প্রকল্প কর্মকর্তাকে মারধর করলেন ভাইস চেয়ারম্যান!
Back to Top

ঢাকা, শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

প্রকল্প কর্মকর্তাকে মারধর করলেন ভাইস চেয়ারম্যান!

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৬:০৯ অপরাহ্ণ, মে ২২, ২০২০

প্রকল্প কর্মকর্তাকে মারধর করলেন ভাইস চেয়ারম্যান!
টাঙ্গাইল সদর উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা একেএম মোমিনুল হককে মারপিট করেছেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল হুদা নবীন।

এ ব্যাপারে শুক্রবার দুপুরে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) একেএম মমিনুল হক বাদি হয়ে নবীনসহ অজ্ঞাত অন্তত ৮ জনের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইল মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার বিকালে ৫টার দিকে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে তার অফিসকক্ষে অবস্থানকালে ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা ও তপু নামে তার অপর এক সহযোগীসহ আরও ৪/৫ জন ওই কক্ষে প্রবেশ করে। তারা সরকারি কাজে বাধাদান করে অবৈধভাবে ত্রাণের কিছু স্লিপ তাকে (পিআইও) দেন।

তখন পিআইও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে ত্রাণ দিতে অস্বীকার করেন। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে অফিসের দরজা বন্ধ করে দিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। এক পর্যায়ে তারা পিআইওকে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কিল ঘুষি দেন। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তারা ভয়ভীতি দেখিয়ে ও হুমকি দিয়ে চলে যান।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা একেএম মোমিনুল হক বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণকালে সরকার প্রদত্ত বিভিন্ন ত্রাণ সামগ্রী নিয়মবহির্ভূতভাবে বিতরণ করার জন্য সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা নবীন তাকে নানাভাবে চাপ দিচ্ছিলেন। তার কথায় রাজি না হওয়ায় বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে নাজমুল হুদা নবীনের নেতৃত্বে বেশ কয়েজন সন্ত্রাসী তার অফিস রুমে প্রবেশ করেন। এ সময় তিনিসহ তার ৪ সহকর্মী কাজ করছিলেন। নাজমুল হুদা নবীন ও তার সহযোগীরা তার ৪ সহকর্মীকে বের করে রুমের দরজা বন্ধ করে দেন। পরে তারা অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং এক পর্যায় তাকে মারপিট করেন। পরে ঘটনাটি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা নবীন বলেন, এক প্রতিবন্ধীর ভাতা নিয়ে তার (উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা) সঙ্গে তর্কাতর্কি হয়েছে। মারপিটের কোন ঘটনা ঘটেনি।

টাঙ্গাইল মডেল থানার ওসি মীর মোশারফ হোসেন বলেন, মামলার তদন্ত চলছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এএএন/পিএসএস

 

: আরও পড়ুন

আরও