স্বর্ণ লুট: মাদক নিয়ন্ত্রণের কর্মকর্তাসহ ৫ জন কারাগারে
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ১ মার্চ ২০২১ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

স্বর্ণ লুট: মাদক নিয়ন্ত্রণের কর্মকর্তাসহ ৫ জন কারাগারে

আদালত প্রতিবেদক ৬:০৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২১

স্বর্ণ লুট: মাদক নিয়ন্ত্রণের কর্মকর্তাসহ ৫ জন কারাগারে
ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ৯০ ভরি স্বর্ণ লুটের অভিযোগে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক এস এম সাকিব হোসেনসহ পাঁচ জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

শনিবার বিকালে ঢাকার মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস এই আদেশ দেন।

আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন জানান, আজ ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামি পাঁচ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড শেষে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে এ মামলায় গত মঙ্গলবার সন্ধায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক এসএম সাকিব হোসেন, সোর্স হারুন ও সিপাহী আমিনুলের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

গত সোমবার জীপন পাল ও রতন কুমার দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেন। ৯০ ভরি স্বর্ণ ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে গত ১২ জানুয়ারি পুরান ঢাকার জিন্দাবাহার লেনের এক ব্যবসায়ী কোতওয়ালী থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ৭ জানুয়ারি ডিবি পুলিশ পরিচয়ে কয়েক ব্যক্তি বাদীকে তুলে নিয়ে ৯০ ভরি স্বর্ণ লুট করে নিয়ে যায়। অজ্ঞাত ওই ব্যক্তিরা নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয়।

এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হলে কোতওয়ালী থানা পুলিশ প্রথমে ভুক্তভোগী ওই ব্যক্তির দুই কর্মচারীকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক সাকিব হোসেনের নাম জানালে সিপাহী আমিনুল ও সোর্স হারুনসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ মামলায় গ্রেফতার আট জনের মধ্যে তিন জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। অপর পাঁচ আসামি বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে রয়েছে। সহকারী পরিচালক সাকিব হোসেন মুন্সীগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

এমআই/এসবি

আরও পড়ুন...
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ছিনতাই মামলা, চালকের স্বীকারোক্তি

 

আরও পড়ুন

আরও