কাসেমিরোর মাথায় চড়ে অ্যাতলেতিকোর কাছে রিয়াল
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ১ মার্চ ২০২১ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

কাসেমিরোর মাথায় চড়ে অ্যাতলেতিকোর কাছে রিয়াল

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১

কাসেমিরোর মাথায় চড়ে অ্যাতলেতিকোর কাছে রিয়াল
হুগো দুরো। বিশ্বসেরা ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে এই নামে একজন খেলোয়াড় আছেন, এটা আপনি জানেন? গতকাল পর্যন্তও স্পেনের বাইরের ফুটবলপ্রেমীদের কাছে এটা এক রকম অজানা তথ্যই ছিল। এমনকি অনেক স্প্যানিয়ার্ডের কাছেও হয়তো তথ্যটা অজানাই ছিল। নয়তো, স্পেনের সবচেয়ে প্রভাবশালী ও জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক মার্কা এমন শিরোনাম করবে কেন, ‘কে এই হুগো দুরো?’

মার্কার এই শিরোনাম স্পষ্ট বলছে, গতকাল পর্যন্ত হুগো দুরো অচেনাই ছিলেন। তবে এখন আর অজানা-অচেনা কেউ নন। গতকাল রাতে লা লিগায় রিয়াল ও রিয়াল ভায়াদোলিদের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে এই হুগো দুরোকে চিনে গেছে ফুটবল দুনিয়া। গতকালই যে রিয়াল মাদ্রিদ মূল দলের হয়ে অভিষেক হলো ২১ বছর বয়সী স্প্যানিশ তরুণের।

স্বাভাবিকভাবেই রিয়ালের মূল দলের হয়ে তার অভিষেকটা হলো বদলি হিসেবে। কাল ম্যাচের ৬৬ মিনিটে মারিয়ানো ডায়াজের বদলি হিসেবে তাকে মাঠে নামিয়ে দেন রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান। সঙ্গে সঙ্গে ফুটবল দুনিয়া জেনে যায় হুগো দুরো নামের একজন খেলোয়াড় রিয়ালে আছে।

রিয়ালের খেলেয়াড় হয়েও তিনি ঠিক রিয়ালের খেলোয়াড় নন! তিনি মূলত গেটাফের চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়। বর্তমানে ধারে খেলছেন রিয়ালে। ২১ বছর বয়সী এই স্প্যানিয়ার্ডকে মূলত নিজেদের বি দলের (কাস্তিয়া) জন্য ধারে নিয়ে এসেছে রিয়াল। হুগো দুরো খেলছেন রিয়ালের বি দল কাস্তিয়ার হয়ে। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে গতকালের ম্যাচের জন্য হঠাৎই এই তরুণকে ফরোয়ার্ডকে মূল দলের স্কোয়া্ডে ডেকে বসেন কোচ জিদান। ৬৬ মিনিটে বদলি হিসেবে নেমে ২৪ মিনিট খেলেছেনও হুগো দুরো।

নিজে গোল না পেলেও রিয়ালের মূল দলের হয়ে হুগো দুরোর অভিষেকটা হলো জয় দিয়ে। কাল ভায়াদোলিদের মাঠে গিয়ে ঠিকই জয় পেয়েছে রিয়াল। জয়টা অবশ্য কষ্টের, ১-০ গোলে। রিয়ালের কষ্টের এই জয়ের নায়ক ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কাসেমিরো। ম্যাচের একমাত্র গোলটা তিনি করেছেন হেড করে।

রিয়ালের বি দলের হয়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেই মূল দলের কোচ জিদানের মন জয় করে নিয়েছেন হুগো দুরো। পাশাপাশি মন জয় করেছেন স্পেনের অনূর্ধ্ব-২১ দলের কোচের মনও। দলে ডাক পাওয়ার পাশাপাশি হুগো দুরো স্পেনের অনুর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে এরই মধ্যে একটা ম্যাচও খেলে ফেলেছেন। তবে হুগো দুরো নিশ্চিতভাবেই রিয়ালের মূল দলের হয়ে খেলতে পারাটাকেই প্রাপ্তির খাতায় সবার উপরে রাখতে চাইবেন।

নিজের প্রতিভা-যোগ্যতা দিয়েই জিদানের মন জয় করেছেন হুগো দুরো। তবে হঠাৎ করে তার সামনে মূল দলের দরজা খুলে যাওয়ার পেছনে অন্য একটা কারণও আছে। রিয়ালের অন্তত ৮ জন খেলোয়াড় বর্তমানে চোটে আক্রান্ত। তার মধ্যে আছেন দলের প্রধান গোল-মেশিন করিম বেনজেমাও। পরিস্থিতিতে এতটাই ভয়াবহ যে. জিদানকে স্কোয়াড গড়তেই হিমশিম খেতে হচ্ছে। ফলে কাল বাধ্য হয়েই বি দলের অখ্যাত হুগো দুরোকে স্কোয়াডে ডাকতে বাধ্য হন রিয়াল কোচ।

হুট করে হুগো দুরোকে স্কোয়াডে ডাকা এবং শেষ পর্যন্ত মাঠেও নামিয়ে দেওয়াটাই বলছে, কালও অনেকটা জোড়াতালির দলই নামাতে হয়েছে জিদানকে। তবে জোড়াতালির দল নিয়েই ভায়াদোলিদের মাঠ থেকে জিতে ফিরেছে জিদানের দল। কাসেমিরোর মাথায় চড়ে পাওয়া যে জয়ের মাধ্যমে রিয়াল পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের কাছে পৌঁছে গেছে রিয়াল। মাদ্রিদের দুই প্রতিবেশীর পয়েন্টের ব্যবধানটা এখন নেমে এসেছে মাত্র ৩-এ।

মানে দুই নম্বরে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে এখন মাত্র ৩ পয়েন্টে এগিয়ে অ্যাতলেতিকো। দুই প্রতিবেশীর মধ্যে পয়েন্টের ব্যবধান এতটা কমে আসার কারণ, কাল রিয়াল জিতলেও হেরে গেছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। দিয়েগো সিমিওনের অ্যাতলেতিকোকে কাল ২-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে সেই লেভান্তে। তিন দিন আগেই যারা অ্যাতলেতিকোকে পুড়িয়েছে ১-১ গোলে ড্র করার হতাশার আগুনে।

নিজেদের জয়ে যতটা খুশি রিয়াল, ততটাই খুশি অ্যাতলেতিকোর হারে। কালকের জয়ে ২৪ ম্যাচে দুইয়ে থাকা রিয়ালের পয়েন্ট হয়েছে ৫২। শীর্ষে থাকা অ্যাতলেতিকোর পয়েন্ট ৫৫। তবে অ্যাতলেতিকো ম্যাচ খেলেছে একটি কম ২৩টি। এই দুই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বীর ঠিক পেছনেই রয়েছে বার্সেলোনা। যাদের পয়েন্ট ২২ ম্যাচে ৪৬।
কাল অখ্যাত হুগো দুরোর অভিষেক চমক ঘটনার মধ্যদিয়ে অন্য একটা বিশেষ চমকও দেখিয়েছেন রিয়াল কোচ জিদান। বেনজেমার অনুপস্থিতিতে তিনি শুরযুতে আক্রমণ সাজিয়ে ছিলেন মার্কো

এসেনসিও, ভিনিসিয়াস জুনিয়র ও মারিয়ানোকে দিয়ে। এই তিনজন মাঠে থাকা অবস্থাতেই ৬৫ মিনিটে রিয়ালের জয়ের দরজা খুলে দেন কাসেমিরো। ঠিক গোল করার পরপরই আক্রমণভাগের তিন ফরোয়ার্ডকে একবারে বদলি করেন জিদান। এসেনসিও, ভিনিসিয়াস ও মারিয়ানোকে তুলে একসঙ্গে মাঠে নামিয়ে দেন সের্গিও অ্যারিবাস, ইসকো এবং হুগো দুরোকে! একসঙ্গে তিন ফরোয়ার্ডকে বদল, ফুটবলে এমন ঘটনা বিরলই।

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও