ইউএনও ওয়াহিদা ‘শতভাগ শঙ্কামুক্ত’ নন : চিকিৎসক
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৫ আশ্বিন ১৪২৭

ইউএনও ওয়াহিদা ‘শতভাগ শঙ্কামুক্ত’ নন : চিকিৎসক

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:০৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০

ইউএনও ওয়াহিদা ‘শতভাগ শঙ্কামুক্ত’ নন : চিকিৎসক
ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ও ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. মো. সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন। তবে এখনও তাকে ‘শতভাগ শঙ্কামুক্ত’ বলার অবস্থা আসেনি।

আজ রোববার ইউএনওর ওয়াহিদার সর্বশেষ অবস্থা সাংবাদিকদের জানিয়ে তিনি আরও বলেন, রোগীর পালস, ব্লাড প্রেসার ও অক্সিজেন স্যাচুরেশন স্বাভাবিক আছে। কনশাসনেসও স্বাভাবিক। ধীরে ধীরে সুস্থ হলেও শতভাগ শঙ্কামুক্ত বলার সময় হয়নি এখনও।

এই চিকিৎসক জানান, ওয়াহিদার ডান হাত ও ডান পা অবশ হয়ে গিয়েছিল। এর মধ্যে ডান হাতের দুর্বলতা আস্তে আস্তে কেটে যাচ্ছে। এখন আঙ্গুল নাড়াতে পারছেন, কনুই ভাঁজ করতে পারছেন। কিন্তু শোল্ডার উঠাতে পারেন না।

তাতে অবস্থার উন্নতির বিষয়টি স্পষ্ট হচ্ছে জানিয়ে ডা. সিরাজুল বলেন, যেখানে জিরো ছিল, সেখানে আস্তে আস্তে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। তবে পায়ে এখনো শক্তি ফেরেনি।

মেডিকেল বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চিকিৎসার পাশাপাশি ওয়াহিদাকে ফিজিওথেরাপি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান ডা. সিরাজুল।

গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ চত্বরের ইউএনওর সরকারি বাসভবনে ঢুকে ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীর ওপর হামলা হয়।

হাতুড়ি আঘাতে আহত বাবা-মেয়েকে প্রথমে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে ইউএনও ওয়াহিদাকে ঢাকায় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতালে এনে অস্ত্রোপচার করা হয়।

ওয়াহিদার বাবা ওমর আলী এতদিন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখান থেকে অ্যাম্বুলেন্স করে রোববার সকালে তাকেও ঢাকায় নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

ওএস/এসবি

আরও পড়ুন...
ইউএনও ওয়াহিদার বাবাকে ঢাকায় আনা হয়েছে

 

: আরও পড়ুন

আরও