ানমারে বিক্ষোভে গুলিতে মৃত্যুর ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

এক টুইটে তিনি বলেন, ‘মিয়ানমারে চলমান মারাত্মক সহিংসতার নিন্দা জানাচ্ছি। শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে প্রাণঘাতী শক্তি ব্যবহার, ভীতিপ্রদর্শন ও হয়রানির ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না।’

মিয়ানমারের জনপ্রিয় অভিনেতা লু মিনের স্ত্রী খিন সাবাই ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিওতে জানান, পুলিশ তাদের বাড়িতে এসে লু মিনকে নিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ‘তারা জোর করে দরজা খুলে ঢুকে লু মিনকে নিয়ে যান। তাঁকে কোথায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, পুলিশ তা জানায়নি। আমি তাদের থামাতে পারিনি।’

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বিক্ষোভ চলছে৷ এখন পর্যন্ত ৫৪৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে একটি স্বাধীন পর্যবেক্ষক দল৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক প্রধান জোসেপ বোরেল সবশেষ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন৷ তিনি বিক্ষোভকারীদের ওপর সহিংসতা বন্ধে মিয়ানমারের সামরিক ও সব নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান৷
দেশটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সোমবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন আলোচনায় বসবে বলেও এক টুইটে উল্লেখ করেন৷

মিয়ানমারের সামরিক জান্তার ওপর অবরোধ আরোপে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আহ্বান জানিয়ে আসছেন সু চির সমর্থকরা৷ যুক্তরাষ্ট্র, ক্যানাডা ও ব্রিটেন এরইমধ্যে জেনারেলদের ওপর অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে৷

এইচআর

 

আরও পড়ুন

আরও