করোনা থেকে বাঁচতে ডায়াবেটিস রোগীদের সতর্কতা (ভিডিও)
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০ | ১৬ কার্তিক ১৪২৭

করোনা থেকে বাঁচতে ডায়াবেটিস রোগীদের সতর্কতা (ভিডিও)

প্রীতম সাহা সুদীপ ২:১৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০

করোনা আতঙ্ক আসলে সবার মধ্যেই আছে। কিন্তু ডায়বেটিস রোগীদের জন্য একটু সমস্যাটা বেশি। ডায়াবেটিস এবং অন্যান্য সমস্যার কারণে এসব রোগীর ইমিউনিটি সিস্টেম অর্থ্যাৎ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটা দুর্বল থাকে।

অন্যান্য সাধারণ যারা আছে, তারা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হলে যতটুকু রোগ প্রতিরোধ অটোমেটিক করতে পারে, সেটি কিন্তু ডায়াবেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে কম থাকে। সেক্ষেত্রে করোনাকালে ডায়াবেটিসের রোগীরা কী কী সতর্কতা অবলম্বন করতে পারেন তা জানালেন হেলদি লিভিং ট্রাস্টের সেক্রেটারী জেনারেল ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ ডা. মোঃ ফজলেরাব্বী খান।

জানতে হবে এবং মানতে হবে:

ফজলেরাব্বী খান বলেন, বেসিকেলি ডায়াবেটিস রোগীদের এই সময় দুইটা জিনিস করতে হবে, জানতে হবে এবং মানতে হবে। সবার প্রথমে ডায়াবেটিস রোগীদের সঠিক তথ্যটা জানতে হবে।তারা যদি এই ধারণা করেন যে করোনা হলেই নিশ্চিত মৃত্যু, তখন মানসিকভাবে তারা দুর্বল হয়ে পড়বেন, এতে তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও কমে আসবে। এতে আরও ঝামেলা বাড়বে, তাই আমরা এসব রোগীদের সব সময় বলি 'বি পজিটিভ'। এ সমস্ত জায়গায় তাদের কিছু তথ্য জানতে হবে এবং তা জেনে তাকে পজিটিভ হতে হবে।

তথ্য গুলো হলো- করোনায় আক্রান্ত হওয়া মানেই মৃত্যু নয়। করোনার ক্ষেত্রে ৮০ থেকে ৮৫ ভাগ মানুষ কিন্তু কোন ধরণের লক্ষ্মণ বা উপসর্গ ছাড়াই আক্রান্ত হয়ে আবার সুস্থও হয়ে যায়। বাকি ১৫% মানুষের মধ্যে মাত্র ১% মানুষকে শুধু হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। আর যেহেতু এখন অনেক চিকিৎসা পদ্ধতি চলে এসেছে, চিকিৎসকদেরও কনফিডেন্স অনেক বেড়েছে সুতরাং ঘাবড়াবার কোনো কারণ নেই। এই পজিটিভ তথ্যটা ডায়াবেটিস রোগীদের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।

করোনাকালে যেসব সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে ডায়াবেটিস রোগীদের:

ডা. রাব্বী বলেন, করোনার যেসব ওয়ার্নিং সাইন আছে, কখন আসলে আমাদের এটা নিয়ে চিন্তিত থাকতে হবে সেই বিষয়গুলোও তাদের বুঝতে হবে। যেমন যেহেতু এটা আমাদের ফুসফুসকে আক্রান্ত করে, সেক্ষেত্রে প্রথমে যে সমস্যাগুলো হয়, শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়, বুকের মধ্যে একটা চাপা চাপ অনুভূত হয় এবং ঠোট কিংবা মুখ নীলাভ হয়ে যায়। এগুলো কিন্তু ওয়ার্নিং সাইন। শুধুমাত্র এগুলো হলেই চিকিৎসকের কাছে অথবা হাসপাতালে যেতে হবে। তার তখন অক্সিজেন দরকার, অক্সিজেন দিতে হবে।

অন্যদের মতই ডায়াবেটিস রোগীদেরও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, ঘন ঘন হাত ধুঁতে হবে। যেসব জায়গায় হাত দিয়ে ধরতে হয় যেমন-দরজার হাতল, মোবাইল ফোন এগুলো ডিজইনফেকটেড করতে হবে, যাতে সে ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত না হয়। এবং তাকে যতটা সম্ভব বাসায়ই থাকতে হবে। যদি তারা বাসায় থেকে অসুস্থ হয়, তাহলে ওয়ার্নিং সাইনগুলো দেখতে হবে, মানতে হবে, প্রয়োজন হলে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে।

এছাড়া ডায়াবেটিস রোগীদের অনেক মেডিকেশনের দরকার হয়। মেডিকেশনগুলো যাতে ক্লিন থাকে, ঘন ঘন পরিস্কার করতে হবে এবং সঠিক পরিমাণ আছে কিনা সেটা রিচেক করতে হবে। প্রতি মাসের মেডিকেশনের সাপ্লাইটা যাতে পর্যাপ্ত থাকে সেটাও নিশ্চিত করতে হবে। হেলদি লাইফস্টাইল মেনটেইন করতে হবে। সুষম খাবার খেতে হবে এবং পর্যাপ্ত ঘুম যাতে হয় সেটাও খেয়াল রাখতে হবে। প্রতিদিন পর্যাপ্ত হাটা আর ব্যায়াম করতে হবে।

পিএসএস

 

আরও পড়ুন

আরও