পাহাড়ে পিঠা উৎসব
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

পাহাড়ে পিঠা উৎসব

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি ৬:৪০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ০৯, ২০২১

পাহাড়ে পিঠা উৎসব
গ্রাম বাংলার আবহমান সংস্কৃতি সংরক্ষণ ও পৌষের শীত আরও ‘উপভোগ্য’ করতে পার্বত্য শহরের বুকেই আয়োজিত হলো পিঠা উৎসব।

আজ শনিবার সকাল আটটা থেকে শুরু হয়েছে পাহাড়ি জেলা রাঙ্গামাটির তরুণ নারী উদ্যোক্তাদের আয়োজনে শীতকালীন এই ঐতিহ্যবাহী উৎসব, চলবে রাত নয়টা পর্যন্ত।‘বক্স অফ অর্নামেন্টস’ ও ‘অনুভব’ নামের দুটি প্রতিষ্ঠানের আয়োজনে এবং ‘দ্য সাবাঙ্গী’ নামের আরেকটি প্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতায় জেলা শহরের টিএন্ডটি এলাকায় অবস্থিত অনুভব-এ চলছে এই আয়োজন। এদিন সকাল থেকেই নানা রকমের, নানান রঙের পিঠা দেখতে-খেতে আসছেন নানান শ্রেণির মানুষ। এর মধ্যে শিশু-কিশোরদের মধ্যে যেন বাড়তি আনন্দের আবহ।

পিঠা উৎসবের আয়োজক ও তরুণ নারী উদ্যোক্তা সুরাইয়া ইয়াসমিন রুমা জানান, সাধারণত পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় এ ধরণের আয়োজন খুব একটা হয়ে উঠে না। তাই আমরা পাহাড়ের তরুণ নারী উদ্যোক্তারা মিলে এই পিঠা উৎসবের আয়োজন করেছি। পিঠা উৎসবে গ্রাম-বাংলার আবহমান সংস্কৃতি সংরক্ষণে প্রায় ২৫-৩০ রকমের পিঠা ১১টি স্টলে সর্জিত রয়েছে। এছাড়া দর্শনার্থীদের আলাদা আনন্দ দিতে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন রয়েছে। সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় গান, কবিতা আবৃতির আয়োজন থাকছে।

উন্নয়নকর্মী ও নারীনেত্রী নুকু চাকমা জানিয়েছেন, পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে এ ধরণের আয়োজন তেমন হয়না। গ্রাম-বাংলার সংস্কৃতি সংরক্ষণে যে আয়োজনটি করা হয়েছে এটি খুবই চমৎকার ও আকর্ষণীয়। এ ধরণের আয়োজনের মাধ্যমে আমাদের তরুণ প্রজন্ম নিজেদের সংস্কৃতি সর্ম্পকে আরও জানবে ও ধারণা লাভ করবে। শনিবার সকাল থেকেই বাবা-মায়ের সঙ্গে অনেক শিশু, কিশোর-কিশোরী এখানে এসেছে, দেখছে।

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির নারী বিষয়ক সম্পাদক ক্যামেলিয়া দেওয়ান জানান, রাঙামাটিতে এমন সুন্দর একটি আয়োজন হলো, সেখানে অনেকেই সন্তানদের নিয়ে আসছেন। আমরা পরিবারসহ গেলাম। নানান রকম পিঠা খেলাম ও কেনাকাটা করেছি। এর জন্য নারী উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানাতে হয়।

শিশু-কিশোর সংগঠন খেলাঘর আসর রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈকত রঞ্জন চৌধুরী জানান, পিঠা উৎসব গ্রাম-বাংলার সংস্কৃতি তো বটেই। তবে ইদানিংকালে আমরা এসব সংস্কৃতি ছেড়ে অপসংস্কৃতির দিকে বেশি ঝুঁকছি। সেখানে রাঙ্গামাটির নারী উদ্যোক্তা যে আয়োজনটি করেছে, সেটি অনেক গুরুত্ববহন করে। এখানে শিশু-কিশোররা অভিভাবকের সঙ্গে আসছে, বিভিন্ন ধরণের পিঠা সম্পর্কেও জানছে।

প্রসঙ্গত, ‘দ্য সাবাঙ্গী’ হলো পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি নারী উদ্যোক্তাদের একটি গ্রুপ কিংবা মেলবন্ধনের প্লাটফর্ম। ‘বক্স অফ অর্নামেন্টস’ হলো এমনই একটি অনলাইনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান, যেটি পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী অর্নামেন্টস বিক্রয় করে থাকে। মূলতঃ এই প্রতিষ্ঠানটি পাহাড়িদের যেসব ঐতিহ্যবাহী অর্নামেন্টসের ব্যবহার দিনাদিন কমে আসছে। সেগুলোকে সারাদেশের মানুষের মধ্যে বিক্রয় প্রতিষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সংরক্ষণ করছে। অনুভব হচ্ছে নারী-শিশুদের নানান ধরণের পোষাক, লাইব্রেরি ও রেস্তেরাঁর এক যুথবদ্ধ প্রতিষ্ঠান।

এএইচএ

 

আরও পড়ুন

আরও