২০ মিলিয়নের কাদিজের কাছে ২৯ বছর পর হারল রিয়াল!
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ | ১৫ কার্তিক ১৪২৭

২০ মিলিয়নের কাদিজের কাছে ২৯ বছর পর হারল রিয়াল!

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০২০

২০ মিলিয়নের কাদিজের কাছে ২৯ বছর পর হারল রিয়াল!
ফুটবল মাঠে কখনো কখনো পুঁচকে কোনো দল এমন কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলে, তা বিশ্বাস করাটাও কঠিন। স্বচোক্ষে দেখার পরও বিশ্বাস হতে চায় না! ফুটবল লেখকেরা কলমের ভাষায় যাকে আখ্যায়িত করে ‘রূপকথা’ বলে। গতকাল রাতে এমনই এক রূপকথার জন্ম হলো রিয়ালের মাদ্রিদের দূর্গ এস্তাদিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। দৈত্য রিয়ালকে তাদের মাঠে এসেই বধ করল অখ্যাত কাদিজ! হারিয়ে দিয়েছে ১-০ গোলে।

নিজ ঘরে পুঁচকে কাদিজের কাছে দৈত্য রিয়ালের হার, এটা কতটা অবিশ্বাস্য ঘটনা, সেটা দুটি তথ্যেই স্পষ্ট। প্রথমত খেলোয়াড় তালিকা। দ্বিতীয়ত, দল গঠনের পেছনে খরচ। লেদেসমা, আকাপো, কালা, ফালি,এসপিনো, হোসে মারি, জনসন, সালভি, অ্যালেক্স, নেগ্রেদো, চোকো লোজানো-এই নামগুলো চিনেন? বাংলাদেশের ফুটবলপ্রেমিরা কেন, খোদ স্পেনেই এরা অখ্যাত। কারো গায়েই তারকা খ্যাতি নেই।

বিপরীতে জিনেদিন জিদানের রিয়ালে তারকার মেলা। থিবো কুর্তোইস, নাচো, রাফায়েল ভারানে, সার্জিও রামোস, এদের মিলিতাও, মার্সেলো, টনি ক্রুস, লুকা মড্রিচ, ইসকো, লুকাজ ভাজকুয়েজ, করিম বেনজেমা, ভিনিসিয়াস জুনিয়র, লুকা জভিচ, ফেদে ভালভার্দে, মার্কো এসেনসিও-প্রত্যেকের বিশ্ব ফুটবল আকাশের জ্বলজ্বলে তারা। প্রত্যেকেই নিজ নামে প্রতিষ্ঠিত।

এমন অ্খ্যাত আর বিখ্যাত তারকাদের মধ্যে লড়াই জমে? শুধু কি তারকার মেলা? শিরোপা লক্ষ্যে রিয়াল পুরো স্কোয়াড গঠন করেছে অন্তত হাজার মিলিয়ন ইউরো খরচা করে। বিপরীতে দরিদ্র কাদিজ পুরো স্কোয়াড গঠনের পেছনে খরচ করেছে ২০ মিলিয়ন ইউরোরও কম। যারা দীর্ঘ ১৫ বছর পর এবার জায়গা করে নিয়েছে স্পেনের শীর্ষ লিগে! ২০ মিলিয়নের দলের সাধ্য কী হাজার মিলিয়নের দৈত্যের সঙ্গে সমান তালে লড়াই করে!

পুঁচকে কাদিজ কাল শুধু সমানতালে লড়াই-ই করেনি, দৈত্য রিয়ালকে তাদের মাঠে এসেই কুপোকাত করেছে। এই কাদিজ ১৯৯১ সালেও একবার হারিয়েছিল রিয়ালকে। দীর্ঘ ২৯ বছর পর আবারও কাদিজ রূপকথার স্বাক্ষী হলো স্পেন তথা বিশ্বের সবচেয়ে সফল দলটি।

বল দখলে রাখা, আক্রমণ, গোলমুখে শট-সব দিক থেকেই এগিয়ে ছিল রিয়াল। কিন্তু কাদিজের ডিফেন্ডাররা জিদানের শিষ্যদের প্রতিটা আক্রমণই দক্ষতার সঙ্গে রুখে দিয়েছে। বেনজেমা, ভিনিসিয়াসদের গোল করার তেমন সুযোগই দেয়নি। উল্টো ম্যাচের ১৭ মিনিটেই গোল পেয়ে যায় কাদিজ। দ্রুত গতির এক প্রতি আক্রমণ থেকে অসাধারণ এক গোল করে কাদিজকে এগিয়ে দেন চোকো লোজানো। তার যে গোলটি শেষ পর্যন্ত ধরে রেখে কাদিজ তুলে নিয়েছে রূপকথার জয়।

গোল পরিশোধের আশায় রিয়াল কোচ জিদান প্রথমার্ধ শেষেই ৪ জন খেলোয়াড়কে বদল করেন। কিন্তু তাতেও কোনো ফল হয়নি। কাদিজ তাদের রক্ষণ অঁক্ষত রাখতে সক্ষম হয়েছে। যার ফল হিসেবে পেয়েছে ঐতিহাসিক জয়। মৌসুমে রিয়ালের এটা প্রথম হার। মজার ব্যাপার হলো, রিয়ালকে অনুসরণ করে কাল হারের তেতো স্বাদ হজম করেছে বার্সেলোনাও। গিটাফের মাঠে গিয়ে লিওনেল মেসিরাও হেরেছে ১-০ ব্যবধানে। একই দিনে দুই দৈত্যের হার। কী কাকতালীয় ঘটনা!

এই হারের পরও পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে রয়েছে রিয়াল। দুই নম্বরে উঠে এসেছে বার্সেলোনাকে হারানো গেটাফে। আর তিন নম্বরে? কে আবার, রিয়ালকে হারানো কাদিজ! বিস্ময়ের এখানেই শেষ নয়। রিয়াল, গেটাফে, কাদিজ-শীর্ষ তিন দলেরই পয়েন্ট সমান ১০ করে। গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় রিয়াল শীর্ষে, গেটাফে দুইয়ে। অবশ্য কাদিজের চেয়ে রিয়াল-গেটাফে ম্যাচ খেলেছে ১টি করে কম। কাদিজ ম্যাচ খেলেছে ৬টি। রিয়াল-হেটাফে ৫টি করে।

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও