আপসাইকেল ফ্যাশনে পুরনো চাদরে নতুন রূপে
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১ | ১৫ মাঘ ১৪২৭

আপসাইকেল ফ্যাশনে পুরনো চাদরে নতুন রূপে

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৪৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

আপসাইকেল ফ্যাশনে পুরনো চাদরে নতুন রূপে
আপনার বিছানার চাদর পুরানো হলে কি করেন? ফার্নিচার মোছার ডাস্টার অথবা কাঁথা তৈরির কোটিং হিসেবে ব্যবহার করা হয় তাই না? তবে আপনি চাইলে পুরনো বিছানার চাদর বা বেডকভার দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন হরেক প্রয়োজনীয় জিনিস। তাক লাগিয়ে দিন আপসাইকেল ফ্যাশনে।

এই আপসাইকেল ফ্যাশন আসলে কী? পুরনো কোনো কিছুকে রিসাইকেল করে নতুনভাবে বানানোর নাম হল আপসাইকেল ফ্যাশন। এখানে পুরনো বেডকভার দিয়ে তৈরি করা হয়েছে নতুন জিনিস।

প্রিন্টে রকমফের

পুরনো বা ছেঁড়া বেডকভার বা বেডশিট বাতিল করার আগে ছেঁড়া অংশগুলো বাদ দিয়ে বাকি অংশটা কেটে রাখুন। এ রকম তিন-চার ধরনের প্রিন্টেড কাপড়ের টুকরোর অদলবদল ঘটিয়ে, সেলাই করে কুইল্ট বানানো যায়। আবার সলিড কালারের বেডশিটের সঙ্গে দু’-তিন ধরনের প্রিন্টেড কাপড় জুড়ে কুশন কভারও তৈরি করতে পারেন। কোস্টারও তৈরি হতে পারে বিছানার বাতিল চাদর দিয়ে। তিনটে পুরনো চাদর থেকে লম্বা ও সরু কাপড় কেটে নিন। তা দিয়ে বিনুনি পাকান। কোস্টারের আকার পেতে বিনুনির অংশটি গোল করে ঘুরিয়ে-ঘুরিয়ে সেলাই করুন। আবার প্রিন্টেড বেডকভার দিয়ে বানাতে পারেন ট্রাভেল কাটলারি র্যারপও। কাঁটা-চামচের মাপমতো চারটি কাপড়ের টুকরো কাটুন। দুটো কাপড় জুড়ে সেলাই করুন। কাঁটা-চামচ রাখার জায়গা তৈরি করতে, ঠিক কাগজের পাখা তৈরির মতো কুচি করে কাপড় সেলাই করুন। র্যালপ গোল করে মুড়তে এক দিকে দড়ি লাগিয়ে নিতে পারেন।

হ্যান্ডলুম দিয়ে
খাদি বা হ্যান্ডলুমের চাদর দিয়ে স্যান্ডউইচ র্যা পার বানানো যায়। দশটি চৌকো কাপড়ের টুকরো কেটে নিন। তার মধ্যে দুটো টুকরো মাঝে বসবে পকেটের মতো, যেখানে স্যান্ডউইচ রাখা হবে। এই পকেটটা যে কাপড়ের গায়ে লাগানো হবে, তার পাশ দিয়ে এনভেলপে ফোল্ডের মতো বাকি কাপড় চার দিকে সেলাই করে জুড়ে দিন। এবার উপরের দু’টি কাপড়ে লুপ তৈরি করুন, র্যা পার বাঁধতে কাজে লাগবে।

প্যাচওয়ার্ক
ওয়ালহ্যাঙ্গিংয়ের মেটিরিয়াল হিসেবে অ্যাপ্লিক করা বেডশিট কাজে লাগান। লম্বা ২০ ইঞ্চি আর ৬ ইঞ্চি চওড়া কাপড়ের টুকরো কাটুন। সেলাই করে তাতে পাইপিং বসিয়ে নিন। তিনটে পকেট বানাতে, প্রতি পকেটের জন্য দুটো কাপড়ের টুকরো কেটে সেলাই করুন। তার পর লম্বা কাপড়টির সঙ্গে জুড়ে দিন। মোটিফের জন্য ফুল, পাখি... যা আপনার পছন্দ বেছে নিন। টাঙানোর জন্য একই কাপড়ের লুপ লাগাতে হবে। আবার কোনো বেডকভারে নকশা করা থাকলে, এমব্রয়ডারির অংশগুলো কেটে আলাদা রাখুন। বসিয়ে নিতে পারেন টেবিল রানারে। আপনার টেবিলের মাঝবরাবর অংশটির মাপে তিনটে কাপড়ের টুকরো কাটুন। তিনটে কাপড় জুড়ে দিন সেলাই করে।

নতুন স্টাইল
বেডকভার বা বেডশিটের টুকরো দিয়ে স্টাইল স্টেটমেন্ট গড়ে তোলাও সম্ভব। মিক্সড কটন বেডশিট দিয়ে তৈরি করুন এপ্রন। মাপমতো কাপড় দু’টুকরো করুন। এবার একটির উপরে আর একটি সেলাই করে জুড়ুন। কাপড়ের চার দিকে পাইপিং বসাতে, আলাদা কাপড়ের টুকরো কেটে সেলাই করুন। এই পাইপিংয়ের কাপড় দিয়েই গলায় বাঁধার অংশটিও তৈরি হবে। অভিনবত্ব আনতে এপ্রনের তলায় ও দু’পাশে কুচি লাগান।

বাতিল জিনস দিয়ে বানানো যেতে পারে ব্যাগ। বাজার করার ব্যাগ বানাতে প্যান্টের কোমরের অংশটি কাটুন। তার পর জোড়া লাগিয়ে সেলাই করুন। এবার বাজার রাখার জায়গা বানাতে, বেডকভারটিকে ন’টি টুকরো করুন। পকেটের মতো কেটে সেলাই করে, ডেনিমের ভিতরে বসিয়ে আবার সেলাই করে জুড়ে দিন। কাঁধে ঝোলানোর জন্য বানিয়ে নিন ব্যাগের দুটো হাতল।

অ্যাকসেসরিজ়ে
শুধু অন্দরসজ্জা নয়, আপসাইকল ফ্যাশন ট্রেন্ড এখন অ্যাকসেসরিজ়েও। পুরনো স্ট্রাইপড বা চেক ডিজ়াইনের বেডশিট দিয়ে টোট ব্যাগও বানিয়ে ফেলতে পারেন। আবার ব্যাকপ্যাক বানানো যায় চাদরের অনেক টুকরো কাপড় দিয়ে। টুকরোগুলো একটার সঙ্গে একটা জুড়ে নিন। এবার ভিতরে লাইনিং বসিয়ে ব্যাগের আকৃতি দিয়ে সেলাই করুন। খোলা-বন্ধ করতে দড়ি লাগান। আবার যেমন কনভার্স জুতো ছিঁড়ে গেলে আমরা সেটা ফেলে দিই, সেটা ফেলে না দিয়ে ওই ছেঁড়া অং‌শটি ঢেকে দিন রঙিন বেডকভারের টুকরো দিয়ে। ফ্যাশনও হবে, আবার পছন্দের জুতো নতুন ভাবে ব্যবহার করতে পারবেন। অ্যাজটেক প্রিন্টের বেড কভারের টুকরোও বসিয়ে নিতে পারেন কনভার্সের জুতোয়। কলমকারি বা বাটিক প্রিন্টের বাতিল বিছানার চাদরও পুরনো জুতোকে নতুন করে তুলতে পারে।

এছাড়াও পর্দা, আসবাবের ঢাকনা, বেকিং গ্লাভস তৈরি করতেও ব্যবহার করতে পারেন বেডকভার। কোনোটাই খরচসাপেক্ষ নয়। দরকার শুধু সৃষ্টিশীল মন আর সময়।

ওএস/ইসি

 

আরও পড়ুন

আরও