শীতের সাজে মোজার বাহার
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১ | ৬ মাঘ ১৪২৭

শীতের সাজে মোজার বাহার

পরিবর্তন ডেস্ক ১:০৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ০৪, ২০২১

শীতের সাজে মোজার বাহার
শীতের পোশাকের সাথে মানানসই মোজা হয়ে উঠতে পারে আপনার স্টাইল স্টেটমেন্ট। শীতে শুধু বাইরে নয়, ঘরের মধ্যে স্যান্ডেল বা খালি পায়ে সব বয়সীদের জন্য মোজা ব্যবহার আরামদায়ক। তবে আরামের পাশাপাশি স্টাইলিংয়ের কথাও ভাবতে হবে, কারণ শীত মানেই পার্টি টাইম। তা ছাড়া বেড়াতে যাওয়া, বিয়েবাড়ি— স্টাইলিংয়ের সুযোগও দেদার। কী ধরনের পোশাকের সঙ্গে কোন মোজা মানানসই, সেই অনুযায়ী স্টাইল করুন।

পার্টি বা অন্য কোনো জায়গায় ঘুরতে যাওয়ার সময় শর্ট এর সাথে সঙ্গী হতে পারে মোজা। হাই-নি টাইটস বা স্টকিংসের ক্ষেত্রে প্যাটার্ন এখন বেশ ‘ইন’। তাই নেট বা প্লেন স্টকিংসের পরিবর্তে জিয়োমেট্রিক বা সিমেট্রিক্যাল প্যাটার্নের মোজাও বেছে নিতে পারেন। রেনবো কালার্ড মোজা যে কোনো কালারের পোশাকের সাথে ভালো লাগবে।

শীতের হাত থেকে পা দু’টিকে বাঁচাতেই শুধু নয়, মোজা অনেক সময়ে হতে পারে আপনার মুশকিল আসানও। পা-ঢাকা পোশাক পরতে চাইলে, পার্টির আগে পা ওয়্যাক্সড না থাকলে কিংবা কোনো পোশাকের সাথে মানানসই লোয়ার না থাকলেও স্টকিংস বা মোজা আপনার সমস্যার সমাধান করে দিতে পারে। মোজার সাথে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দিব্যি মানিয়ে যায় একজোড়া বুটস কিংবা হিলস। মোজার সাথে ফ্ল্যাটস এড়িয়ে চলুন।

রংবেরঙের কয়েকটি মোজা যদি আপনার কালেকশনে থাকে, আর চিন্তা নেই। ফুটি আর অ্যাঙ্কলেট বেশির ভাগ ওয়েস্টার্ন পোশাকের সাথে মানানসই। বিশেষ করে জিন্স, চিনোজ় বা কাপরির সাথে পরার জন্য। এর সাথে একটা পাম্পস পরে নেবেন। রাফলড শর্ট ড্রেস বা প্লিটেড স্কার্টের সঙ্গে অ্যাঙ্কল লেংথ মোজা আর স্ট্র্যাপি হিলসও মানায় ভালো।

মিড লেংথ কিংবা নি-লেংথ মোজা পরার প্রচলন এখন অনেকটাই কম। সে ক্ষেত্রে কয়েকটা আঙুলওয়ালা মোজা থাকলে স্নান করে উঠে পায়ে গ্লিসারিন বা ময়শ্চারাইজ়ার লাগিয়ে নিলে পা ফাটার মতো সমস্যাও কমবে এতে, পা মসৃণ ও সুন্দর থাকবে। তবে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মোজা খুলে শুতে যাওয়াই ভালো।

হরেক রকমের মোজার মধ্যে আর একটি আরামদায়ক অপশন হল স্লিপার্স সক্স, যা দেখতেও ভাল। কটন, উলেন কিংবা ক্রশের স্লিপার্স সক্স কিনে রাখুন কয়েক জোড়া। রেগুলার স্লিপার্স পাল্টে শীতের ক’মাস এই স্লিপার্স সক্স ব্যবহার করুন।

ট্র্যাডিশনাল পোশাকের সঙ্গেও মানানসই মোজা। শুধু দেখনদারিই নয়, স্বাচ্ছন্দ্যও জরুরি। তাই শাড়ির সঙ্গে নো-শো সক্স বা ব্যালেরিনা সক্স, ইন্দো-ওয়েস্টার্নের সঙ্গে কোয়ার্কি প্রিন্টের সক্স পরা যেতেই পারে। ছেলেদের ক্ষেত্রে বন্ধগলা, কুর্তা-পাজামা বা ধোতি প্যান্টসের সঙ্গে অনেকেই মোজা ক্যারি করতে পারেন।

মোজা ব্যবহারে কিছু বিশেষ দিক মনে রাখা দরকার। সব সময় পরিষ্কার মোজা পরা উচিত। ত্বক সংবেদনশীল হলে মোজা এক দিনের বেশি পরা ঠিক না। বাইরে থেকে ফিরে মোজা জুতার মধ্যে গুঁজে না রেখে বাতাসে শুকিয়ে নিতে হবে। মোজা ব্যবহারের ফলে পায়ে দুর্গন্ধ হতেই পারে। যাদের পা বেশি ঘামে, তারা মোজা ব্যবহারের আগে পায়ে ফুট পাউডার ব্যবহার করুন।

মোজা কেনার সময় খেয়াল রাখুন, এর ইলাস্টিক যেন বেশি আঁটসাঁট না হয়। অনেকক্ষণ মোজা পরা থাকলে কিছু সময় খুলে রাখুন। রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকবে। মোজা কিনুন পায়ের মাপে। কেনার সময় নরম, আরামদায়ক মোজা বেছে নিন। অনেকেই জুতার সঙ্গে মিলিয়ে মোজা পরেন; কিন্তু এটি পরতে হবে প্যান্টের সাথে মিলিয়ে। রাতে ঘুমানোর আগে মোজা খুলে রাখুন।

ওএস/এসকে

 

আরও পড়ুন

আরও