অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে স্বল্পমেয়াদী অনুমতিপত্র চালুর উদ্যোগ
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ মে ২০২২ | ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

>

অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে স্বল্পমেয়াদী অনুমতিপত্র চালুর উদ্যোগ

নওগাঁ প্রতিনিধি ৫:১৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১০, ২০২২

অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে স্বল্পমেয়াদী অনুমতিপত্র চালুর উদ্যোগ
সীমান্ত হত্যা ও অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে নতুন-নতুন উদ্যোগ নিচ্ছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। ভারত সীমান্ত এলাকার মানুষদের জন্য পাসপোর্ট-ভিসার স্থলে স্বল্পমেয়াদী অনুমতিপত্র চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ শাফিনুল ইসলাম বলেছেন, সীমান্ত এলাকার মানুষদের জন্য অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে স্বল্পমেয়াদী অনুমতিপত্র চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে এমন একটি প্রস্তাবনা বিএসএফ ও ভারত সরকারের কাছে দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ-ভারতের যেসব এলাকায় সীমান্ত রয়েছে এদের অনেক আত্বীয় দুই পাড়েই বসবাস করে।

ফলে বিভিন্ন পালা উৎসবে এদের যাতায়াত আদিকাল থেকে হয়ে আসছে। এখন সীমানা হওয়ায় পাসপোর্ট ও ভিসার প্রয়োজন হয়। ফলে ভিসা ছাড়া কেউ ভারতে গেলে তখনই সেটা অবৈধ অনুপ্রবেশ হয়। এজন্য বিষয়টি নিয়ে বিজিবি যাচাই-বাছাই করছে। যদি এই স্বল্পমেয়াদী পাসপোর্ট ভিসা চালু করা হয় তাহলে অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধ করা অনেকাংশেই সম্ভব হবে। 

সোমবার দুপুরে নওগাঁর মহাদেবপুরে বিজিবির শীতকালীন মহড়া পরিদর্শনে গিয়ে এসব কথা বলেন বিজিবির মহাপরিচালক।

তিনি আরো বলেন, যারা সৎ উদ্দেশ্য নিয়ে আত্বীয়-স্বজন ও বিভিন্ন পালা উৎসবের জন্য ভারতে প্রবেশ করে তারা দিনের বেলায় প্রবেশ করে। ফলে এসব মানুষ কোন বিপদে পড়ে না। কিন্তু যারা অসৎ উদ্দেশ্যে নিয়ে রাতের আঁধারে প্রবেশ করে থাকে তারাই বেশি আক্রান্ত হয়। কিন্তু সেই বিষয়টিও যেন না হয় সেই বিষয়ে আমরা সচেতন আছি ও চেষ্টা করছি। যে কোনো যুদ্ধ পরিস্থিতিতে বিজিবি দেশরক্ষার দায়িত্ব পালনে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবে। পাশাপাশি বাড়বে বিজিবি সদস্যদের মনোবল ও দক্ষতা। 

সীমান্তরক্ষী বাহিনী যুদ্ধকালীন সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে দেশ রক্ষার লড়াই করবে। এ নির্দেশনা কীভাবে বাস্তবায়িত হবে তা হাতে কলমে শিখছেন। যৌথ প্রশিক্ষণ পরিদর্শন করেন প্রস্তুতির নানা কৌশল দেয়ার পাশাপাশি প্রশিক্ষণার্থীদের সুখ দুঃখের খোঁজ খবরও নেন বিজিবি মহাপরিচালক।

তিনি আরো বলেন, সেনাবাহিনীর সঙ্গে বিজিবির সমন্বয়ের প্রয়োজন। সেটাই এ প্রশিক্ষের মূল উদ্দেশ্য। সব প্রশিক্ষণের ব্যাপারেই আমরা জোর দিচ্ছি। এ সময় রংপুর অঞ্চলের সেক্টর কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নওরোজ, রাজশাহীর সেক্টর কমান্ডার আনোয়ার লতিফ, নওগাঁ-১৬ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল কবির, ১৪ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল নাদিম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এএইচএ
 

আরও পড়ুন

আরও
               
         
close