করোনা সংক্রামণ রোধে মাস্ক পরিষ্কার রাখুন
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ৬ জুলাই ২০২০ | ২২ আষাঢ় ১৪২৭

করোনা সংক্রামণ রোধে মাস্ক পরিষ্কার রাখুন

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

করোনা সংক্রামণ রোধে মাস্ক পরিষ্কার রাখুন
করোনা যেহেতু একজনের হাঁচি, কাশির মাধ্যমে অন্য জনের মধ্যে ছড়ায় তাই হাত ধোয়ার সাথে সাথে সারা বিশ্বেই করোনা প্রতিরোধে মাস্কের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাইরে বের হলে, এমনকি ঘরেও মাস্ক পরার ব্যাপারে পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এ কারণে বেশিরভাগ দেশে লকডাউন উঠে গেলেও মাস্ক পরার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে মাস্ক পরা যেমন জরুরি, এটি পরিষ্কার করাটাও কিন্তু ততটাই জরুরি। কিন্তু অনেকেই সেটা করছেন না। এতে আপনি সাবধান আছেন বলেই সুরক্ষিত আছেন, এটা মনে করার কোনো কারণ নেই।

আসুন তাহলে এই গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটি পরিষ্কার রাখার কিছু নিয়ম শিখে নেই।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সার্জিক্যাল মাস্ক একবার পরেই ফেলে দিতে হয়। তাদের মতে, সুতির কাপড় বা টেরিলিন কাপড়ের তৈরি মাস্ক সাধারণ মানুষের জন্য বেশি কার্যকর। তবে চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের এন৯৫ মাস্ক ব্যবহার করা উচিত। তবে চাইলে তারাও সুতির বা টেরিলিন কাপড়ের তৈরি মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। তবে এ ধরনের মাস্ক ব্যবহারের পর প্রতিদিনই তা ধুয়ে দেয়া জরুরি।

মাস্ক পরিষ্কার করবেন যেভাবে-

১. মাস্কে সরাসরি হাত দেবেন না। ঘরে ফেরার পর মাস্কের দড়ি, ফিতে বা রাবার ব্যান্ডের অংশ ধরে খুলুন।

২. সাবান বা ডিটারজেন্ট মেশানো পানিতে মাস্কটি ভিজিয়ে ধুতে পারেন।

৩. মাস্ক ধোয়ার পর জীবাণুনাশক লিকুইডে ডুবিয়ে ছাদের কোনো আংটায় বা বারান্দার দড়িতে ঝুলিয়ে রাখুন। কড়া রোদে শুকাতে পারলে ভালো হয়। কারণ রোদে ভাইরাসের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা কমে।

৪. গরম পানিতে মাস্ক ফুটিয়ে নিতে পারেন। এতে জীবাণুমুক্ত হবে মাস্ক।

৫. শুকানোর সময় মাস্কের মূল অংশে যেন ধুলোবালি লেগে না থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন।

৬. শুকানোর পর মাস্কটি ইস্ত্রি করে নিলেই সেটি আবার ব্যবহারের উপযোগী হবে।

৭. ভালোভাবে না শুকিয়ে ভেজা মাস্ক পরা ঠিক নয়। এতে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

৮. পরিবারে সবার মাস্ক যেন আলাদা থাকে এবং পরিষ্কার করার সময়েও সবার মাস্ক আলাদাভাবেই পরিষ্কার করুন। শুকানোর সময়ও আলাদা রাখুন।

সুস্থ থাকার জন্য শুধু আপনার না, আপনার পরিবারের সবার মাস্কের দিকে খেয়াল রাখুন।

ইসি/

 

: আরও পড়ুন

আরও