ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের দায়ে মজনুর যাবজ্জীবন
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০ | ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের দায়ে মজনুর যাবজ্জীবন

আদালত প্রতিবেদক ৩:২০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০২০

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের দায়ে মজনুর যাবজ্জীবন
রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণেরর দায়ে একমাত্র আসামী মজনুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এছাড়া, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক বেগম মোসা. কামরুন্নাহার রায় ঘোষণা করেন।

আসামি মজনুর এ দণ্ডে সন্তোষ প্রকাশ করছেন সংশ্লিষ্ট আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আফরোজা ফারহানা আহমেদ (অরেঞ্জ)।

সরকার থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত মজনুর আইনজীবী রবিউল ইসলাম রবি বলেন, রায়ে তারা সংক্ষুদ্ধ, উচ্চ আদালতে রায়ের বিরুদ্ধে আপীল করবেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার উভয় পক্ষের যুক্তিতর্কের শেষে বেগম মোসা. কামরুন্নাহারের আদালত রায়ের এ তারিখ ধার্য করেন। গত ৫ নভেম্বর মামলাটিতে সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়। মামলায় ২৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ২০ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।

গত ৫ জানুয়ারি কুর্মিটোলায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন মজনু। ওই ঘটনায় ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

গত ৮ জানুয়ারি ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন শেওড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে র‌্যাব মজনুকে গ্রেফতার করে। ৯ জানুয়ারি আদালত মজনুর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ১৬ জানুয়ারি মজনু দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন।

গত ১৬ মার্চ মজনুকে একমাত্র আসামি করে ঢাকা সিএমএম আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আবু সিদ্দিক। ওই দিনই আদালত মামলাটি পরবর্তী বিচারের জন্য নারী ও শিশু দমন ট্রাইব্যুনালে বদলির আদেশ দেন।

এমআই

 

আরও পড়ুন

আরও