রেকর্ড নিয়ে সাংবাদিককে হতাশ করলেন রোনালদো
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

রেকর্ড নিয়ে সাংবাদিককে হতাশ করলেন রোনালদো

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

রেকর্ড নিয়ে সাংবাদিককে হতাশ করলেন রোনালদো
এক ম্যাচেই দুদুটো অনন্য রেকর্ড গড়েছেন। জোড়া গোল করে লিখেছেন নতুন ইতিহাস। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর সাক্ষাৎকার নেওয়ার এই তো সময়। স্কাই স্পোর্ত ইতালিয়া তাই অনেক আগ্রহ নিয়ে সাক্ষাৎকার নিতে বসে রোনালদোর। সাক্ষাৎকার নেওয়া প্রতিবেদকের আশা ছিল, রোনালদো হয়তো খুশিতে গদগদ হয়ে রেকর্ড দুটি অনেক কথাই বলবেন! কিন্তু প্রতিবেদকের সেই আশার গুঁড়ে বালি ছিটিয়ে দিয়েছেন রোনালদো। জুভেন্টাসের পর্তুগিজ তারকা রেকর্ড দুটিকে তেমন পাত্তাই দেননি।

তিনি বরং রেকর্ড দুটির চেয়েও বড় করে দেখিয়েছেন দলের জয়কে। বলেছেন তার কাছে রেকর্ডের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ দলের জয়। সোমবার রাতে এক সময়ের শিরোপা প্রতিদ্বন্দ্বী লাৎসিওকে ২-১ গোলে হারিয়েছে জুভেন্টাস। যে জয়ে টানা ৯ম বারের মতো ইতালিয়ান সিরি আ’র শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে মরিসিও সারির দল। শিরোপা থেকে মাত্র ২ পয়েন্ট দূরে তারা। দলকে মহাগুরুত্বপূর্ণ এই জয় এনে দিতে দুটো গোলই করেছেন রোনালদো। যার প্রথম গোলটি করার মধ্যদিয়ে পর্তুগিজ তারকা গড়েছেন দুদুটি রেকর্ড।

প্রথমত, ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, স্প্যানিশ লা লিগা ও ইতালিয়ান সিরি আ’তে ৫০ বা তার বেশি গোল করার অনন্য কীর্তি গড়েছেন। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ৮৪টি ও স্প্যানিশ লা লিগায় ৩১১ গোল করা রোনালদো সোমবার ইতালিয়ান সিরি আ’তেও ছুঁয়ে ফেলেছেন ৫০ গোলের মাইলফলক। সোমবারের দুটি নিয়ে সিরি আ’তে তার গোল সংখ্যা এখন ৫১টি। ইতিহাসের আর কোনো খেলোয়াড় ইউরোপের এই শীর্ষ ৩ লিগে এমন কৃতিত্ব দেখাতে পারেননি।

অনন্য এই কীর্তির পাশাপাশি ইতালিয়ান সিরি আ’র সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে ৫০ গোলের রেকর্ডও গড়েছেন রোনালদো। সিরি আ’তে আগের দ্রুততম ৫০ গোলের রেকর্ডটি ছিল আন্দ্রেই শেভচেঙ্কোর দখলে। ইউক্রেনিয়ান কিংবদন্তি এসি মিলানের জার্সি গায়ে প্রথম ৫০ গোল করেছিলেন ৬৮ ম্যাচে। সেখানে রোনালদো কীর্তিটা গড়লেন মাত্র ৬১ ম্যাচে। জুভেন্টাসের হয়ে লিগে ৬১ ম্যাচেই করে ফেললেন ৫১ গোল।

এমন অবিশ্বাস্য দুটি রেকর্ড গড়ার পর রোনালদো আনন্দে ভাসবেন, গণমাধমের সামনে হাজির হয়ে ভেতরের সব আবেগ-উচ্ছ্বাস উগড়ে দেবেন, এমনটাই ধারণা ছিল। কিন্তু আবেগ উগড়ে দেওয়া দূরের কথা, রোনালদো রেকর্ড দুটিকে পাত্তাই দেননি। রেকর্ড দুটি সম্পর্কে প্রশ্ন করতেই পর্তুগিজ তারকা তা পাশ কাটিয়ে দলের জয়কেই বড় করে দেখিয়েছেন। সাক্ষাৎকারীকে হতাশ করে বলেছেন, ‘রেকর্ড সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। তবে দলের জয়টা আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা অসাধারণ একটা দল। এবং আজ আমরা আবারও সেটা প্রমাণ করেছি। সবচেয়ে সুন্দর দিক হলো, আমরা সব সময়ই উন্নতি করতে চাই এবং দলের উন্নতির ধারাটাকে উঁচুতে রাখতে চাই।’

নিজের দুদুটি রেকর্ডের চেয়েও রোনালদোর দলের জয়টাকে বড় করে দেখানোর কারণও আছে। জয় পাওয়াটা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। তবে সেই জয়টা যদি হয় লিগের শেষ দিকে এসে শক্তিশালী কোনো দলের বিপক্ষে এবং সেই জয়ে যদি লিগ শিরোপা জয়ের পথটা আরও বেশি প্রশস্ত হয়, তাহলে তা আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। সোমবার লাৎসিও’র বিপক্ষে জয়টিও রোনালদোর জুভেন্টাসের জন্য সে রকমই গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

কদিন আগেও লাৎসিওই ছিল জুভেন্টাসের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী। এক সময় তো মনে হচ্ছিল জুভেন্টাসের একচ্ছত্র আধিপত্য ছিন্ন করে এবার লিগ শিরোপা জিতে নেবে লাৎসিও-ই। কিন্তু মৌসুমের শেষ দিকে এসে পথ হারিয়ে লাৎসিও শিরোপা দৌড় থেকে ছিটকে পড়েছে। অন্য দিকে জুভেন্টাস ধীরে ধীরে নিজেদের একাধিপত্যই প্রতিষ্ঠিত করেছে। এক সময় চোখ রাঙানো লাৎসিও’র বিপক্ষে জিতেই জুভেন্টাস প্রায় নিশ্চিত করেছে লিগ শিরোপা। রোনালদো সেদিকটি ইঙ্গিত করেই বলেছেন, ‘আমরা জানি এটা কঠিন একটা ম্যাচ ছিল। কারণ ম্যাচটা ছিল দারুণ একটা মৌসুম কাটানো একটা দলের বিপক্ষে। তবে আমরা এটাও জানতাম, এটা জয়ের দারুণ একটা সুযোগ। কারণ, ম্যাচটা ছিল আমাদের ঘরের মাঠে। আমরা সবাই খুব খুশি ছিলাম।’

রোনালদোদের সেই খুশির মাত্রাটা আরও বড় হয়েছে জয় পেয়ে শিরোপার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাওয়ায়। শিরোপা জিততে বাকি ৪ ম্যাচ থেকে আর মাত্র ২ পয়েন্ট দরকার জুভেন্টাসের। ফলে ফুটবলপ্রেমীরা জুভেন্টাসকে লিগ চ্যাম্পিয়ন মেনেই নিয়েছে। কিন্তু রোনালদো পা রাখছেন মাটিতেই, ‘আমাদের আরও ৪টি ম্যাচ খেলতে হবে। এবং কিছুতেই সেই ম্যাচগুলোতে ভুল করা যাবে না। কারণ, আমরা সবাই জানি, সিরি আ কতটা কঠিন। তবে আশার কথা, দল খুবই ভালো করছে।’

কেআর

 

: আরও পড়ুন

আরও