শিথিল হলো রাতে বের হওয়ার বিধি-নিষেধ
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

শিথিল হলো রাতে বের হওয়ার বিধি-নিষেধ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১২:২৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ০১, ২০২০

শিথিল হলো রাতে বের হওয়ার বিধি-নিষেধ
কোভিড-১৯ সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সীমিত পরিসরে যেভাবে অফিস চলছে, তা আগামী ৩ আগস্ট পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। এছাড়া দোকানপাট, হাটবাজার ও শপিং মল খোলা রাখার সময় বাড়ানোর পাশাপাশি রাতে বের হওয়ার ক্ষেত্রেও শিথিলতা আনা হয়েছে।

এতদিন রাত ৮টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়ায় নিষেধাজ্ঞা থাকলেও, এখন সেই বিধিনিষেধ থাকবে রাত ১০টা থেকে ভোর পাঁচটা পর্যন্ত।

মঙ্গলবার রাতে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

আদেশে বলা হয়, বুধবার থেকে রাত ১০টা থেকে ভোর পাঁচটা পর্যন্ত অতি জরুরি প্রয়োজন ( প্রয়োজনীয় কেনা-বেচা, যাতায়াত, ওষুধ কেনা, চিকিৎসা সেবা, মৃত দেহ দাফন বা সৎকার ইত্যাদি) ছাড়া বাসস্থানের বাইরে আসা যাবে না। আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আদেশে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস চলার কথাও আছে। এ ছাড়া বেশির ভাগ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা আগের মতোই রয়েছে।

এছাড়া সকাল ১০টা থেকে রাত ৭টা পর্যন্ত দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখা যাবে। এতদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দোকানপাট খোলা রাখা যেত।

হাটবাজার ও শপিংমল খোলা রাখার বিষয়ে আদেশে বলা হয়, হাটবাজার, দোকান-পাটে ক্রয় বিক্রয়কালে পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে। শপিংমলের প্রবেশমুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ ও স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। শপিংমলে আগত যানবাহনগুলোকে অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখতে হবে। হাটবাজার, দোকানপাট এবং শপিংমলগুলো সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে অবশ্যই বন্ধ করতে হবে।

সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, বেসরকারি অফিস, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিল্প কারখানা ও সেবা প্রতিষ্ঠানগুলো স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ জারিকৃত স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে খোলা থাকবে।

এছাড়া গণপরিবহনসহ সব ধরণের যান স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ জারিকৃত স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালন করে চলাচল করবে বলেও আদেশে বলা হয়েছে।

এই নিয়ন্ত্রণকালে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখা যাবে না জানিয়ে আদেশে বলা হয়েছে, তবে অনলাইন কোর্স বা ডিস্টেন্স লার্নিং অব্যাহত থাকবে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো প্রশাসনিক কার্যাবলি চালাতে পারবে।

উক্ত সময়ে সভা-সমাবেশ সভা-সমাবেশ, গণজমায়েত ও অনুষ্ঠান আয়োজন বন্ধ থাকবে। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা প্রতিপালন করে মসজিদগুলোতে জামাতে নামাজ আদায় এবং অন্যান্য ধর্মীয় উপাসানালয়ে প্রার্থনা করা যাবে।

ওএস/পিএসএস

 

: আরও পড়ুন

আরও