কোমল পানীয়র বিচিত্র সব ব্যবহার
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০ | ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

কোমল পানীয়র বিচিত্র সব ব্যবহার

পরিবর্তন ডেস্ক ২:০৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০২০

কোমল পানীয়র বিচিত্র সব ব্যবহার
পান যোগ্য পানীয়র মধ্যে কোকাকোলা কার্বোনেটেড কোমল পানীয়। কোম্পানিটির দাবি অনুসারে বিশ্বের ২০০টিরও বেশি দেশে কোকাকোলা বিক্রি হয়। কোকাকোলা উৎপত্তি হয়েছিল ওষুধ হিসেবে। ঊনিশ শতকে জন পেম্বারটন নামক একজন রসায়নবিদ কোকাকোলার ফর্মুলা আবিষ্কার করেন। তিনি দাবি করেছিলেন, কোকাকোলা মরফিন আসক্তি, বদহজম বা অজীর্ণ, স্নায়ুবিক দুর্বলতা, মাথাব্যথা, ধ্বজভঙ্গ তাড়ায়।

স্রেফ কার্বোনেটেড ওয়াটার, চিনি, ক্যাফেইন, ফসফরিক এসিড আর প্রাকৃতিক ফ্লেভার দিয়ে কোকাকোলা তৈরি হয়। কিন্তু এসব উপাদানের অনুপাত সম্পর্কে জানা যায়নি। এটির নানাবিধ প্রয়োগ রয়েছে। তবে নিচের দশটি বিচিত্র প্রয়োগ বেশ আলোচিত। 


মরচে তাড়াতে কোকাকোলার জুড়ি নেই। যেসব গৃহস্থালি জিনিসে মরচে ধরেছে, সেগুলোকে কোকে সারারাত ডুবিয়ে রেখে সকালে ভালো করে ঘষুন। মরচে থাকবে না। কারণ কোক মরচের অণু ভেঙে ফেলে।

কাচের জানালা পরিষ্কারেও কোক অতুলনীয়। তবে এক্ষেত্রে সামান্য সাইট্রিক এডিস যোগ করতে হবে। কাচের ওপর কোক আর সাইট্রিক এসিডের দ্রবণ ফেলে ঘষুন। তারপর ভেজা ন্যাকড়া দিয়ে তা মুছে নিন। না মুছলে কোকের চিনির অবশেষ কাচের ওপর ভেসে উঠতে পারে। গাড়ির কাচ পরিষ্কারে বাজারে প্রচলিত যে কোনো ক্লিনারের চেয়ে এটা বেশ সস্তা ও কার্যকর।

বেড়াল জাতীয় উদ পরিবারের স্তন্যপায়ী প্রাণি ভয় পেলে একটা উৎকট বাজে গন্ধ বাতাসে ছড়িয়ে দেয়। এ বিশ্রী গন্ধ তাড়াতে বালতির পানিতে সামান্য ডিটারজেন্ট আর কোকের দ্রবণ বানিয়ে রেখে দিলে দ্রবণটি বাজে গন্ধ শুষে নেয়।

কোকাকোলা একটি দুর্দান্ত পেইনকিলার। জেলিফিশ হুল ফুটালে ভয়ানক ব্যথা লাগে। আক্রান্ত স্থানে কোক ছিটিয়ে দিন। ব্যথা থাকবে না।

রান্নার পাত্রের তলায় মাঝে মাঝে কালো দাগ পড়ে। এক লিটার কোক ঢেলে হালকা আঁচে এক ঘণ্টা তাপ দিন। তারপর ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। দাগ থাকবে না।

কাপড়ে লাগা গ্রিজের দাগ তোলা বেশ কঠিন এবং এ দাগ তোলার রিমুভার বেশ দামি। সহজ সমাধান হচ্ছে, এক ক্যান কোকের সঙ্গে সাধারণ ডিটারজেন্ট মেশান। এ মিশ্রণ ওয়াশিং মেসিনে ঢেলে সাধারণভাবে কাপড় কাচুন। কাপড়ে রক্ত লাগলে অথবা কাপড় থেকে বাজে গন্ধ বের হলেও একই তরিকা কার্যকর।

বাগান থেকে শামুক, শামুকের গুড়িসহ অন্যান্য অনাকাঙ্ক্ষিত জীব তাড়াতে কোক খুবই কার্যকর। প্লেটে সামান্য কোক ঢেলে তা বাগানে রেখে আসুন। এসব উপদ্রব থাকবে না। গাছের ডাল আর পাতা থেকে বিভিন্ন ভাইরাস আর ছত্রাক তাড়াতেও কোক স্প্রে করে দিন।

কোক দিয়ে বিস্ফোরকও তৈরি করা যায়। এক গ্লাস কোকে একটি মেন্টোস চকলেট ঢেলে দিন। অস্বাভাবিক বুদ বুদ দেখা যাবে। এটার নাম দেয়া হয়েছে ডায়েট কোক-মেন্টোস আগ্নেয়গিরি।

ওএস/ইসি

 

 

আরও পড়ুন

আরও