ছোট্ট সোনামণির একটানা বমিতে করণীয়
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭

ছোট্ট সোনামণির একটানা বমিতে করণীয়

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ০২, ২০২০

ছোট্ট সোনামণির একটানা বমিতে করণীয়

বমি নানা কারণে হতে পারে। হতে পারে সেটা অসুস্থতার জন্য, বাজে কোনো গন্ধর জন্য বমি হতে পারে, খাবার অযোগ্য কিছু খেলে বমি হতে পারে, বদ হজম বা গ্যাস্ট্রিকের জন্যও অনেক সময় বমি হয়। বমি হওয়া খুব ভয়ংকর কোনো সমস্যা না হলেও যদি বমির স্বীকার আপনার ছোট্ট সোনামণি হয়ে থাকে তাহলে কিন্তু ব্যাপারটা আর সাধারণ থাকেনা।

আর আপনার ছোট্ট সোনামণির বমির সাথে সাথে যদি ডায়রিয়া দেখা দেয় তাহলে তো আর কথা নয়, এক্ষেত্রে সন্তানের দেখাশোনার উপর আপনাকে নিতে হবে বাড়তি যত্ন।

আসুন দেখি আপনার আদরের ছোট্ট সোনামণির একটানা বমি হওয়া শুরু হলে কি করবেন।

শিশু একটানা বমি করলে সেই অবস্থায় তাকে জোর করে খাওয়াতে যাবেন না। জোর করে শিশুকে খাওয়াতে না যেয়ে বরং বাচ্চাকে একটু বিশ্রাম দিন। বাচ্চার পাকস্থলীকে শান্ত থাকতে দিন।

বাচ্চাকে যদি বুকের দুধ খাওয়াতে চান তাহলে বুকের দুধের পাশাপাশি খাবার স্যালাইন চালিয়ে যান। এতে আপনার বাচ্চা বমির কারণে ক্লান্ত হয়ে যাবে না।

খুব অস্থির হয়ে যাবেন না। বাচ্চাকে খুব বেশি টানাপরা না করে বিশ্রাম নিতে দিন। খেতে না চাইলে জোর করে খাওয়াতে চেষ্টা না করার পাশাপাশি খেয়াল রাখুন বাচ্চা যেন ভুল করেও নোংরা হাত মুখে না দেয়।

আপনার নিজের হাত পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার সাথে সাথেই বাচ্চার হাত সুন্দর করে পরিষ্কার রাখুন।

বাচ্চা নিজে থেকে খেতে আগ্রহ প্রকাশ করলে তাকে খেতে দিন। তবে চেষ্টা করুন নরম আর পুষ্টিকর খাবার খাওয়াতে। নিজে থেকে খাওয়ার আগ্রহ দেখলে বমি করে খাবার তুলে দেওয়ার সম্ভাবনা কম থাকবে।

বমি একটানা করে চললে বাচ্চার সামনে কড়া গন্ধের কোনো পারফিউম, বডি স্প্রে বা উগ্র ও মশলাদার খাবার নিয়ে আসবেন না।

এতে করে বাচ্চা আরও বেশি বমি শুরু করতে পারে। তাছাড়া ঘরের ঘুমোট আবহাওয়া যতোটা পারা যায় কমিয়ে আনুন। ঘরে পর্যাপ্ত হাওয়া বাতাসের প্রবেশেরে সুযোগ করে দিন।

বমি শিশুর জন্য খুব ভীতিকর হতে পারে। শিশুকে আশ্বস্ত করুন যে, সে সম্পূর্ণ সুস্থ হবে।

কম বয়সী শিশু চায়, আপনি তাকে ধরে রাখুন আর কিছুটা সময় তার সঙ্গে কাটান। তার ইচ্ছাটা পূরণ করুন।

বড় শিশুদের ক্ষেত্রে বিছানায় শুইয়ে রাখলে তারা স্বস্তিবোধ করে। আপনার শিশু যে পর্যন্ত না ভালো বোধ করছে, তাকে শুইয়ে রাখুন।

ইসি/

 

: আরও পড়ুন

আরও