ম্যাজিস্ট্রেটকে ফাঁকি দিতে কনের সাজে ভাবি!
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২ | ১২ মাঘ ১৪২৮

ম্যাজিস্ট্রেটকে ফাঁকি দিতে কনের সাজে ভাবি!

দিনাজপুর প্রতিনিধি ১২:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৩, ২০২১

ম্যাজিস্ট্রেটকে ফাঁকি দিতে কনের সাজে ভাবি!
দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় বাল্যবিয়ে দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে কাজীকে কারাদণ্ড ও বরকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় বাল্যবিয়ে দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে কাজীকে কারাদণ্ড ও বরকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে বিরামপুর উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের ন্যাটাশন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

কাজী রেহান রেজা বিয়ে পড়া শুরু করবেন ঠিক সেই মুহূর্তে বাড়ির বাহির থেকে শোনা গেল, বিয়ে বাড়িতে ম্যাজিস্ট্রেট আসছেন। এই খবরে কনের (১৪) ভাবি নিজেই কনের আসরে বসলেন। কিন্তু বেরসিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিয়ের আসরের এই সাজানো নাটক ধরতে পেরে কাজীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ছয় মাসের কারাদণ্ড ও বর রুবেল হোসেনকে (৩০) দুই হাজার টাকা জরিমানা করেন

বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিমল কুমার এই অভিযান পরিচালনা করেন।

ইউএনও পরিমল কুমার বলেন, ‘স্থানীয়ভাবে আমি খবর পাই যে ন্যাটাশন গ্রামে শরিফের কন্যা ও ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী বৃষ্টি আক্তারের বাল্যবিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আমি তাৎক্ষণিক পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে অভিযান চালাই। কিন্তু অভিযানের খবর পেয়ে বিয়ে বাড়ির সকলে পালিয়ে যায়।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের বোকা বানানোর জন্য নাবালিকা মেয়েকে সরিয়ে তার ভাবি বউ সেজে বসে ছিল। অভিযানের পূর্বেই কাজী নিকাহ রেজিস্ট্রারে খসড়া লেখা শেষ করেছিল।’

ইউএনও বলেন, ‘পরে আমরা সেখানে কাজীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড ও বরের দুই হাজার টাকা জরিমানা করি। ওই ছাত্রীকে ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না এমন স্বীকারোক্তিতে মুচলেকা নিয়ে কনের ভাবি ও পরিবারের অন্যান্যদের ছেড়ে দেওয়া হয়’।

এএইচএ
 

আরও পড়ুন

আরও