করোনা আতঙ্কে কাদের মাস্ক পরা জরুরি?
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০ | ২৪ চৈত্র ১৪২৬

করোনা আতঙ্কে কাদের মাস্ক পরা জরুরি?

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০২০

করোনা আতঙ্কে কাদের মাস্ক পরা জরুরি?

করোনাভাইরাস এখনো পর্যন্ত এই ভাইরাসের কোনো ওষুধ বা টিকাও আবিষ্কার হয়েনি। তাই সারা বিশ্ব এখনো ফেস মাস্ক আর হ্যান্ড স্যানিটাইজারের উপরেই নির্ভরশীল। এই ভাইরাসের মোকাবিলা করার জন্য ফেস মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।  একদিকে যেমন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তার সংখ্যা, তেমনই পাল্লা দিয়ে কমছে বাজারে উপলব্ধ মাস্কের সংখ্যা। ফলে দামও বাড়ছে মাস্কের। এই পরিস্থিতিতে করোনাভাইরাস ঠেকাতে কাদের এবং ঠিক কোন ধরনের মাস্ক পরা জরুরি?

সকলেরই কী মাস্ক পরা জরুরি?

যাদের খুব অল্পতেই ঠাণ্ডা লেগে যায়, যারা মাঝে মধ্যেই সর্দি-কাশিতে ভোগেন, তাদের অবশ্যই ফেস মাস্ক পরা উচিৎ। কারণ, তাদের হাঁচি-কাশি থেকেই ছড়িয়ে পড়তে পারে যেকোনো ধরনের ভাইরাস বা ব্যাক্টেরিয়া। হাঁচি-কাশি থেকেই ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনাভাইরাসও। তাই তারা যদি মাস্ক ব্যবহার করেন তাহলে ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমে যাবে।

আর একটা বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। যে ব্যক্তি কোনো রকম সংক্রমণের ফলে হাঁচি-কাশি দিচ্ছেন, তিনি যেমন ফেস মাস্ক ব্যবহার করবেন, তেমনই যে বা যারা ওই ব্যক্তির কাছাকাছি রয়েছেন তাদেরও ফেস মাস্ক ব্যবহার উচিৎ। ব্রঙ্কাইটিশ, হাঁপানির মতো সমস্যা যাদের রয়েছে, যাদের জ্বর, সর্দি-কাশি হয়েছে তাদের অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করা উচিৎ। মাস্ক না থাকলে অন্তত পরিষ্কার কাচা রুমাল বা কাপড়ে নাক-মুখ ঢাকুন। এছাড়া, স্বাস্থ্যকর্মী, চিকিৎসক, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এবং সন্দেহভাজন— প্রত্যেকরই ফেস মাস্ক ব্যবহার উচিৎ।

কোন ধরনের ফেস মাস্ক পরবেন?

সাধারণ সার্জিক্যাল মাস্ক পরে শুধু করোনা কেনো, কোনো ভাইরাস বা জীবাণুর আক্রমণই ঠেকানো সম্ভব নয়। কারণ, ওই মাস্ক পরলেও ভাইরাস বা জীবাণুরা আমাদের শরীরে ঢুকে পড়ার পর্যাপ্ত জায়গা পেয়ে যায়। তাই যে কোনো দ্বিস্তর বিশিষ্ট কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করা যেতেই পারে। নাক-মুখ ঢেকেও হাঁচি-কাশি চলতে থাকলে ওই মাস্ক বেশিক্ষণ পরে না থাকাই ভালো। আগাম সতর্কতা হিসাবে মাস্ক পরার আগে ভালো করে স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। বাতিল করা মাস্ক যেখানে সেখানে ফেলা যাবে না। খোলা জায়গায় বাতিল করা মাস্ক ফেললে সংক্রমণের আশঙ্কায় থেকেই যায়। তাই উপযুক্ত সতর্কতা আর পরিচ্ছন্নতায় করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে নিজেকে সহজেই দূরে রাখা সম্ভব।

ইসি/

 

স্বাস্থ্য: আরও পড়ুন

আরও