২০ মাস পর শারীরিক উপস্থিতিতে সুপ্রিমকোর্টের বিচারকাজ শুরু
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২ | ১২ মাঘ ১৪২৮

২০ মাস পর শারীরিক উপস্থিতিতে সুপ্রিমকোর্টের বিচারকাজ শুরু

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১০:২২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০১, ২০২১

২০ মাস পর শারীরিক উপস্থিতিতে সুপ্রিমকোর্টের বিচারকাজ শুরু
করোনা মহামারির কারণে প্রায় ২০ মাস পর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচার কার্যাক্রম শারীরিক উপস্থিতিতে শুরু হয়েছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকাল নয়টার দিকে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে এ বিচারকাজ শুরু হয়। 

২০১৯ সালের মার্চে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেওয়ায় সরকার ‘সাধারণ ছুটি’ ঘোষণা করে। সেই অনুসারে আদালতেও সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। তার আগে সশরীরে সর্বশেষ আপিল বিভাগ বসেছিল ১২ মার্চ।

এরপর একই বছরের মে মাসে অধ্যাদেশ জারি করা হলে ভার্চুয়াল কোর্ট চালু হয়। পরে ভাইরাসের প্রকোপ কমতে থাকলে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিম্ন আদালতে পর্যায়ক্রমে শারীরিক উপস্থিতিতে কার্যক্রম চালু করা হয়। এরপর ভার্চুয়ালের পাশাপাশি হাইকোর্টের কয়েকটি বেঞ্চেও শারীরিক উপস্থিতিতে বিচারিক কার্যক্রম চালু করা হয়। তবে ২০২০ সালের ১২ মার্চের পর শারীরিক উপস্থিতিতে বিচার কার্যক্রমে বসেননি আপিল বিভাগ।  
এ অবস্থায় সুপ্রিম কোর্টে পুরোপুরিভাবে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে বিচারকাজ পরিচালনার জন্য ২৯ নভেম্বর একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

এতে বলা হয়, সিনিয়র বিচারপতিদের সঙ্গে আলোচনাক্রমে প্রধান বিচারপতি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন যে, ১ ডিসেম্বর থেকে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে প্রায় ১ বছর ৮ মাস পর আপিল বিভাগের কার্যক্রম ভার্চুয়ালই চলছে। হাইকোর্ট বিভাগের কোনো কোনো বেঞ্চ শারীরিক উপস্থিতিতে ও কয়েকটি বেঞ্চ ভার্চুয়ালই চলছে। কিন্তু ১ ডিসেম্বর থেকে সব আদালত শারীরিক উপস্থিতিতে চলবে।

এএইচএ
 

আরও পড়ুন

আরও