পেলের রেকর্ড মেসি-রোনালদো ভেঙেছেন, ভাঙেননি
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ | ৪ মাঘ ১৪২৭

পেলের রেকর্ড মেসি-রোনালদো ভেঙেছেন, ভাঙেননি

খলিলুর রহমান ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

পেলের রেকর্ড মেসি-রোনালদো ভেঙেছেন, ভাঙেননি
রেকর্ড মানে উক্ত ক্ষেত্রে ওই খেলোয়াড়ের শ্রেষ্ঠত্বের দলিল। বিশ্ব রেকর্ডের মর্যাদা-সম্মান আরও বেশি। কিন্তু রেকর্ড প্রসঙ্গে কথা বলায় তারকাদের কেমন যেন একটা উদাসিন্য ভাব! রেকর্ড প্রসঙ্গে জানতে চাইলে, দুনিয়ার সব খেলার সব তারকাই বলে থাকেন, রেকর্ড নিয়ে তারা ভাবেন না!

কিন্তু আসলেই কি তাই? পেলের মতো কিংবদন্তি যখন ৮০ বছর বয়সেও নিজের রেকর্ড ভাঙার বিষয়ে পাল্টা প্রতিক্রিয়া দেখান, নিজের রেকর্ডকে নতুন করে দেখানোর চেষ্টা করেন, তাতে এটাই স্পষ্ট হয়ে উঠে, রেকর্ড প্রত্যেক খেলোয়াড়কেই বিশেষভাবে আন্দোলিত করে রাখে। রেকর্ড নিয়ে ভাবেন না জাতীয় কথা-বার্তা কেবলই তাদের মুখের কথা। মনের কথা না।

হঠাৎ করে এই প্রসঙ্গে আলোচনার কারণ স্বয়ং পেলে। সম্প্রতি ব্রাজিল কিংবদন্তির দুটি রেকর্ড ভেঙে গেছে। একটি ভেঙেছেন লিওনেল মেসি। অন্যটি ভেঙেছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। কিন্তু মেসি-রোনালদোর পেলের সেই রেকর্ড ভাঙা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিতর্কটা শুরু করেছেন স্বয়ং পেলে এবং তার সাবেক ক্লাব সান্তোস। পেলে এবং তার ক্লাব সান্তোসের দাবি, রেকর্ড ভাঙা দূরের কথা, মেসি-রোনালদো তার রেকর্ডের ধারের কাছেও এখনো যেতে পারেননি!

পেলের ফুটবল প্রতিভা, সামর্থ, দক্ষতা, অর্জন নিয়ে সংশয় নেই কারো। অমিয় প্রতিভা-দক্ষতা আর অর্জন-কীর্তির মধ্যদিয়ে পেলে বিশ্বজুড়ে যতটা সম্মানিত হয়েছেন, দুনিয়ার আর কোনো ফুটবলারের ভাগ্যে ততটা জুটেনি! তাঁর কিছু কিছু কীর্তি বিশ্ব ফুটবল ইতিহাসের পাতায় এখনো অমর হয়ে আছে। কিন্তু সমস্যা হলো তাঁর কিছু কিছু গোল রেকর্ড নিয়ে ধোয়াশা আছে। মানে একেক রকম মত আছে। এক পরিসংখ্যানে দেখানো হয়েছে এক রকম, অন্য পরিসংখ্যানে আরেক রকম।
এর কারণ, পেলের সময়ে বৈশ্বিকভাবে খেলোয়াড়দের গোলের পরিসংখ্যান সেভাবে রাখা হতো না!

স্ব স্ব খেলোয়াড়ের ক্লাবগুলো নিজেদের মতো করে যতটুকু পারত, হিসাব রাখত। কিন্তু প্রামাণ্য দলিল হিসেবে লিখে রাখা হতো না! সমস্যা হয়েছে এখানেই। পরবর্তীতে যখন রেকর্ড নিয়ে ঘাটাঘাটি শুরু হয়, পেলের গোলের রেকর্ড নিয়ে একেক পরিসংখ্যানে উঠে আসে একেক রকম তথ্য।

লাতিন আমেরিকার জগদ্বিখ্যাত ফুটবল সাংবাদিক রদলফো রদ্রিগেজ যেমনস দাবি করেছেন, বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে পেলে অফিসিয়াল গোল করেছেন মোট ৭৬২টি। আধুনিক ফুটবল পরিসংখ্যানের ‘রেফারেন্স’ হিসেবে বিবেচিত ‘ফুতদাদোস’ ওয়েবসাইট এবং আরএসএসএসএফের মতে আবার পেলের অফিসিয়াল ক্যারিয়ার গোল সংখ্যা ৭৬৭টি। আবার ব্রাজিলের জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত ক্রীড়া সাময়িকী ‘প্লাকার’-এ ২০১৯ সালে প্রকাশিত হয়, পেলে ক্যারিয়ারে অফিসিয়াল গোল করেছেন মোট ৭৫৭টি। ব্রাজিলিয়ান ক্লাব সান্তোসের হয়ে করেছেন ৬৪৩ গোল, যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগের দল নিউইয়র্ক কসমসের হয়ে করেছেন ৩৭ গোল এবং ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে করেছেন ৭৭ গোল।

‘প্লাকার’-এর এই পরিসংখ্যানের ভিত্তিতেই পেলের দুটি রেকর্ড সম্প্রতি ভেঙে দিয়েছেন মেসি-রোনালদো। মেসি ভেঙে দিয়েছেন পেলের এক ক্লাবের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৪৩ গোলের রেকর্ড। সান্তোসের হয়ে করা পেলের ৬৪৩ গোল টপকে বার্সেলোনার হয়ে মেসি করেছেন এ পর্যন্ত ৬৪৮ গোল। মেসি এই রেকর্ডটি ভেঙে দেওয়ার দিন দুই পরই আবার পেলের মোট গোলের রেকর্ডটি ভেঙে দিয়েছেন রোনালদো। পেলের ৭৫৭ টপকে রোনালদোর ক্যারিয়ার গোল সংখ্যা এখন ৭৫৯টি।

কিন্তু পেলে এবং তার সাবেক ক্লাব সান্তোসের দাবি, মেসি-রোনালদো পেলের রেকর্ড ভাঙেননি। মেসি রেকর্ড ভাঙার পরপরই সান্তোস নিজেদের অফিসিয়াল পেজে এক বিবৃতি প্রকাশ করে। সেখানে তারা স্পষ্টভাবেই দাবি করে, মেসি পেলের রেকর্ড ভাঙেননি। পেলের রেকর্ড ভাঙতে হলে মেসিকে যেতে হবে আরও অনেক দূর। কত দূর? সেটা দেখিয়েও দিয়েছে সান্তোস। ব্রাজিলিয়ান ক্লাবটির দাবি, তাদের জার্সি গায়ে পেলে গোল করেছেন ১০৯১টি! এর ৬৪৩টি অফিসিয়াল ম্যাচে। বাকি ৪৪৮টি প্রীতি টুর্নামেন্ট ও প্রীতি ম্যাচে।

সান্তোসের যুক্তি, পেলের প্রীতি ম্যাচে করা গোলগুলোও হিসেবে ধরতে হবে। কারণ, তখন প্রীতি ম্যাচ আর অফিসিয়াল ম্যাচের মধ্যে তেমন ফারাক কিছু ছিল না! তখন প্রীতি ম্যাচও খেলা হতো তৎকালীন সময়ের সেরা দলগুলোর সঙ্গেই। ফলে তখন অফিসিয়াল আর প্রীতি ম্যাচগুলোকে আলাদাভাবে দেখা হতো না। গোলগুলোকেও না! কাজেই এক ক্লাবের হয়ে পেলের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ভাঙতে হলে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে মেসিকে করতে হবে ১০৯২ গোল! যা থেকে মেসি এখনো ৪৪৪ গোল দূরে!

একইভাবে পেলের রেকর্ড ভাঙতে হলে রোনালদোকেও পাড়ি দিতে হবে আরও বহুদূরের পথ। কারণ, সান্তোস ও পেলের দাবি, তিনি ক্যারিয়ারে মোট গোল করেছেন ১২৮৩টি! মানে পেলের মতে, তার রেকর্ড ছুঁতে হলেই রোনালদোকে করতে হবে আরও ৫২৫ গোল! রোনালদো রেকর্ড ভাঙার পরদিনই নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে এ নিয়ে এক বিবৃতি দিয়েছেন স্বয়ং পেলে। ব্রাজিল কিংবদন্তি নিজেই নিজের ‘বায়ো’তে (সংক্ষিপ্ত পরিচিতি) লিখেছেন, ‘সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা।’
শুধু নিজেকে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা দাবি করেই সন্তুষ্ট থাকেননি পেলে। ব্রাকেটে নিজের হিসেব মতে নিজের ক্যারিয়ার গোলসংখ্যাও উল্লেখ করেছেন, ১২৮৩ গোল! বাক্যের শেষে বিস্ময়সূচক চিহ্ন প্রকাশের মাধ্যমে তিনি বুঝিয়েছেন, নিজের গোল সংখ্যা নিয়ে তিনি নিজেই বিস্মিত! নিজের ‘বায়ো’তে পেলের এই ছোট্ট বার্তাটি লেখার অর্থ, মেসি-রোনালদো তার রেকর্ড ভেঙেছেন বলে দাবি করাটা মানতে পারছেন না তিনি!

তবে এমনটা লিখে সমালোচনার মুখেও পড়েছেন পেলে। অনেকেই বলাবলি করছেন, এই ৮০ বছর বয়সেও রেকর্ডের বিষয়ে পেলের মতো একজনের এমনটা করা ঠিক? এই সমালোচনাও জবাব দিয়েছেন পেলে। পাল্টা এক বিবৃতিতে বলেছেন, তিনি সম্প্রতি নিজের ‘বায়ো’ পাল্টাননি বা নতুন করে কিছুই লেখেননি। যা লেখা আছে, সেটা তিনি লিখে রেখেছেন ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট খেলার পরই, ‘যে দুজন বড় তারকা আমার রেকর্ড ভেঙেছে বলে দাবি করা হচ্ছে, তাদের খাটো করতে আমি ইনস্টাগ্রামে বায়ো পাল্টেছি বলে সংবাদমাধ্যমে যে অভিযোগ তুলেছে তা সত্য নয়। আমি এই অঙ্গনে (ইনস্টাগ্রামে) যোগ দেওয়ার পর থেকে বায়োর লেখাটা একই রকম আছে। তোমাদের (মেসি-রোনালদো) অবিশ্বাস্য অর্জন এ বিষয়ে আমাদের মনোযোগ সরাতে পারবে না।’

পেলে বা তার ক্লাব সান্তোস তাদের মতো করে দাবি করতেই পারে। তবে অফিসিয়াল হিসাব মতে পেলেল রেকর্ড ভেঙেছেন মেসি-রোনালদো। পেলেকে টপকে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়ার পর রোনালদোকে তো অভিনন্দনও জানিয়েছেন ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক গ্যারি লিনেকার, ‘৭৫৮ গোল করে পেলের সর্বোচ্চ ক্যারিয়ার গোলের রেকর্ড ভাঙলেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। ১৮ বছর ধরে প্রতি মৌসুমে প্রায় ৪২টি করে গোল, সত্যিই সংখ্যাটা মাথা ঘুরিয়ে দেয়!’

জুভেন্টাসের পর্তুগিজ সুপারস্টার এরপরও একটা গোল করেছেন। ফলে তার মোট ক্যারিয়ার গোল সংখ্যা ৭৫৯টি। বিশ্বাস্যযোগ্য সব পরিসংখ্যান মতেই রোনালদোই এখন সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। তবে অসমর্থিত একটা পরিসংখ্যান বলছে, রোনালদো এখন জোসেফ বিকনের সঙ্গে যৌথভাবে সর্বোচ্চ গোলদাতা। ওই পরিসংখ্যানে দাবি করা হয়েছে, চেক প্রজাতন্ত্রের প্রয়াত কিংবদন্তি জোসেফ বিকন ক্যারিয়ারে মোট অফিসিয়াল গোল করেছেন ৭৫৯টি। কাজেই রোনালদো তাকে ছুঁয়েছেন মাত্র। তাকে টপকে সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ড গড়তে হলে রোনালদোকে আরও একটি গোল করতে হবে। রোনালদোর জন্য এটা আর এমন কি!

কিন্তু আসল বিতর্কটা তো পেলের রেকর্ড নিয়ে? আরও ৪৪৪ ও ৫২৫ গোল করে মেসি-রোনালদো কি সেই বিতর্ক চিরতরে মুছে ফেলতে পারবেন?

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও