করোনায় রিয়ালের সাবেক সভাপতির অবস্থা গুরুতর
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭

করোনায় রিয়ালের সাবেক সভাপতির অবস্থা গুরুতর

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:০৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০২০

করোনায় রিয়ালের সাবেক সভাপতির অবস্থা গুরুতর
করোনা ভাইরাস বিশ্ব ফটবল অঙ্গনকে যেন ঝাপ্টে ধরেছে। একের পর এক ফুটবলার, কোচ থেকে ক্লাব কর্তা-মরণঘাতী এই ছোঁয়াচে ভাইরাসের ছোবল থেকে বাদ যাচ্ছেন কেউ। এবার করোনায় আক্রান্তদের তালিকায় যোগ হলো বিশ্বসেরা ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক সভাপতি লরেঞ্জো সাঞ্জের নামটি। ৭৬ বছর বয়সী এই ফুটবল সংগঠক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত।

তার অবস্থা গুরুতর। তাকে হাসপাতালের নিবিঢ় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। স্পেনের জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক মার্কা জানিয়েছে, লরেঞ্জো সাঞ্জের অবস্থা ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছে। মানে ক্রমেই শঙ্কা বাড়ছে।

লরেঞ্জো সাঞ্জ শুধু একজন নামকরা ফুটবল সংগঠকই নন, ধন্যাঢ্য ব্যবসায়ীও। ব্যবসার মাধ্যমে অঢেল টাকার মালিক হওয়ার সুবাদেই ফুটবল সংগঠক হিসেবে নাম লেখান তিনি। বিশ্বসেরা রিয়ালের সঙ্গে তার সম্পর্কটা এক-দুদিনের নয়। ১৯৮৫ থেকে ১৯৯৫, দীর্ঘ ১০ বছর রিয়ালের পরিচালক ছিলেন।

১৯৯৫ সালে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি যখন সভাপতির দায়িত্ব নেন,  অর্থনৈতিকভাবে রিয়ালের অবস্থা খুবই শোচনীয় ছিল। যার প্রভাব পড়েছিল রিয়ালের মাঠের পারফরম্যান্সেও। টাকার অভাবে নামীদামী তারকা খেলোয়াড় কিনতে না পারার খেসারত দিতে হচ্ছিল মাঠে। ব্যবসায়ী লরেঞ্জো সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই দুহাতে টাকা ঢেলে দলে ভেড়ান প্রেদ্রাগ মিয়াতোভিচ, ডেভর সুকের, ক্লঅরেন্স সির্ডফ, রবার্তো কার্লোস, স্যামুয়েল ইতো, নিকোলাস আনেলকা, ফার্নান্দো মরিয়েন্তেস, স্টিভ ম্যাকমানামানের মতো তারকাদের।

বলতে গেলে তার হাত ধরেই রিয়ালের গ্যালাকটিকো যুগের সূচনা। পরবর্তীতে সেই গ্যালাকটিকো যুগকে পূর্ণতা দেন বর্তমান সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। এক গাদা তারকা খেলোয়াড় কেনার ফলও পায় লরেঞ্জো সাঞ্জের রিয়াল। তার সময়ে রিয়াল একবার করে লিগ ও সুপার কাপ এবং দুবার জিতেছে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ।

অবশ্য নিজ টাকা খরচ করে খেলোয়াড় কিনে দলকে সাফল্য এনে দিলেও ঠিক কি কারণে যেন লরেঞ্জো সাঞ্জ রিয়াল সমর্থকদের মন জয় করতে পারেননি। ২০০০ সালে তাই দ্বিতীয় দফা সভাপতি পদে নির্বাচন করে হেরে যান ফ্লোরেন্তি পেরেজের কাছে।

রিয়ালের পাশাপাশি স্পেনের আরেক ক্লাব মালাগারও মালিকানা কিনে নেন তিনি। কিনতে চেয়েছিলেন ইতালিয়ান ক্লাব পার্মাকেও। কিন্তু শেষ পারেননি। সুনামের পাশাপাশি কিছু বদনামও কামিয়েছেন তিনি। ২০০৯ সালে যেমন গ্রেপ্তার হয়েছিলেন স্প্যানিশ চিতকর্ম পাচারের দায়ে!

তবে সব কিছু ভুলে মানুষ তাকে রিয়ালের সাবেক সভাপতি হিসেবেই বেশি চেনে। ৭৬ বছর বয়সী লরেঞ্জো সাঞ্জের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে তাই পুরো ফুটবল দুনিয়াই ব্যথিত।

কেআর

 

: আরও পড়ুন

আরও