ব্যাট হাতেও ভারতকে উদ্ধার করলেন সেই সুন্দর-ঠাকুর
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ১ মার্চ ২০২১ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

ব্যাট হাতেও ভারতকে উদ্ধার করলেন সেই সুন্দর-ঠাকুর

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৪১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

ব্যাট হাতেও ভারতকে উদ্ধার করলেন সেই সুন্দর-ঠাকুর
দলের ৫ বোলারের সম্মিলিত অভিজ্ঞতা মাত্র ৪টি টেস্ট খেলার! ভারতের অতি অনভিজ্ঞ এই বোলিং লাইনআপও যে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস ৩৬৯ রানে থামিয়ে রাখে, তার মূলে ছিলেন অভিষিক্ত ওয়াশিংটন সুন্দর ও মাত্র এক টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন শার্দুল ঠাকুর। অসিদের পোনে চারশ’র নিচে বেঁধে রাখতেদুজনেই নেন সমান ৩টি করে উইকেট। ব্যাট হাতেও অনভিজ্ঞ এই এই দুজনই পথ দেখালেন সফরকারী ভারতকে। এই দুই তরুণের ব্যাটে চড়েই নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৩৬ রান করতে সক্ষম হয়েছে ভারত।

ভারতকে এতদূর নিয়ে যাওয়ার পরও অবশ্য প্রথম ইনিংসে ৩৩ রানের লিড পেয়েছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। তৃতীয় দিন শেষে অসিদের সেই লিডটা বেড়ে হয়েছে ৫৪ রানের। কারণ প্রথম ইনিংসে পাওয়া ৩৩ রানের লিড নিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে অস্ট্রেলিয়া তৃতীয় দিন শেষ করেছে বিনা উইকেটে ২১ রান করে। দিন শেষে ওপেনার মার্কাস হ্যারিস ১ ও ডেভিড ওয়ার্নার ব্যাট করছেন ১৯ রান নিয়ে।

সব মিলে তৃতীয় দিন শেষে ব্রিসবেনের চতুর্থ টেস্টে চালকের আসনে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াই। তবে তাতে ওয়াশিংটন সুন্দর ও শার্দুল ঠাকুরের কোনো দায় নেই! বরং দলকে এই অবস্থানে নিয়ে আসার জন্য দলের অন্য সতীর্থদের কাছ থেকে বীরের মর্যাদাই দাবি করতে পারেন তারা।

অসিদের ৩৬৯-এর জবাবে দ্বিতীয় দিনেই ৬২ রান করতে ২ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল ভারত। আউট হয়ে যান দুই ওপেনার শুবমান গিল (৭) ও রোহিত শর্মা। উইকেটে সেট হয়েও কাণ্ডজ্ঞানহীনভাবে আউট হওয়া নিয়ে রোহিত শর্মাকে সেকি সমালোচনা শুনতে হয়েছে! সতীর্থ রোহিতকে নিয়ে সেই লাগামহীন সমালোচনা বুঝি সহ্য হয়নি দলের দুই নবাগত ওয়াশিংটন সুন্দর ও শার্দুল ঠাকুরের। তাই সমালোচনাটা যাতে আরও তীব্র না হয়, সেজন্যই হয়তো ব্যাট হাতে একযুগে জ্বললেন দুজনে। তাদের দুজনের জ্বালানো প্রদীপের আলোয় আলোর দেখা পেয়েছে ভারত। রোহিতের সমালোচনাও হয়েছে হালকা।

আগের দিনের ২ উইকেটে ৬২ রান নিয়ে দিন শুরু করে চেতেশ্বর পুজারা ও অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে মিলে দলকে নিয়ে যান ১০৫ রান পর্যন্ত। কিন্তু এরপরই ভারত শিবিরে ঘনিয়ে আসে বিপদ। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে ২৫ রান করা চেতেশ্বর পুজারাকে আউট করেন জস হেজলউড। এরপর দলীয় ১৪৪ রানের মাথায় দলের সবচেয়ে বড় ভরসা অধিনায়ক রাহানেকেও হারিয়ে বসে ভারত। ৯৩ বলে ৩৭ রান করা রাহানেকে বিদায় করেন মিচেল স্টার্ক।

পুজারা-রাহানের বিদায়ের পর দলকে টেনে তোলার আশায় জুটি বাঁধেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল ও উইকেটরক্ষক কাম ব্যাটসম্যান ঋষভ পান্ত। কিন্তু তাদের চেষ্টাও ব্যর্থ। আগারওয়াল ৩৮ ও ঋষভ পান্ত ফিরে যান ২৩ রান করে। এই দুজনকেই ফিরিয়ে দেন হেজলউড। ভারত পরিণত হয় ৬ উইকেটে ১৮৬ রানের দলে। স্বীকৃতি কোনো ব্যাটসম্যান আর নেই। যারা আছেন, তাদের সবাই বোলার। অভিজ্ঞতার ভাণ্ডারও প্রায় শূন্য। লেজের দিকের সেই অনভিজ্ঞরা দলকে আর কত দূর নিয়ে যাবেন? অস্ট্রেলিয়ানরা হয়তো তখন বড় লিডের স্বপ্নই দেখছিলেন।

কিন্তু তাদের সেই স্বপ্নে ধীরে ধীরে জল ঢালতে শুরু করেন অভিষিক্ত ওয়াশিংটন সুন্দর ও এক টেস্ট খেলার মামলি অভিজ্ঞতা সম্পন্ন শার্দুল ঠাকুর। দুজনেই মূলত বোলার। তবে দলের প্রয়োজনে আজ দুজনেই বনে যান বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান। দলের নামীদামী ব্যাটসম্যানরা যে চেষ্টায় ব্যর্থ, দুজনে মিলে সেই চেষ্টাতেই সফল। দুজনে মিলে সপ্তম উইকেটে গড়ে তোলেন ১২৩ রানের জুটি। তাদের এই জুুটিতে চড়ে ৩০৯ রানে পৌঁছায় ভারত। শেষ পর্যন্ত ৩৩৬ রান করে হাফছেড়ে বেঁচেছে রাহানের দল।

দলকে স্বস্তির এই জায়গায় নিয়ে যেতে শার্দুল ঠাকুর খেলেছেন দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৭ রানের ইনিংস। অভিষিক্ত ওয়াশিংটন সুন্দর খেলেছেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬২ রানের ইনিংস। এর আগে একটি মাত্র টেস্ট খেলেছেন শার্দুল ঠাকুর। ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সেই টেস্টে একবার মাত্র ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছিলেন শার্দুল ঠাকুর। শেষ দিকে নেমে করেছিলেন অপরাজিত ৪ রান। দুই বছর পর আবার টেস্ট খেলা এবং ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে খেললেন দলকে বাঁচানো ইনিংস। আর ওয়াশিংটন সুন্দর তো অভিষেকেই করলেন বাজিমাত।

অভিষেক টেস্টে বল হাতে অভিষেক ইনিংসে ৩ উইকেট শিকার। পরে ব্যাট হাতে অভিষেক ইনিংসে দলকে উদ্ধার করা ৬২ রানের ইনিংস। ব্রিসবেন টেস্টের ফল যাই হোক, ওয়াশিংটন সুন্দর ব্যক্তিগতভাবে এরই মধ্যে বিজয়ী হয়েছেন! বিজয়ী শার্দুল ঠাকুরও। এই দুজনের পর মোহাম্মদ সিরাজ খেলেছেন ১৩ রানের ইনিংস। নবদীপ সাইনি করেছেন ৫ এবং আরেক ডেব্যুট্যান্ট থাঙ্গারাসু নটরাজন করেছেন অপরাজিত ১ রান।

ওয়াশিংটন সুন্দর ও শার্দুল ঠাকুরের বীরত্বের আলোয় চাপা পড়েছেন ঠিক। তবে অস্ট্রেলিয়ান পেসার হেজলউডও বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন। ভারতকে গুঁড়িয়ে দিতে তিনি ক্যারিয়ারে নবম বারের মতো তুলে নিয়েছেন ইনিংসে ৫ উইকেট। হেজলউড ৫টি উইকেটই তুলে নিয়েছেন আজ। মানে আজ ভারতের ৮ উইকেটের ৫টিই নিয়েছেন তিনি। বাকি ৩টির মধ্যে ২টি নিয়েছেন প্যাট কামিন্স, একটি মিচেল স্টার্ক। সব মিলে স্টার্ক ও কামিন্স নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। একটি উইকেট নিয়েছেন নাথান লায়ন।

অসিদের দ্বিতীয় ইনিংসের গল্পটুকু আগেই বলা হয়েছে। দিনের শেষ বিকালে যে ৬টি ওভার ব্যাটিং করেছে অস্ট্রেলিয়ানরা, তাতে ভারতীয় বোলাররা উইকেটের দেকা পাননি। ফলে অসিরা কাল নতুনভাবেই শুরু করতে পারবে। তবে তাদের নামের পাশে শুরুতেই লেখা থাকবে ২১টি রান।

কেআর

 

আরও পড়ুন

আরও