কান্না করে স্বস্তি পেতে ‘ক্রাই রুম’!
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

কান্না করে স্বস্তি পেতে ‘ক্রাই রুম’!

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:০১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৬, ২০২১

কান্না করে স্বস্তি পেতে ‘ক্রাই রুম’!
কান্না পেলে কোথায় যাবেন? মন খারাপ করলে না হয় তিস্তা ব্যাকুল হয়, আর আপনি? চুপ করে নিজেকে গুটিয়ে রাখবেন? নাকি লুকিয়ে বাথরুমে গিয়ে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে অঝোরে কাঁদবেন। মন খারাপ থেকে মন ভালো করার হিসেব বড্ড কঠিন। কখন, কোথায়, কোন পরিবেশে দুম করে হতাশা গ্রাস করবে, তা বোঝার আগেই অবসাদের কাছে মনের আত্মসমর্পণ! এমন অবস্থায় কেউ যদি পাশে না থাকে, কেউ যদি কথা না বলে! ভাবছেন এসব আবার কী? এই দ্রুত যুগে আমরা সবাই অল্প বিস্তর অবসাদে ভুগে থাকি। অনেকে এই অবসাদ লুকিয়ে রাখে। যার ফল পরবর্তীকালে বড় সমস্যার সৃষ্টি করে। কঠিন রোগও হতে পারে। আর সেই কারণেই সুদূর স্পেনে ব্যবস্থা করা হল কান্না ঘরের! সেন্ট্রাল মাদ্রিদের একটি ভবনে এমনই ঘর তৈরি করা হয়েছে, যেখানে গিয়ে আপনি চিৎকার করে কাঁদতে পারবেন, মন খারাপ হলে কিছুক্ষণ মনের মানুষের সঙ্গে কথাও বলতে পারবেন। ইচ্ছে করলে মনোবিদের পরামর্শও নিতে পারবেন।

ব্যাপারটা একটু বিশদে বলা যাক। স্পেনে মানসিক স্বাস্থ্য়কে খুবই গুরুত্ব দেওয়া হয়। শুধু অর্থ, প্রতিপত্তি নয়। তার সঙ্গে মন ভাল রাখার বিষয়টির উপরও নজর দেওয়া হয়। আর এই কারণে, সরকারের তরফ থেকেই  ক্রাই রুম  বা কান্না ঘর তৈরির চিন্তাভাবনা।

তা কীরকম এই কান্না ঘর?
ঘরের ভিতর গোলাপি, লাল রঙের ব্যবহার বেশি। আর বাইরে ঝোলানো বোর্ডে লেখা কাঁদতে হলে ভিতরে আসুন! আরেকটি বোর্ডে লেখা রয়েছে মন খারাপ! এই ঘরে ঢুকে প্রিয়জনের সঙ্গে কথা বলুন। এই সব কিছুই একেবারে বিনামূল্যে। 

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গত কয়েক বছরে অবসাদগত কয়েক বছরে অবসাদগ্রস্ত হওয়ায় বহু মানুষ আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন। গ্রস্ত হওয়ায় বহু মানুষ আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন। তার উপর গত বছরে করোনার দাপট থাকায় মানসিক দিক থেকে বিপর্যস্ত বহু মানুষ। এসব কথা মাথায় রেখেই এই কান্না ঘরের ব্যবস্থা করেছে স্পেন।

ইসি

 

আরও পড়ুন

আরও