রিভালদো নিশ্চিত, বার্সায় এটাই শেষ মৌসুম মেসির
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০ | ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

রিভালদো নিশ্চিত, বার্সায় এটাই শেষ মৌসুম মেসির

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:২৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০২০

রিভালদো নিশ্চিত, বার্সায় এটাই শেষ মৌসুম মেসির
ক্লাব বার্সেলোনায় লিওনেল মেসির প্রধান শত্রু ছিলেন সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউ। অনেক নাটক-বিতর্কের পর সেই বার্তোমেউ শেষ পর্যন্ত গত অক্টোবরে সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। অনেকেরই বিশ্বাস, বার্তোমেউ চলে যাওয়ায় মেসির বার্সেলোনায় থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়েছে। কিন্তু রিভালদো তা মনে করেন না। ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি বরং নিশ্চিত, বার্সায় এটাই শেষ মৌসুম মেসির। মৌসুম শেষে তিনি আর থাকবেন না। চলে যাবেন অন্য কোথাও।

বার্সা ছেড়ে মেসি কোথায় যাবেন, সেটা পরের বিষয়। তবে রিভালদো স্পষ্টই বললেন, মৌসুম শেষেই বার্সা ছাড়বেন মেসি। কেউ তাকে চলে যাওয়া থেকে আটকাতে পারবে না। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের সবচেয়ে উজ্ব্বল সময়টা এই বার্সেলোনাতেই কাটিয়েছেন রিভালদো। ক্যাম্প-ন্যুতে কাটিয়েছেন ১৯৯৭ থেকে ২০০২, ৫টি বছর। অবসর নেওয়ার পর ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি হয়েছিলেন বার্সেলোনার শুভেচ্ছাদূতও। সরাসরি কোনো পদে হয়তো নেই, প্রিয় ক্লাব বার্সেলোনার সঙ্গে রিভালদোর যোগসূত্র আছে এখনো। সেই রিভালদো যখন, এতটা নিশ্চিত করে বলছেন বার্সার এটাই শেষ মৌসুম মেসির, একটু নড়েচড়ে বসতেই হয়।

ক্লাবের অভ্যরিণ বিষয় নিয়ে সভাপতি বার্তোমেউ ও তার পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে মতোবিরোধ দীর্ঘ দিনের। দিনে দিনে সেই মতোবিরোধ এতটাই বেড়ে যায় যে, গত গ্রীষ্মে মেসি স্পষ্টই বার্সেলোনা ছাড়ার ঘোষণা দেন। কিন্তু বার্সেলোনা তাদের ‘সোনার ডিম পাড়া হাস’কে হাতছাড়া করতে রাজি হয়নি। মেসিকে যেতে দেয়নি। চুক্তির শর্তের অজুহাতে মেসিকে ধরে রেখেছে। পাশাপাশি মেসিকে স্থায়ীভাবে ধরে রাখার চেষ্টাও চলছে। সভাপতির পদ থেকে বার্তোমেউয়ের পদত্যাগ, মেসিকে স্থায়ীভাবে রেখে দেওয়ার প্রচেষ্টারই অংশ।

কাতালন ক্লাবটির আশা, বার্তোমেউয়ের উত্তরসূরি হিসেবে যিনি সভাপতির দায়িত্ব নেবেন, তিনি মেসিকে থেকে যাওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত করতে পারবেন!

কিন্তু রিভালদো এক রকম নিশ্চিত, নতুন সভাপতি হিসেবেই যিনিই দায়িত্ব নিক, তিনিও মেসির মত পরিবর্তন করতে সক্ষম হবেন না। মানে নতুন সভাপতিও মেসির অভিমান ভাঙাতে সক্ষম হবেন না। কারণ, সভাপতি বার্তোমেউ চলে গেলেও তার পরিচালন পরিষদের অন্য সব পরিচালকেরাই রয়ে গেছেন। যাদের অনেকের সঙ্গেই মেসির মতোবিরোধ তুঙ্গে। তবে এই মুহূর্তে সবাই তাকিয়ে আছে জানুয়ারির সভাপতি নির্বাচনের দিকে।

হ্যাঁ, বার্সার সভাপতি নির্বাচন হবে জানুয়ারিতে। কিন্তু যিনিই নির্বাচিত হয়ে আসুক, তিনি মেসিকে বুঝিয়ে সুজিয়ে রাজি করানোর মতো সময় পাবেন না। কারণ ক্লাবের ভবিষ্যত পরিকল্পনা এবং লক্ষ্য নিয়েও তিতি-বিরক্ত মেসি। মানে মেসিকে রাজি করাতে হলে নতুন সভাপতিকে ক্লাবের ভবিষ্যত পরিকল্পনা এবং লক্ষ্য নতুন করে প্রণয়ন করতে হবে। যাতে মেসির মন মতো হয়!

তাছাড়া শুধু তো ক্লাবের ভবিষ্যত পরিকল্পনা তৈরি করা নয়। নতুন সভাপতিকে মেসির সঙ্গে চুক্তি নবায়নের বিষয় নিয়েও কাজ করতে হবে। মৌসুম শেষেই শেষ হয়ে যাবে বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ। এরপরই মেসি হয়ে যাবেন স্বাধীন। যেতে পারবেন যেখানে ইচ্ছা। বার্সার করার কিছুই থাকবে না। কিন্তু নবায়ন প্রক্রিয়া হাতে নেওয়ার আগে তো মেসিকে থেকে যেতে রাজি করাতে হবে। নতুন সভাপতি জটিল সব বিষয়, এতদ্রুত করবেন কি করে! এদিকে বার্সেলোনা আবার খেলোয়াড়দের বেতন কর্তনের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে। ক্লাবের যে সিদ্ধান্তে মোটেই খুশি নন খেলোয়াড়েরা।

সব মিলে বার্সেলোনা বোর্ড মেসিকে ধরে রাখতে পারবেন না বলেই মনে করছেন রিভালদো, ‘বার্সেলোনা এরই মধ্যে খেলোয়াড়দের বেতন কর্তনের ব্যাপারে দর-দাম করছে। স্কোয়াডের সবার বেতন কমানোর যে চেষ্টা চলছে, সেটি অনেক খেলোয়াড়ই মেনে নিতে পারেনি। এটা অবশ্য খেলোয়াড়দের জন্য নতুন কিছু নয়। তবে এরকম অবস্থায় মেসির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করা বা নতুন চুক্তি করা বার্সার পক্ষে সম্ভব হবে না।’

বার্সা মেসিকে কীভাবে ধরে রাখবে, রিভালদো তার কোনো উপায়ই দেখছেন না, ‘নিশ্চিতভাবেই মেসি অন্য ক্লাব থেকে আরও ভালো প্রস্তাব পাবে। গত মৌসুম শেষেই তো সে চলে যেতে চেয়েছিল। আমি ঠিক জানি না, তাকে সেই সিদ্ধান্ত থেকে কিভাবে সরিয়ে আনবে বোর্ড।’

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও