গাড়ি বিক্রির টাকায় ১৪ হাজার শিশুকে উপহার
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মে ২০২০ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

গাড়ি বিক্রির টাকায় ১৪ হাজার শিশুকে উপহার

বগুড়া প্রতিনিধি ১১:৪৫ পূর্বাহ্ণ, মে ২০, ২০২০

গাড়ি বিক্রির টাকায় ১৪ হাজার শিশুকে উপহার
সমাজ সেবার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নান আকন্দ ও নাহারুল ইসলাম। করোনাকালে হাতে নগদ অর্থ না থাকায় নিজের গাড়ি বিক্রি করে দিয়েছেন নাহারুল। গাড়ির বিক্রির সাড়ে ৯ লাখ টাকার সাথে আব্দুল মান্নান আকন্দের ৯ লাখ টাকা দিয়ে ঈদে ১৪ হাজার শিশুকে নতুন জামা কিনে দিলেন।

এমন সমাজ সেবার বর্তমান সময়ে খুজে পাওয়া অনেকটাই কঠিন বলে জানিয়েছেন অনেকে। বগুড়া সরকারি শিশু পরিবারসহ পৌর এলাকার ২১টি ওয়ার্ডের ১৪ হাজার জামার অধিকাংশ ইতিমধ্যেই শিশুদের দেওয়া হয়ে গেছে। বাকিগুলো অতি সম্প্রতি বিতরণ করবেন বলে জানিয়ে নাহারুল ইসলাম।

ব্যবসায়ী নাহারুল ইসলাম জানান, বগুড়ার সোনাতলার জোড়গাছায় তার জন্ম। এখন বগুড়া শহরের জহুরুল নগরে পরিবার নিয়ে থাকেন। সমাজসেবক আব্দুল মান্নান আকন্দের অনুপ্রেরনায় তিনি সমাজসেবা করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, আব্দুল মান্নান আকন্দ যে ভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে, তা সমাজের জন্য অনুকরনীয়। করোনা কালে আমার হাতে নগদ অর্থ না থাকায় আমার ব্যবহারের এক্স করোলা গাড়িটি বিক্রি করে দিয়েছে। গাড়ি বিক্রির সাড়ে ৯ লাখ টাকা ও আব্দুল মান্নান তার ব্যবসার লভ্যাংশ থেকে বাকি আরো ৯ লাখ টাকা দিয়ে ১৪ হাজার শিশুকে নতুন জামা প্রদান করার উদ্যোগ নেই আমরা।

বগুড়ার শুকরা এন্টারপ্রাইজের প্রধানকর্তা ঠিকাদার, জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি ও শুভ সংঘের প্রধান উপদেষ্টা আব্দুল মান্নান আকন্দ জানান, এখনো অনেক বাকি। আমি সবটা একা করতে পারছি না। অনেক মানুষের অভাব রয়েছে। সমাজের অনেক মানুষ কর্মহীন। এর সাথে করোনা ভাইরাস দেয়ালে পিঠ ঠেকিয়ে দিয়েছে। এই মানুষগুলোর জন্য কিছু করতে পারলে শান্তি পাই। না করতে পারলেই বরং কষ্ট হয়। মানুষ মানুষের জন্য। এই কথাটি বারবার মনে পড়ে যায়। মানুষই যদি না থাকে তাহলে দেশ বা পৃথিবী দিয়ে কি হবে। মানুষ বাঁচলে তাদের মধ্যে আব্দুল মান্নান আকন্দও বাঁচবে।

তিনি আরো বলেন, গাড়ি বিক্রির সাড়ে ৯ লাখ টাকার সাথে আরো ৯ লাখ টাকা যোগ করে মোট সাড়ে ১৮ লাখ টাকার উপহারসামগ্রী প্রদান করা হবে শিশুদের মাঝে। শনিবার প্রথম দফায় বগুড়ার সরকারি শিশু পরিবারের (বালিকা) ১৩৫ জন নিবাসীর মাঝে এই নতুন জামা বিতরণের মধ্যে দিয়ে কর্মসূচি শুরু করা হয়। প্রতিদিন বিভিন্ন স্কুলে গিয়ে এসব নতুন জামা প্রদান করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে অধিকাংশ জামা প্রদান করা হয় গেছে। বাকি উপহার আগামী দুই দিনের মধ্যে বিতরণ কর সম্ভব হবে।

বগুড়া সরকারি শিশু পরিবারের উপ-তত্বাবধায়ক রীপা মোনালিসা জানান, সেবক আব্দুল মান্নান আকন্দ গত কয়েক বছর ধরে ঈদে এখানকার শিশুদের নতুন জামা এবং ঈদ আযহার সময় কোরবানির জন্য গরু প্রদান করে থাকে। এবারও আব্দুল মান্নান আকন্দ ও তার সহযোগি নাহারুল ইসলাম মিলে আমাদের শিশুদের ঈদের নতুন জামা প্রদান করেছেন। উনারা যে ভাবে সমাজের অসহায় মানুষদের সেবা করে যাচ্ছেন, তাদের এমন সমাজ সেবা দৃঢান্ত হয়ে থাকবে।

এএইচ/জেডএস

 

: আরও পড়ুন

আরও