কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে: আল্লামা শফী 
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে: আল্লামা শফী 

যশোর ব্যুরো ৭:৪৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২০

কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে: আল্লামা শফী 

শনিবার যশোরের ঈদগাহ মাঠে আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়া দড়াটানা মাদরাসার সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন আল্লামা শাহ আহমাদ শফী।

কাদিয়ানীদের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার আহবান জানিয়ে হেফাজতে ইসলামের আমীর শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী বলেছেন, দাবি আদায়ে আমাদের কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। দেশের সাত বিভাগে সম্মেলন করে এদের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু হবে।

এরপর ঢাকায় মহাসমাবেশ করে রাষ্ট্রীয়ভাবে এদের অমুসলিম ঘোষণা করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানানো হবে।

শনিবার যশোরের ঈদগাহ মাঠে আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়া দড়াটানা মাদরাসার ‘২৫ সালা দস্তারবন্দী ইসলামী মহাসম্মেলন’ নামে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

দড়াটানা মাদ্রাসার মুহতামিম ও জেলা ফতোয়া বোর্ডের সভাপতি মুফতি মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে মহাসমাবেশে হেফাজত ইসলামের আমীর বলেন, কাদিয়ানীরা কাফের। তারা ইসলামের নামে সমাজে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এজন্য তাদের রাষ্ট্রীয়ভাবে কাফের ঘোষণা করতে হবে। তা না হলে কঠোর আন্দোলন হবে। 

তিনি আরও বলেন, কাদিয়ানীরা মুসলমান নয়। তাদের সাথে কোনভাবেই আত্মীয়তার সর্ম্পক করা যাবে না। বাংলাদেশে হিন্দু, খিস্ট্রান ও বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারিদের মতো অমুসলিম পরিচয়েই তাদের থাকতে হবে। মুসলমান হিসেবে পরিচয় দিতে পারবে না।

এর আগে তিনি দাওরায়ে হাদীস, ইফতা ও আরবী সাহিত্য সমাপনকারী এবং কুরআনের হাফেজদের মাথায় পাগড়ি পরিয়ে দেন। 

শনিবার যশোরের ঈদগাহ মাঠে আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়া দড়াটানা মাদরাসার সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আল্লামা শফী পাগড়ি প্রদান করেন।

মহাসম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা দারুল উলুম মাদ্রাসার মুহাতামিম মাওলানা মুশতাক আহমদ ও যশোর রেলস্টেশন মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আনোয়ারুল করিম যশোরী।

এছাড়া বক্তব্য দেন দড়াটানা মাদ্রাসার নির্বাহী বোর্ডের সম্পাদক তানভিরুল ইসলাম সোহান ও জেলা ইমাম পরিষদের উপদেষ্টা মাওলনা রফিকুল ইসলাম।

বেলা সাড়ে ১২টার দিকে হেলিকপ্টারযোগে যশোর শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে অবতরণ করেন হেফাজত ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী। এরপর যশোর সার্কিট হাউজে অবস্থান করেন। সেখান থেকে ঈদগাহ ময়দানে মঞ্চে উঠেন।

শুক্রবার সম্মেলনের প্রথম দিন দড়াটানা মাদরাসার মুহতামি মুফতি মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক ছিলেন ঢাকার জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা মামুনুল হক। বিশেষ আলোচক ছিলেন ঢাকার গাউসুল আজম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ুবী।

এদিকে, দড়াটানা মাদরাসায় ইসলামী শিক্ষার সর্বোচ্চ ক্লাস দাওরায়ে হাদীস চালুর ২৫ বছর উপলক্ষে ঈদগাহ ময়দানে দুইদিনের দস্তরবন্দী ইসলামী সম্মেলন নামে সমাবর্তন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পাশাপাশি ঈদগাহ ময়দানের সাথে টাউন হল ময়দানে শনিবার সাংস্কৃতিক সংগঠন পুনশ্চর উদ্যোগে বসন্তবরণ উৎসবেরও আয়োজন করা হয়।

একই সময়ে দুটি অনুষ্ঠান ঘিরে মানুষের মাঝে উৎকণ্ঠাও বিরাজ করে। শহরে দুটি অনুষ্ঠান ঘিরে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয় স্থানীয় প্রশাসন। শহরের ভিতরে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এমএফ/

 

: আরও পড়ুন

আরও