পাবনায় বিদেশী নাগরিকদের ভাড়া বাড়ি লকডাউন
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৭ আশ্বিন ১৪২৭

পাবনায় বিদেশী নাগরিকদের ভাড়া বাড়ি লকডাউন

পাবনা প্রতিনিধি ৫:৪৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২০

পাবনায় বিদেশী নাগরিকদের ভাড়া বাড়ি লকডাউন
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে কর্মরত এক বেলারুশ নাগরিককে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ইতোমধ্যে ঈশ্বরদীর নারিচা এলাকায় রাশিয়ানদের ভাড়াকৃত ‘হাউস-২’ লকডাউন করা হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাত ১০টার পর তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়।

ওই বেলারুশ নাগরিকের বাড়িতে প্রকল্পে কর্মরত ১৫-১৬ জন বিদেশি নাগরিক বসবাস করছেন বলে জানা গেছে। বাড়িটির গেট তালাবদ্ধ করে রাতেই পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রায়হান লকডাউনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঈশ্বরদী হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শফিকুল ইসলাম শামীম জানান, রূপপুর প্রকল্পের রাশিয়ান ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘অর্গানস্ত্রয়’-এ কর্মরত এক বেলারুশ নাগরিক করোনা পরীক্ষার জন্য বুধবার রাতে ঢাকায় গিয়েছেন। তার গলা ব্যথা, কাশি ও কিছু সমস্যা ছিল।

ওই প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক ডা. সের্গেই মারজভসও রোগীর সঙ্গে কথা বলেছেন। আগে তার গলায় একটি অপারেশন হয়েছিল। ডা. সের্গেই মারজভস ধারণা করছেন, এ কারণেও তার গলা ব্যাথা হতে পারে। ঈশ্বরদীতে করোনা পরীক্ষার কোনো কিট না থাকায় বাইরে না বের হয়ে তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছিল।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবীর জানান, ওই বিদেশির বিষয়ে ঢাকায় আইইডিসিআর’এ কথা বলা হয়েছিল। ঈশ্বরদী এসে নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার কথা। কিন্তু সেই সময় না দিয়ে রাতেই অ্যাম্বুলেন্স করে তিনি ঢাকায় গিয়েছেন। ওই রাতেই ওই বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ওই বিদেশি সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে ঈশ্বরদীতে আসেন। দেশে যাওয়ার জন্য তিনি কয়েকদিন আগে ঢাকায় গিয়েছিলেন। কিন্তু বিমান যোগাযোগ বন্ধ হওয়ায় তিনি কয়েকদিন ঢাকায় থেকে ফিরে আসেন। গলা ব্যাথা ও কাশি ছাড়াও আরো কোনো উপসর্গ ছিল কিনা জানা সম্ভব হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রায়হান নারিচা এলাকার ওই বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, ওই বাড়িতে বসবাসরত অন্যান্য বিদেশিদের রূপপুর প্রকল্পে কাজে যেতে নিষেধ করা হয়ে। এছাড়া তাদের প্রকল্পে প্রবেশের সিকিউরিটি পাস বন্ধ করা হয়েছে।

আরজে/জেডএস

 

: আরও পড়ুন

আরও