আ’লীগ হেরে গেলে তারাও কারচুপির অভিযোগ তুলতো: সিইসি
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১ | ১৫ মাঘ ১৪২৭

আ’লীগ হেরে গেলে তারাও কারচুপির অভিযোগ তুলতো: সিইসি

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:০৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১

আ’লীগ হেরে গেলে তারাও কারচুপির অভিযোগ তুলতো: সিইসি
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা বলেছেন, বিশ্বব্যাপী নির্বাচন পরিচালনার ব্যাপারে কারচুপির অভিযোগ থাকেই। হেরে গিয়ে আমেরিকাতেও ভোট কারচুপির অভিযোগ তোলা হয়েছে। নির্বাচনে হেরে গেলে বলা হয় কারচুপি হয়েছে। এটা এ দেশের সংস্কৃতি। আওয়ামী লীগ হেরে গেলে তারাও কারচুপির অভিযোগ তুলতো।

ঢাকার সাভারে পৌর নির্বাচন উপলক্ষে আয়োজিত আইনশৃঙ্খলাবিষয়ক সমন্বয় সভা শেষে বুধবার দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে এ সভা হয়।

বিরোধী দলকে ইসির ওপর আস্থা রাখার আহ্বান জানিয়ে সিইসি দাবি করেন যে দেশে চলমান পৌরসভা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

যে কোনো নির্বাচনে বিএনপিকে আস্থায় আনার চেষ্টা করা হয় জানিয়ে নূরুল হুদা বলেন, শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্বের যে কোনো দেশে সাধারণ নির্বাচনে যে দল হেরে যায় তারা কারচুপির অভিযোগ তোলে।

বর্তমানে বাংলাদেশে কোনো নির্বাচনে অনিয়ম হচ্ছে না বলে দাবি করেন তিনি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরও বলেন, পৌরসভা নির্বাচনের আগে সাভারে কোনো বহিরাগত মানুষ থাকতে পারবেন না। এমনকি কোনো ব্যক্তি অস্ত্র নিয়ে কোথাও থাকতে পারবেন না।

নির্বাচনের পরিবেশ কেউ অশান্ত করতে চাইলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করে দিয়ে তিনি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কশিনের প্রতি মানুষের আস্থা রয়েছে। এ জন্য ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে গিয়ে সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পারছেন।

ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট কারচুপি হয় না বলে দাবি তার।

সব শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ১৬ জানুয়ারি সাভারসহ ৬১টি পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। গত ২৮ ডিসেম্বরের নির্বাচনেও আমলে নেওয়ার মতো কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সমন্বয় সভায় নির্বাচন কমিশন সচিব মোহাম্মদ আলমগীর, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার খলিলুর রহমান, ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি হাবিবুর রহমানসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

ওএস/এসবি

 

আরও পড়ুন

আরও