‘কুকুর-মানব’ রডরিগো
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০ | ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

‘কুকুর-মানব’ রডরিগো

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০২০

‘কুকুর-মানব’ রডরিগো
পোষা প্রাণীকে ভালোবেসে তার চেহারা ধারণ করা সহজ কথা নয় কিন্তু। তবে অনেকেই এমনটা করে থাকেন বলে শোনা যায়। ব্রাজিলের সাও পাওলোর রডরিগো ব্রাগা। ৩২ বছর বয়সি রডরিগো বর্তমানে সারা পৃথিবীতে পরিচিত ‘কুকুর-মানব’ নামে। কারণ তার চেহারাটাই যে কুকুরের মতো।

গত কয়েক বছর ধরে এই বিচিত্র খবর ঘুরে বেড়াচ্ছে ইন্টারনেটের দুনিয়ায়। এবার একটু সত্যতা যাচাই করে দেখা যাক।

শুরুতে আর পাঁচটা মানুষের মতো স্বাভাবিক চেহারা সম্পন্ন ছিলেন তিনি। সুদর্শন হিসেবে সুনামও ছিল তার। কিন্তু সব কিছুই বদলে যায় রডরিগোর প্রিয় পোষা কুকুরটির মৃত্যুর পরে। কুকুরটির আকস্মিক মৃত্যুকে কিছুতেই মেনে নিতে পারছিলেন না তিনি। এক দুঃসাহসী সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন তিনি। স্থির করেন, নিজের চেহারাটিকেই গড়ে নেবেন প্রাণপ্রিয় কুকুরটির চেহারার আদলে।

ব্রাজিলের সেরা প্লাস্টিক সার্জনদের সহায়তা চান রডরিগো। ডাক্তাররা জানান, রডরিগো যা চাইছেন, তা করা সম্ভব, কিন্তু তার ঝুঁকি রয়েছে যথেষ্ট। তা-ও মানতে রাজি রডরিগো। নিজের পরিকল্পনার কথা ভেবে মৃত কুকুরটির দেহ সংরক্ষণ করে রেখেছিলেন রডরিগো। সেই কুকুরের মুখের বিভিন্ন অংশ আলাদা আলাদাভাবে তুলে নিয়ে অপারেশন করে ডাক্তাররা বসাতে শুরু করেন রডরিগোর মুখে।

পর পর বেশ কয়েকটি অপারেশনের পরে রডরিগোর চেহারা হয়ে ওঠে অবিকল সেই কুকুরটির মতো। অপারেশনের পরে নানা ধরনের শারীরিক জটিলতা ভোগ করতে হয় রডরিগোকে। কিন্তু সবকিছু হাসিমুখে সহ্য করেন রডরিগো। আজ সারা পৃথিবীতে তিনি পরিচিত ‘কুকুর-মানব’ হিসেবে।

সত্যিই কি একজন মানুষ বেঁচে থাকতে পারেন কুকুরের চেহারা নিয়ে? খবরটিকে সত্যি বলে প্রমাণ করার জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইটে দেয়া হতে থাকে এক বিচিত্র অপারেশনের ছবি ও ভিডিও। তাতে দেখানো হয়, কীভাবে এক যুবকের মুখে বসানো হচ্ছে কুকুরের মুখের বিভিন্ন অংশ।

কিন্তু একটু খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, খবরটির মধ্যে আংশিক সত্যতা থাকলেও, বহুলাংশে তা ভুয়ো। ছবির যুবকের নাম সত্যিই রডরিগো ব্রাগা। সত্যিই তিনি একসময়ে কুকুরের চেহারা ধারণ করেছিলেন। কিন্তু সবটাই ছিল সাময়িক।

আসলে ২০০৪ সালে ব্রাজিলে একটি আর্ট ওয়ার্কশপ আয়োজিত হয়, যার নাম ছিল ফ্যান্টাসিয়া দে কমপেনসাকো। বিভিন্ন শিল্পী তাদের মনের বিচিত্র কল্পনাকে রূপদান করেছিলেন এই ওয়ার্কশপে। সেই ওয়ার্কশপেই অংশগ্রহণ করেছিলেন রডরিগো। সেখানেই একটি কুকুরের আদলে নিজেকে সাজিয়ে তোলেন তিনি।

তার সেই রূপান্তরেরই ভিডিও ও ছবি কিছুটা এডিটিং-এর কারসাজির মাধ্যমে আরো বাস্তবসম্মত করে তুলে পরবর্তীকালে রডরিগোর প্লাস্টিক সার্জারির ছবি হিসেবে ভাইরাল হয় ওয়েব দুনিয়ায়।

রডরিগোর এই কুকুর-রূপ ছিল নিতান্তই সাময়িক। ওই বিচিত্র সাজের কয়েক ঘন্টা পরেই তিনি ফিরে আসেন তার পুরনো অবয়বে। বর্তমানে একেবারে স্বাভাবিক চেহারায় সুস্থ দেহে সাও পাওলোয় বসবাস করছেন ‘কুকুর-মানব’ নামে খ্যাতি পাওয়া রডরিগো ব্রাগা।

ওএস/ইসি

 

আরও পড়ুন

আরও