সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের বয়সে ছাড় দিচ্ছে সরকার
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৮ আশ্বিন ১৪২৭

সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের বয়সে ছাড় দিচ্ছে সরকার

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:৪৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০

সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের বয়সে ছাড় দিচ্ছে সরকার
করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে সরকারি চাকরিপ্রার্থীদের বয়সের ক্ষেত্রে ছাড় দিতে যাচ্ছে সরকার।

গত ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে তাদের সরকারি চাকরিতে আবেদনের সুযোগ দিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের এই সুযোগ দেওয়া হচ্ছে বলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন মঙ্গলবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

এর আগে তিনি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে যাদের সরকারি চাকরির বয়স পার হয়েছে, তাদের বিষয়টি বিবেচনা করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব পাঠাবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান, মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। গত ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে তাদের সরকারি চাকরিতে আবদন করার সুযোগ দিতে বলেছেন সরকারপ্রধান।

গত ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছর পার হয়েছে তাদের কত মাস পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে আবেদনের সুযোগ দেওয়া হবে, তা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সার্কুলারের মাধ্যমে নির্ধারণ করে দেবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর বিস্তার বাড়তে থাকায় গত ২৬ মার্চ থেকে টানা ৬৬ দিন সাধারণ ছুটির মধ্যে কোনো নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেনি সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। তার আগে গত ডিসেম্বর থেকে চাকরিতে নিয়োগের নতুন কোনো বিজ্ঞপ্তি দেয়নি কমিশন।

তবে ৩০ মে সাধারণ ছুটি শেষে জুনের প্রথম সপ্তাহে নন-ক্যাডারে বেশ কয়েকটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে পিএসসি। সেখানে বয়সের সর্বোচ্চ সীমা ৩০ বছর নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে গত ১ জুন পর্যন্ত।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, চাকরিতে প্রবেশের নির্ধারিত বয়সসীমা বাড়ানোর সুযোগ নেই। ২৬ মার্চ থেকে ৩১ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ছিল। ওই সময়ে যে পরীক্ষাগুলো হওয়ার কথা ছিল, ওগুলো তো হয়নি। যেগুলোর বিজ্ঞাপন আগে দেওয়া হয়েছিল, সেসব ক্ষেত্রে তো কোনো সমস্যা নাই, কারণ বিজ্ঞাপন অনুযায়ী সেগুলো হবে।

তিনি বলেন, ২৬ মার্চ থেকে আগস্ট পর্যন্ত যে বিজ্ঞপ্তিগুলো দেওয়ার কথা ছিল, কিন্তু দেওয়া হয়নি, সেগুলো আগামীতে যখন দেওয়া হবে তখন বয়স উল্লেখ করবে ২৫ মার্চে ৩০ বছর হতে হবে। তাহলেই বঞ্চিতরা সুযোগ পাবে। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে আমরা এ বিষয়ে সম্মতি নিয়েছি, উনি আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি চাকরির বয়স ৩০ বছরই থাকবে। যেহেতু করোনাভাইরাসে বিভিন্ন পেশাজীবী মানুষকে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে, এখানেও এভাবে চাকরিপ্রত্যাশীদের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হবে। আর বিসিএস প্রতি বছরই নভেম্বরে হয়। এখন যেহেতু নভেম্বর আসেনি, তাই সেখানে তো কোনো সমস্যা নেই।

ওএস/এসবি

 

আরও পড়ুন

আরও