জার্মানিতে মুসলিমদের উপর হামলার পরিকল্পনা, গ্রেফতার ১২
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

জার্মানিতে মুসলিমদের উপর হামলার পরিকল্পনা, গ্রেফতার ১২

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:১১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২০

জার্মানিতে মুসলিমদের উপর হামলার পরিকল্পনা, গ্রেফতার ১২

ছবি: এএফপি

জার্মানিতে রাজনীতিবিদ, আশ্রয়প্রার্থী ও মুসলিমদের উপর হামলার পরিকল্পনাকারী চরম ডানপন্থী গ্রুপের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী তদন্তের পর জড়িত পুলিশ অফিসারসহ ১২ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ।

জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে শনিবার ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, জার্মানির ছয়টি রাজ্যের ১৩টি স্থানে সশস্ত্র অভিযান চালিয়ে জার্মান পুলিশের বিশেষ ইউনিট এদের গ্রেপ্তার করেছে।

এক বিবৃতিতে সংশ্লিষ্ট আইনজীবী জানান, গ্রেফতারকৃতদের মধ্য থেকে চারজন প্রধান আসামী স্পষ্টতই রাজনীতিবিদ, আশ্রয়প্রার্থী ও মুসলিম কমিউনিটির সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিদের উপর হামলা করে গৃহযুদ্ধের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে সচেষ্ট ছিল।  

বিবৃতি অনুযায়ী, অভিযুক্ত অন্য আট আসামী এই গ্রুপকে অর্থ সহায়তা, অস্ত্র সরবরাহ ও ভবিষ্যতে হামলায় অংশ নিতে সম্মত ছিল।

এ ব্যাপারে জার্মানির অঙ্গরাজ্য নর্থ রাইন-ওয়েস্টফালিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, এই ১২ ব্যক্তির মধ্যে অভিযুক্ত পুলিশ অফিসারকে চরম ডানপন্থী গ্রুপের সাথে সম্পৃক্ততার কারণে আগেই বরখাস্ত করা হলেও সে মূল আসামীদের অন্তর্ভুক্ত কি না তা স্পষ্ট নয়।

সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তারা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন, ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠা লাভের পর থেকে এই গ্রুপটির উদ্দেশ্য ছিল, ‘রাষ্ট্র এবং জার্মানির সামাজিক ব্যবস্থা বিশৃঙ্খল করে তোলা এবং শেষে একে ধংস করে দেওয়া’।

তদন্ত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আক্রমণের পরিকল্পনার জন্য দলটি নিয়মিত বৈঠক করতো এবং দুজন প্রধান আসামী ওয়ার্নার এস ও টনি আই এসবের ব্যবস্থাপনা ও সহায়তা করতো। ১২ আসামীর সবাই জার্মান নাগরিক। তারা মেসেঞ্জার অ্যাপ ব্যবহার করে পরস্পরে যোগাযোগ করতো।

গ্রেফতারকৃত অভিযুক্তরা ইতোমধ্যেই হামলায় ব্যবহারের জন্য অস্ত্র সংগ্রহ করেছে কি না তা উদ্ঘাটন করতে শুক্রবার অভিযান পরিচালনা করেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

তদন্ত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গ্রেফতার হওয়া সব অভিযুক্তকে শীঘ্রই আদালতে হাজির করা হবে, সেখানে তাদেরকে রিমান্ড অথবা জেলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হবে

উল্লেখ্য, গত বছর একজন রক্ষণশীল স্থানীয় রাজনীতিবিদকে হত্যা এবং ইস্টার্ন সিটি হলের একটি ইহুদি উপাসনালয়ে হত্যাকাণ্ডের পর জার্মান সরকার। দেশের আন্ডারগ্রাউন্ডের উগ্র ডানপন্থী ও চরমপন্থীদের উপর মনোযোগ বৃদ্ধি করেছে বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, সাম্প্রতিক অভিযানে গ্রেফতারকৃত ১২ জন চরম ডানপন্থী গ্রুপের সাথে সম্পর্ক রাখে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, গতকালের অভিযানে বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ, যার মধ্যে স্বয়ংক্রিয় ‘স্লিম গান’ ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, ইহুদী উপাসনালয়ে হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্রগুলোর সাথে এই অস্ত্রগুলোর মিল রয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হার্স্ট শেফার ফেডারেল পুলিশ এবং স্থানীয় নিরাপত্তা পরিষেবাতে নতুন ৬০০ টি পদ ঘোষণা করেন যাতে উগ্র ডানপন্থী ও চরমপন্থীদের পর্যন্ত পৌঁছা যায়– যারা দেশটির জন্য ক্রমেই হুমকি হয়ে উঠছে।

এর আগে, ফেডারেল পুলিশ বলেছিল, তারা ৪৮ জন চরমপন্থীকে ‘বিপদজনক’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে যারা আক্রমণ করতে পারে বলে সম্ভাবনা রয়েছে। সূত্র: এএফপি, ডন নিউজ।

এমএফ/

 

: আরও পড়ুন

আরও