আজ চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ববিতার জন্মদিন
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

আজ চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ববিতার জন্মদিন

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৫২ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০

আজ চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ববিতার জন্মদিন
আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অভিনেত্রী ববিতার আজ জন্মদিন। ১৯৫৩ সালে বাগেরহাট জেলায় জন্মগ্রহণ করেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। নিজের জন্মদিনে কখনো তিনি ঢাকায় আবার কখনো কানাডাতেই উদযাপন করেন।কারণ তার একমাত্র ছেলে অনিক বেশ কয়েক বছর ধরে কানাডা রয়েছেন।

বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে অসহায়, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে দাঁড়ানো সংগঠন 'ডিসট্রেস চিলড্রেন ইনফ্যান্ট ইন্টারন্যাশনালে'র শুভেচ্ছা দূত হিসেবে ববিতা কাজ করছেন। জন্মদিনে অসহায়, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সঙ্গে বিশেষ একটা সময় কাটান।

অভিনেত্রী নিজেকে একজন মুসলমান হিসেবে বিশ্বাস করেন, কারণ তার মতে, একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য সবাই এই পৃথিবীতে এসেছি। আমাদের যেমন জন্ম আছে, ঠিক তেমনি আছে মৃত্যু । একটি নির্ধারিত সময়েই বিধাতা আমাদের ভাগ্যে মৃত্যু রেখেছেন।

অভিনেত্রী মতে জন্মদিন আসা মানেই হলো আরো একধাপ মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া। এই দিনটিকে ঘিরে অনেক বেশি আনন্দ-ফুর্তি করার আসলে তেমন কিছু নেই। তার মানে আমি এটাও বলছি না যে, সেলিব্রেট করা যাবে না। তবে তা যেন সীমাবদ্ধতার মধ্যেই হয়। এটাও মনে রাখতে হবে এখন আমরা একটা কঠিন সময় পার করছি। আমরা চাই সৃষ্টিকর্তা যেন খুব দ্রুত এই দুর্যোগ তুলে নেন।

সবসময় জন্মদিনের শুভ প্রহর শুরু হয় তার একমাত্র ছেলের সাথে কথা বলে। জন্মদিনের শুরুর প্রহরেই অনিক কানাডা থেকে তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা পাঠানোর পাশাপাশি তার সঙ্গে কথা বলেন।

অভিনেত্রী বলেন, 'অনিক বলে, ইউ আর দ্য বেস্ট মাদার ইন দ্য ওয়ার্ল্ড। সত্যি বলতে কী, সব সন্তানের কাছেই তার মা পৃথিবীর সেরা মা। আমি বুঝি অনিক আমাকে কতটা ভালোবাসে, অনুভব করে, শ্রদ্ধা করে।'

দীর্ঘ কর্মজীবনে জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী ৩৫০ এর বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরূপ পেয়েছেন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের অনেক পুরস্কার। বাংলা সিনেমার অভিনেত্রী হিসাবে তিনি ডক্টরেট ডিগ্রীও লাভ করেছেন।

আবার নিজের অভিনয়ে জগতে ফেরা নিয়ে তিনি বলেন, 'অভিনয়ে তো ফিরতেই চাই। সে রকম গল্প নিয়ে কেউ এগিয়ে আসছে না। তাই অভিনয়ে আমাকে দেখা যায় না। ভালো কাজের ক্ষুধা সবসময় তাড়িয়ে বেড়ায়। আর অভিনয় থেকে শিল্পীর বিদায় বলতে কিছু নেই। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত একজন শিল্পী অভিনয় করতে পারেন।'

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এই অভিনেত্রী ১৯৬৮ সালে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন। তিনি বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী এবং প্রযোজক। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ৭০ এর দশকের সেরা অভিনেত্রী ছিলেন তিনি। তিনি ১৯৭৩ সালে ২৩তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে স্বর্ণ ভল্লুক জয়ী সত্যজিৎ রায়ের অশনি সংকেত চলচ্চিত্রের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক
চলচ্চিত্রে অঙ্গনে প্রশংসিত হন। তিনি ১৯৭৫ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রবর্তনের পর টানা তিনবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার জেতেন। এছাড়া ১৯৭৬, ১৯৭৭, ১৯৮৫ সালে আরেকবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী, ১৯৯৬ সালে শ্রেষ্ঠ প্রযোজক, ২০০২ ও ২০১১ সালে পার্শ্ব চরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী।

এসকে

 

: আরও পড়ুন

আরও