ভারতে পুলিশি হেফাজতে বাবা–ছেলের মৃত্যুতে ক্ষোভ
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০ | ২০ আষাঢ় ১৪২৭

ভারতে পুলিশি হেফাজতে বাবা–ছেলের মৃত্যুতে ক্ষোভ

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:৪৫ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৮, ২০২০

ভারতে পুলিশি হেফাজতে বাবা–ছেলের মৃত্যুতে ক্ষোভ
ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যে পুলিশি হেফাজতে রাতভর নৃশংস নির্যাতনে বাবা-ছেলের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

শহরে লকডাউনের মধ্যে নির্ধারিত সময়ের পরও দোকান খোলা রাখার অভিযোগে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ঘটনায় ভারতজুড়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

ইন্ডিয়ান টুডের অনলাইনে বলা হয়েছে, পুলিশি হেফাজতে মৃত্যু বাবা-ছেলে হলেন পি জয়রাজ (৫৮) ও ফেনিক্স ইমানুয়েল (৩১)। তুতিকোরিন শহরে মুঠোফোনের দোকান চালাতেন তারা।

ঘটনার সূত্রপাত ১৯ জুন। ওই দিন রাত ৮টা ১৫ মিনিটের দিকে দোকানের শাটার নামাতে যান জয়রাজ। নির্ধারিত সময়ের ১৫ মিনিট পর কেন দোকান বন্ধ করা হচ্ছে, তা নিয়ে এলাকায় টহল দেয়া পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে বাবা-ছেলের কথা-কাটাকাটি হয়।

পরের দিন রাত পৌনে ৮টা নাগাদ একদল পুলিশ সদস্যকে নিয়ে দোকানে হাজির হন স্থানীয় সাথানকুলাম থানার এক উপপরিদর্শক।

আগের দিনের ঘটনা নিয়ে জয়রাজের সঙ্গে নতুন করে তর্ক শুরু হয় পুলিশের। এরপরই জয়রাজকে জোর করে গাড়িতে তুলে নেয় পুলিশ। বাবাকে পুলিশ তুলে নিয়ে যাচ্ছে দেখে ছেলে ফেনিক্স আটকাতে যান।

এরপর পাঁচ বন্ধুর সঙ্গে আইনজীবী নিয়ে থানায় যান ফেনিক্স। কী অপরাধে তাঁর বাবাকে থানায় আনা হয়েছে, তা পুলিশের কাছে জানতে চান তিনি।

সদুত্তর না পেয়ে পুলিশের সঙ্গে ফের তর্ক শুরু হয়। পরে তাঁকেও গ্রেপ্তার করা হয়। আইনজীবী ও ফেনিক্সের বন্ধুদের চলে যেতে বলা হয়।

আইনজীবী মনিমারন বলেন, ২২ জুন সোমবার হাসপাতাল থেকে একটি উপসংশোধনাগারে নিয়ে যাওয়া হয় জয়রাজ ও তার ছেলেকে। সেখানে তাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে সন্ধ্যায় কোভিলপট্টি হাসপাতালে পাঠানো হয় দুজনকে। সোমবার সন্ধ্যায় ফেনিক্স আর মঙ্গলবার সকালে তার বাবা মারা যান।

এই ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসতেই পথে নেমে পড়ে মানুষ। সিবিআইকে গোটা ঘটনার তদন্তভার দেওয়ার দাবি তুলেছে কংগ্রেস।

ওএস/এইচআর

 

: আরও পড়ুন

আরও