‘লাশ থাকুক না থাকুক চন্দ্রিমায় কবর থাকতে পারে না’
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১৩ কার্তিক ১৪২৮

‘লাশ থাকুক না থাকুক চন্দ্রিমায় কবর থাকতে পারে না’

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:১৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১

‘লাশ থাকুক না থাকুক চন্দ্রিমায় কবর থাকতে পারে না’
লাশ থাকুক আর না থাকুক চন্দ্রিমা উদ্যানে কোনো কবর থাকতে পারে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।
আজ শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত ‘ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা: সমস্যা ও প্রতিকার’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, নকশা বর্হিভূতভাবে জিয়াউর রহমানের কবর চন্দ্রিমা উদ্যানে স্থাপন করা হয়েছে। চন্দ্রিমা উদ্যানে লাশ থাকুক অথবা নাই থাকুক সেখানে কোনো কবর থাকতে পারে না।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এদেশের স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। বাংলার মানুষ মুক্তি পেয়েছে। তার কবর থাকবে টুঙ্গিপাড়ায় আর পাকিস্তানিদের দোসর যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে, ৩০ লাখ মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা ও ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রম নষ্ট করেছে। তাদের কবর জাতীয় সংসদসহ গৌরবোজ্জ্বল জায়গায় থাকতে পারে না। এগুলো আমাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ করে।

মন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান জাতির পিতার খুনি একথা ধ্রুব সত্য। তাকে খুনি প্রমাণ করার জন্য সব ধরনের দলিলাদি রয়েছে। রাষ্ট্রপতিকে নিরাপত্তা প্রদানের দায়িত্ব নিশ্চিত করার কথা ছিলো জিয়াউর রহমানের। কিন্তু তিনি তা না করে হত্যার সব ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করে পরিকল্পিতভাবে জাতির পিতাকে হত্যা করে।

জিয়াউর রহমানকে স্বাধীনতার ঘোষক বলা অবান্তর উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়ার অধিকার বাঙালি জাতি একমাত্র বঙ্গবন্ধুকেই দিয়েছে। আর কেউ স্বাধীনতার ঘোষক হতে পারে না, সুযোগও নেই। মুখে ঘোষণা করলেই স্বাধীনতার ঘোষক হওয়া যায় না।

এ সময় তিনি আরও বলেন, অভিজাত এলাকার বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও হোল্ডিং ট্যাক্স অবশ্যই বৃদ্ধি করা উচিত। গুলশান ও যাত্রাবাড়ীর ট্যাক্স কখনই এক হতে পারে না।

এসবি
 

আরও পড়ুন

আরও