পরিবর্তনে সংবাদ প্রকাশের পর প্রতিবন্ধী জেলে ফজলুর পাশে মাসুদ সাঈদী
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ৮ আগস্ট ২০২০ | ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

পরিবর্তনে সংবাদ প্রকাশের পর প্রতিবন্ধী জেলে ফজলুর পাশে মাসুদ সাঈদী

জে আই লাভলু, পিরোজপুর ৫:১০ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৪, ২০২০

পরিবর্তনে সংবাদ প্রকাশের পর প্রতিবন্ধী জেলে ফজলুর পাশে মাসুদ সাঈদী
প্রতিবন্ধী ফজলুল হক হাওলাদার। ডাক নাম ফজলু মিয়া। বয়স তার ৫৫ পেরিয়ে ষাটের কাছাকাছি।

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার বলেশ্বর নদের পাড়ে একটি ঝুপড়ি ঘরে বসবাস তার। স্ত্রী, পাঁচ মেয়ে আর দুই ছেলে নিয়েই ফজলু মিয়ার জীবন সংসার।

তবে ষোল বছর আগে গ্যাংগিন রোগে বাঁ পায়ে পচন ধরে ফজলু মিয়ার। আর্থিক অভাব অনটনের কারণে সে সময় নিজের ভাল চিকিৎসা করাতে না পারায় কেটে ফেলতে হয় তার পা টি।

সেই থেকেই এক পা হারানো এ মানুষটিকে চলতে হচ্ছে ক্রাচে ভর করে। আর এ অবস্থায় একে একে কেটে গেছে তার প্রায় ষোলটি বছর। জীবিকার টানে নিজের পুরোনো বাড়ি ছেড়ে স্ত্রী আলেয়া বেগমকে (৪০) নিয়েই বছর তিনেক আগে নদীর পাড়ে কোনোমতে বসতি গড়েছেন ফজলু মিয়া।

এদিকে সন্তানরা অভাবগ্রস্ত থাকায় নিজের ভরণপোষণ নিয়ে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ায় কোন উপায়ান্ত না পেয়ে সংসার চালাতে তিন বছর আগে ফজলু মিয়া নিজেই বেছে নেন নদীতে মাছ ধরার পেশা।

তাই কচা আর বলেশ্বর নদীর মোহনায় প্রতিদিন জাল ফেলে জীবিকা নির্বাহ করে চলে তার এ সংসার। কিন্তু দীর্ঘ ষোল বছর আগে পা হারিয়ে তার কপালে এখন পর্যন্ত জোটেনি প্রতিবন্ধী ভাতা। জীবিকার প্রয়োজনে জনবিচ্ছিন্ন এলাকায় বসতি গড়ায় সরকারি-বেসরকারি সাহায্য সহযোগিতা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছেন এ মানুষটি।

আর তার এই দুরবস্থা নিয়ে গত ২৮ জুন দেশের শীর্ষ স্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল পরিবর্তন ডটকম- এ 'এক পা নিয়ে নদীতে মাছ শিকার করে চলে প্রতিবন্ধী জেলে ফজলুর সংসার' এই শিরোনামে নজরে পড়ে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইন্দুরকানী নাগরিক ফোরামের সভাপতি মাসুদ সাঈদীসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের।

এরপর মাসুদ সাঈদীসহ অনেকে প্রতিশ্রুতি দেন এই অসহায় মানুষটির পাশে দাঁড়ানোর।

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী আজ শনিবার দুপুরে তিনি তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে অসহায় ফজলুল হকের জন্য একটি হুইল চেয়ার প্রদান করেন এবং তার ঝুঁপড়ি ঘরটি ভেঙে নতুন একটি টিনের ঘর তৈরি করার সকল ব্যবস্থা করে দেন।

এসময় ইন্দুরকানী প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আহসানুল হক ছগির, সাংবাদিক জে আই লাভলু, সাংবাদিক মারুফুল ইসলাম, সাবেক ইউপি সদস্য আনিচুর রহমান, ইন্দুরকানী নাগরিক ফোরামের প্রতিনিধি হাফিজুর রহমান, মামুন, আসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবন্ধী ফজলুল হক আবেগ আপ্লুত কন্ঠে বলেন, মোর এই অসহায় অবস্থা দেইখ্যা উনি যে সাহায্য সহযোগিতা করছেন হ্যা মুই জীবনেও ভুলমুনা।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাসুদ সাঈদী বলেন, গণমাধ্যমে বৃদ্ধ ঔ প্রতিবন্ধী জেলের অসহায় অবস্থার সংবাদ দেখে বিষয়টি আমার নজরে আসে। তবে সামান্যতম হলেও এই অসহায় মানুষটির পাশে দাঁড়াতে পেরে আমার ভালো লাগছে।

এ ব্যাপারে ইন্দুরকানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মাদ আল মুজাহিদ বলেন, অসহায় ওই জেলে এখন আবেদন করলে তাকে প্রতিবন্ধী ভাতার ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।

এসবি 

আরও পড়ুন...

নদীতে মাছ শিকার করে চলে পা হারানো ফজলু মিয়ার সংসার

 

: আরও পড়ুন

আরও