মেসির প্রিয় লাপোর্তাই বার্সেলোনার নতুন সভাপতি
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১ | ১০ বৈশাখ ১৪২৮



মেসির প্রিয় লাপোর্তাই বার্সেলোনার নতুন সভাপতি

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:১০ অপরাহ্ণ, মার্চ ০৮, ২০২১

মেসির প্রিয় লাপোর্তাই বার্সেলোনার নতুন সভাপতি
গতকাল রাতেই কি হুয়ান লাপোর্তা ফোন করেছিলেন মেসির বাবা হোর্হে মেসিকে? দিয়ে থাকলে তাদের মধ্যে কি কথা হয়েছে? গতকাল রোববার সকালে ভোট দিতে এসেই হুয়ান লাপোর্তা বলেছিলেন, ‘যদি আমি জয়লাভ করি, তাহলে রাতেই হোর্হে মেসিকে ফোন করব।’ প্রতিশ্রুতি মেনে রাতেই লাপোর্তা ফোন করলে তাদের মধ্যে কি কথা-বার্তা হয়েছে একমাত্র তারাই জানেন। তবে বিশ্বজুড়ে মেসি-ভক্তরা এটা ধরেই নিতে পারেন, মেসি বার্সেলোনাতেই থাকছেন। বার্সা ছেড়ে কোত্থাও যাচ্ছেন না মেসি। মেসির প্রিয় হুয়ান লাপোর্তাই যে দ্বিতীয় বারের মতো বার্সেলোনার সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।

গতকাল অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বহুল আলোচিত বার্সেলোনার সভাপতি নির্বাচন। চরম উত্তেজনাপূর্ণ সেই নির্বাচনে হুয়ান লাপোর্তাই নতুন করে ক্লাব সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। যিনি এর আগে ২০০৩ সাল থেকে ১০১০ সাল পর্যন্ত বার্সার সভাপতি ছিলেন। প্রথম সেই মেয়াদেই তরুণ মেসির সঙ্গে অন্তরঙ্গ বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে উঠে হুয়ান লাপোর্তার। তরুণ মেসিকে বার্সেলোনায় একক নেতা বানাতে সভাপতি লাপোর্তা সম্ভাব্য সবকিছুই করেছেন।

মেসির কারণেই জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচকে অন্যায়ভাবে বেচে দেয় বার্সেলোনা। এমনকি মেসিকে ক্লাবের ‘একক নেতা’ করে তোলার আশায় রোনালদিনহোর মতো কিংবদন্তিকেও ছেড়ে দিতে দুবার ভাবেনি লাপোর্তার তৎকালীন বার্সা বোর্ড। ২০১০ সালে সভাপতির দায়িত্ব থেকে সরে গেলেও লাপোর্তার সঙ্গে মেসির মধুর সম্পর্ক অব্যাহতই ছিল। সেই লাপোর্তা যখন নতুন করে দায়িত্ব পেলেন, তখন ধরে নেওয়াই যায়, মেসি ক্যাম্প-ন্যুতেই থাকছেন। লাপোর্তা নিশ্চয় তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবেন।

অতীতের যে কোনো সময়ের তুলনায় বার্সেলোনার এবারের সভাপতি নির্বাচন বেশি আলোচিত এবং উত্তপ্ত ছিল। সেটি মূলত মেসির কারণেই। সাবেক সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউয়ের বোর্ডের সঙ্গে মেসির মতবিরোধটা ছিল স্পষ্ট। সেই মতবিরোধের সূত্র ধরেই গত মৌসুমে প্রিয় বার্সেলোনা ছাড়ার ঘোষণা দেন মেসি। বার্তোমেউয়ের বোর্ড তাকে জোর করে ধরে রেখেছে ঠিক। কিন্তু মেসি এখনো বার্সার সঙ্ড়ে চুক্তি নবায়ন করেননি বা চুক্তি নবায়ন করতে রাজি হননি। বার্সার সভাপতি কে হন, নতুন সভাপতির ভবিষ্যত পরিকল্পনাটা কেমন হয়, সেটি দেখার জন্যই মূলত অপেক্ষা করছেন মেসি। তো প্রিয় লাপোর্তাই যেহেতু নির্বাচিত হয়েছেন, তখন ধরেই নেওয়া যায়, সবকিছু মেসির মন মতোই হবে।

লাপোর্তা নিজের নির্বাচনী এজেন্ডায় যে সেই প্রতিশ্রুতিই দিয়েছেন। সভাপতি পদের অন্য দুই প্রার্থীও তাদের নির্বাচনী এজেন্ডায় মেসিকে ধরে রাখার বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দেন। তবে লাপোর্তার নির্বাচনী এজেন্ডার এক নম্বরেই ছিল মেসির বিষয়। এজেন্ডায় তিনি স্পষ্টভাবেই উল্লেখ্য করেন, তিনি নির্বাচিত হলে তার এক নম্বর কাজ হবে মেসিকে বুঝিয়ে-সুজিয়ে ক্যাম্প-ন্যুতেই ধরে রাখা।

এই প্রতিশ্রুতি তো ছিলই। পাশাপাশি লাপোর্তা-মেসির মধুর সম্পর্কের কথাও সবার জানা। ফলে ক্লাব বার্সেলোনার পরিচালন বোর্ড এবং ভোটাররা এটা নিশ্চিতভাবেই জানত, তিন প্রার্থীর মধ্যে একমাত্র লাপোর্তাই পারবেন বুঝিয়ে-সুজিয়ে মেসিকে ক্যাম্প-ন্যুতে থেকে যাওয়ার জন্য রাজি করাতে। তাই গোপন ভোটের মাধ্যমে লাপোর্তাকেই বিজয়ী করেছে বার্সার পরিচালন বোর্ড ও সদস্যরা।

মেসিকে ধরে রাখার ইস্যুতেই কিনা, লাপোর্তা দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচিত হয়েছেন রেকর্ড সংখ্যক ভোট পেয়েছ কাষ্ট হওয়া মোট ভোটের ৫৪.২৮ শতাংশ ভোট পেয়েছেন লাপোর্তা। অন্য দুই প্রার্থী মিলে পেয়েছেন বাকি ৪৫.৭২ শতাংশ ভোট। সংখ্যার ভিত্তিতে লাপোর্তা মোট ভোট পেয়েছেন ৩০ হাজার ১৮৪টি। বার্সার ক্লাব ইতিহাসে কোনো সভাপতিই এত বেশি সংখ্যক ভোট কখনো পাননি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ভিক্টর ফন্ত পেয়েছেন ১৬ হাজার ৬৭৯ ভোট। ক্লাবের চরম আর্থিক দুঃসময়ে কিলিয়ান এমবাপে, আরর্লিং হালান্ডের মতো তারকাদের দলে ভেড়ানোর ‘শুভংকরের ফাঁকি’ প্রতিশ্রুতি দেওয়া টনি ফ্রেইক্সা পেয়েছেন মাত্র ৪ হাজার ৭৬৯ ভোট।

এর আগে সর্বোচ্চ ভোট প্রাপ্তির রেকর্ডটিও ছিল এই লাপোর্তার দখলেই। পেশায় আইনজীবী এবং রাজনীতিবিদ লাপোর্তা ২০০৩ সালের নির্বাচনে পেয়েছিলেন ৫২.৬০ শতাংশ বা ২৭ হাজার ১৩৮ ভোট!

বার্সার খেলোয়াড় হিসেবে মেসি এবারই প্রথম বারের মতো সভাপতি নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন। কাল সকালে ছেলে থিয়াগোকে সঙ্গে করেই ভোট দিতে এসেছিলেন মেসি। মেসি কাকে ভোট দিয়েছেন, সেটি গোপনই। তবে গোপন হলেও তা অপেন-সিক্রেট। কারণ, সবাই জানে মেসি-লাপোর্তার সম্পর্কটা কেমন। কাজেই মেসিকে লাপোর্তাকেই ভোট দিয়েছেন সেটি স্পষ্টই। শুধু মেসিই নন, বার্সেলোনার বেশির ভাগ খেলোয়াড়ের ভোটই পড়েছে লাপোর্তার বাক্সে।

যাই হোক, লাপোর্তা বিজয়ী হওয়ায় মেসির বার্সেলোনাতেই থেকে যাওয়ার সম্ভাবনার আলোটাই ফুটে উঠেছে। আগামী ১০ কর্ম দিবসের মধ্যেই নতুন সভাপতি হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নেবেন ৫৯ বছর বযসী লাপোর্তা। তবে মেসিকে ধরে রাখার প্রতিম্রুতি রক্ষার কাজ তিনি শুরু করে দিয়েছেন কাল থেকেই। বিজয়ী হওয়ার পরই লাপোর্তা দৃঢ় কণ্ঠে বলেছেন, ‘মেসি বার্সেলোনাকে খুব ভালোবাসে। আশা করি এই ভালোবাসাই তাকে বার্সেলোনায় থেকে যেতে সাহায্য করবে। আমরাও সবাই সেটাই চাই।’

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও