বগুড়ায় এক বিধবার বাড়ি জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১৩ কার্তিক ১৪২৮

বগুড়ায় এক বিধবার বাড়ি জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ

বগুড়া প্রতিনিধি ৩:০১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১

বগুড়ায় এক বিধবার বাড়ি জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ
বগুড়ায় সদর থানার পাশে এক বিধবাকে মারপিট করে জোরপূর্বক বাড়ি দখলের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানা পুলিশের সহযোগিতা পায় নাই ভুক্তভোগী বিধবা।

শনিবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে  সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী বিধবা দোলেনা বেগম ওরফে চম্পা জানিয়েছেন প্রভাবশালী মহল দীর্ঘদিন ধরেই আমার বাড়ি দখলের চেস্টা চালিয়ে আসছে। 

সম্মেলনে চম্পা জানিয়েছেন, বগুড়া সদর থানা থেকে ১শত গজ দূরে সুত্রাপুর মৌজার কবি নজরুল ইসলাম সড়কে সদর থানার পাশে পৈতিক সূত্রে প্রাপ্ত জমিতে টিনসেট বাড়ি করে বসবাস করে আসছি। এই বাড়ি গত ১৯৯৮ সাল থেকে একটি প্রভাবশালী মহল দখলের চেস্টা চালিয়ে আসছে। 

তিনি আরও জানিয়েছেন, গত শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে রেজাউল করিম সরকার রবিন ও আকবরিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান আলী আলারের নেতৃত্বে ১শ/দেশ শতাধিক মানুষ দেশিয় অস্ত্রশস্ত্রে সর্জ্জিত হয়ে আমার বাড়িতে প্রবেশ করেছে। তারা চিৎকার করে বলে এই বাড়িতে যারা প্রবেশ করবে তাদের রক্তের বন্যা বয়ে দেব। এভাবে সারাদিন অতিবাহিত হবার পর রাত ৮টার দিকে আমার বাড়ির তালা আটকিয়ে দেয় এবং গলিতে প্রাচীর নির্মাণ করে আমার যাতায়াত বন্ধ করে দেয়। 

তাছাড়া রাতের আধারে আমার বাড়ির জায়গায় জোর পূর্বক টিনের ছাপড়া নির্মাণ করে ঐ জায়গা অবৈধভাবে দখল করে নিয়েছে। এ অবস্থায় আমার বাড়ির প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়ায় আমি রাতে সাড়ে ১২ টার দিকে সদর থানায় অভিযোগ দিতে গেলে পুলিশ অভিযোগ না নিয়ে উল্টো আমাকে ধমক দিয়ে থানা থেকে বের করে দেয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরো জানিয়েছেন, ৯৯৯ এই নম্বরে রাতে কয়েক বার ফোন দিয়েছি, একবার পুলিশ এসেছিলো, তারপরও আর আসেনি। ৯৯৯ সবশেষে ফোন দিলে নারী কন্ঠে বলে আমরা এ ব্যাপারে সহযোগিতা করতে পারব না। এমন অবস্থায় একজন বিধবা মানুষ হয়ে ওই প্রভাবশালী মহলের সন্ত্রাসীদের ভয়ে অনিরাপত্তায় জীবন যাপন করছি। আমি একাই ওই বাড়িতে বসবাস করে আসছি, আমার দুই মেয়ে, তাদের বিয়ে হয়ে গেছে। তাই আমার জীবনের নিরাপত্তার প্রদানে প্রশাসনের সুদৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এ সময় চম্পার মেয়ে নিপা উপস্থিত ছিলেন। 

আকবরিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান আলাল আলী জানিয়েছেন, আমার জায়গা আমি দখলের নিয়েছে। জায়গার যাবতীয় কাগজপত্র রয়েছে। এ ঘটনায় কাউকে কোনো প্রকার মারপিট করা হয়নি। এসব বিভ্রান্তমূলক কথা ছড়াচ্ছে ওই মহিলা। 

এ বিষয়ে বগুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজার সরকারি মোবাইলে ফোন দিলে মিটিং আছে বলে ফোন কেটে দেন তিনি।

এসকে

 

আরও পড়ুন

আরও