মেসিকে নিয়ে ভাবছেন না উইলিয়ামস
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ১ মার্চ ২০২১ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

মেসিকে নিয়ে ভাবছেন না উইলিয়ামস

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৩১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

মেসিকে নিয়ে ভাবছেন না উইলিয়ামস
আজ সুপারকোপা ডি এস্পানার ফাইনালে কি খেলবেন লিওনেল মেসি? এই মুহূর্তে এই প্রশ্নের নিশ্চিত উত্তর বার্সেলোনা শিবিরেও নেই! বার্সেলোনার কোচ স্বয়ং রোনাল্ড কোমানই জানেন না, মেসি খেলবেন নাকি খেলবেন না। কোচ কোমান জানিয়েছেন ফাইনালে খেলবেন কিনা, সেই সিদ্ধান্ত স্বয়ং মেসিই নেবেন। তবে মেসি খেলুক বা না খেলুক, তা নিয়ে ইনাকি উইলিয়ামসের কোনো মাথা ব্যথা নেই। অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড একদমই ভাবছেন না মেসিকে নিয়ে। ফাইনালের আগে তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, ‘মেসি খেলুক বা না খেলুক, তাতে তাদের কিছু যায় আসে না।’

বিলবাওয়ের ২৬ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড এটাও স্পষ্ট করে বলেছেন, মেসি খেলুক বা না খেলুক, বার্সেলোনার বিপক্ষে ফাইনালে তাদের পরিকল্পনাটা একই থাকবে। লক্ষ্যও থাকবে এক-ম্যাচ জিতে শিরোপা জয়। ২০১৫ সালে বার্সেলোনাকে হারিয়েই স্প্যানিশ সুপার কাপে দ্বিতীয় বারের মতো শিরোপা জিতেছিল অ্যাথলেটিক বিলবাও। ফাইনালে দুই লেগ মিলিয়ে সেবার বিলবাও জিতেছিল ৫-১ ব্যবধানে। তখনো ইনাকি উইলিয়ামস এই বিলবাওতেই ছিলেন।

মেসিও ছিলেন বার্সেলোনায়। তবে সেবারের ফাইনালে মেসি খেললেও উইলিয়ামস চোটের কারণে খেলতে পারেননি। মাঠের বাইরে বসেই দেখেছিলেন মেসির বার্সেলোনার বিপক্ষে নিজ দলের শিরোপা জয়। সেই আক্ষেপ এবার মেটাতে চান উইলিয়ামস। মাঠে নেমেই হারাতে চান বার্সেলোনাকে। আর একমাত্র লক্ষ্য যখন জয়, সেখানে বিশেষ একজন খেলোয়াড়কে দেখে ভয় পাওয়া চলে! কাজেই মেসির বিষয়টি মাথায়ই আনতে চাচ্ছেন উইলিয়ামস।

ব্যক্তিগত উইলিয়ামস হয়তো না ভাবতে পারেন। তবে তাদের কোচের ভাবনার বড় একটা জায়গা জুড়েই হয়তো রয়েছেন মেসি। চোট শঙ্কা কাটিয়ে সত্যিই যদি মেসি মাঠে নামেন, তাহলে তাকে আটকানোর জন্য বিলবাও কোচকে তো আলাদা পরিকল্পনা আঁটতেই হবে। আর ভাবভঙ্গিতে মনে হচ্ছে, বিলবাও কোচকে হয়তো মেসিকে আলাদা করে পরিকল্পনা আঁটতে হবেই। কারণ, মেসির যে আজ খেলার সম্ভাবনাই বেশি। আজকের ফাইনালকে সামনে রেখে গতকাল বার্সেলোনা দলের সঙ্গে যে অনুশীলনও করেছেন মেসি।

গত বুধবার রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে সেমিফাইনালে খেলেননি মেসি। বার্সেলোনার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল হালকা চোটের কারণে মেসি সেমিফাইনালে খেলেননি। ফলে দলকে যখন খেলছিল, মাস্ক পরা মেসিকে দেখা গেছে গ্যালারিতে বসে থাকতে। দল গোল পেলে গ্যালারিতে বসেই করতালি দিয়েছেন। গোল খেলে বিপরীত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। ম্যাচ শেষে উচ্ছ্বাসের সঙ্গেই উদযাপন করেছেন দলের জয়। দলকে ফাইনালে তুলতে সেদিন মেসির ভূমিকা ছিল এতটুকুই।

কিন্তু আজ? উত্তরটা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে যেহেতু গতকাল দলের সঙ্গে অনুশীলন করেছেন মেসি, ফলে আজ তিনি খেলবেন বলেই মনে হচ্ছে। নিশ্চিত না হলেও বার্সেলোনা শিবিরও এই বিশ্বাসেই বলিয়ান। বুধবারের সেমিফাইনালে শেষেও কোচ কোমান স্পষ্ট করে বলে দেন, রোববারের ফাইনালেও মেসির খেলার সম্ভাবনা কম। তবে গতকাল ফাইনাল পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে সেই কোমানই বল ছুঁড়ে দিয়েছেন মেসির কোর্টে। বলেছেন, খেলবেন কিনা সেই সিদ্ধান্ত স্বয়ং মেসি নেবেন। কারণ, নিজের স্বাস্থ্যের বিষয়টি মেসিই সবচেয়ে ভালো জানেন।

কিন্তু হাবভাব দেখে মনে হচ্ছে, ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে হলেও মেসি আজ খেলবেন। মেসি এই কাজ অনেক বারই করেছেন। সেখানে আজ তো ফাইনাল। শিরোপা হাতে নেওয়ার দিন। গত মৌসুমে কোনো শিরোপাই জিততে পারেনি বার্সেলোনা। পুরো মৌসুম কেটেছে শূন্য হাতে। এবার সুযোগ এসেছে মৌসুমের প্রথম শিরোপা জয়ের। মেসি এমন সুযোগ পায়ে ঠেলবেন? তিনি তা করতে পারেন? পারেন না বলেই হয়তো মাঠে নামার জন্য উদগ্রীব মেসি। ফলে চোটের অবস্থা যেমনই হোক, ম্যাচ প্রস্তুতি নিতে কাল অনুশীলনটা সেরে নিয়েছেন।

তাছাড়া শুধু তো গত মৌসুমের শিরোপা বন্ধ্যাত্ব ঘুচানোর সুযোগ নয়, আজ মেসিদের সামনে প্রতিশোধের আগুন নেভানোর উপলক্ষ্ও! ২০১৫ সালে মেসি মাঠে থেকেই এই বিলবাওয়ের কাছে নিজেদের হার দেখেছেন। বিলবাওয়ের মাঠে গিয়ে প্রথম লেগে ৪-০ গোলে হারের পর নিজেদের মাঠের ফিরতি লেগে মেসিদের পুরতে হয়েছিল ১-১ গোলের ড্র হতাশায়। ফল, দুই লেগ মিলিয়ে ৫-১ ব্যবধানের জয়ে মেসির ঘরের মাঠ ক্যাম্প-ন্যুতেই শিরোপা উৎসব করে বিলবাও। সেদিন অসহায়ের মতো তা চেয়ে চেয়ে দেখতে হয়েছিল মেসিদের। ৫ বছর পর সেই হারের ক্ষতে প্রলেপ দেওয়ার সুযোগ এসেছে। মেসি এমন সুযোগ মিস করতে পারেন?

সব মিলে মেসির আজ মাঠে নামার সম্ভাবনাই বেশি। আর মেসি নামলে বার্সেলোনার শিরোপার সম্ভাবনাও বেড়ে দ্বিগুণ হবে, সেটি বোধহয় না বললেও চলছে।

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও