শহীদ মিনার থেকে জনস্রোত একুশের বইমেলায়
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০ | ২২ চৈত্র ১৪২৬

শহীদ মিনার থেকে জনস্রোত একুশের বইমেলায়

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:০৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০

শহীদ মিনার থেকে জনস্রোত একুশের বইমেলায়

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন সর্বস্তরের মানুষ। শ্রদ্ধা জ্ঞাপন শেষে সেখান থেকে মানুষের স্রোত গিয়ে মিশছে অমর একুশে গ্রন্থমেলায়।

একে তো একুশে ফেব্রুয়ারি, তার ওপর শুক্রবার বইমেলায় শিশু প্রহর থাকায় সকাল থেকেই শিশুদের কলতানে মুখরিত ছিল বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। অভিভাবকের হাত ধরে মেলা প্রাঙ্গনে এসেছে ছোট্ট শিশুরা। ক্ষুদে এই পাঠকদের আগ্রহের বিষয় নানা রকম। রূপকথা, বিজ্ঞান কল্পকাহিনী, ছোট গল্প, ছড়া।

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহর থেকেই মানুষের ঢল নামে শহীদ মিনারে। শহীদ মিনারের বেদিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করে হাজার হাজার মানুষ। রাতভর শহীদ মিনারে চলে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ। রাত ভোর হতেই অন্যরকম এক দৃশ্য। চারদিক থেকে স্রোতের মতো মানুষ আসতে থাকে শহীদ মিনারে।

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ অথবা ‘মোদের গরব মোদের আশা/আমরি বাংলা ভাষা’ গাইতে গাইতে দলবেধে আসতে থাকে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠন, বিশিষ্ট ব্যক্তি থেকে শুরু করে মুটে-মজুর পর্যন্ত।

প্রভাতফেরী শেষ করে প্রায় সবাই ছুটে আসতে থাকে বাংলা একাডেমির অমর একুশে গ্রন্থমেলায়। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে এ দিন সকাল ৮টায় শুরু হয় বইমেলা, চলবে রাত, চলবে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত।

নির্ধারিত সময়ের কিছু আগেই খোলা হয় মেলার প্রবেশ দ্বার। তখন থেকেই শত শত বইপ্রেমী মেলায় আসতে শুরু করে।

একুশের শোক আর শ্রদ্ধায় প্রায় সবাই পরেছে আজ সাদাকালো পোশাক। একুশের দিনে মেলায় আগতদের মার্জিত পরিপাটি পোশাকে স্পষ্ট একুশের ছাপ। বাংলা একাডেমি, সোহরাওয়ার্দী থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার পর্যন্ত রাস্তা একাকার মানুষের পদচারণায়। এ যেন নতুন করে আবার শেকড়ের কাছে ফেরা।

মিরপুর থেকে মেলায় এসেছেন শামীম, রাসেল, অনিক, সায়েম, হিমেলরা। তারা জানান, সকালে ফুল দিয়ে শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তারা। এরপর সেখান থেকে সরাসরি মেলায় চলে আসেন। এখন স্টলগুলোতে ঘুরে ঘুরে পছন্দের বইগুলো সংগ্রহ করছেন।

আলো ঘর প্রকাশনার রূপম কুমার দে বলেন, ‘আমরা যারা প্রকাশনা সংস্থার সঙ্গে জড়িত, তাদের কাছে একুশে ফেব্রুয়ারির দিনটা বিশেষ মাহাত্ম্য বহন করে। আজকের দিনেই মাতৃভাষার জন্য জীবন দিয়েছেন অনেকে। এ দিনকে সামনে রেখেই বইমেলা শুরু হয়।

তিনি আরো বলেন, আজকে সকাল থেকেই মেলা শুরু হয়েছে। ধীরে ধীরে মেলায় লোক সমাগমও বাড়ছে। আমরা আশাবাদী, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আরও ভিড় বাড়বে। ক্রেতা সমাগম হবে, বিক্রিও জমে উঠবে।

প্রতিদিনই নতুন নতুন বই আসছে মেলায়। বাংলা একাডেমির গত ২০ ফেব্রুয়ারির তথ্যমতে, অমর একুশে বইমেলার প্রথম ১৯ দিনে নতুন বই এসেছে মোট ২ হাজার ৮৮১টি। এর মধ্যে ২০ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) এসেছে ১৪৩টি নতুন বই।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মেলায় আসা নতুন বইয়ের মধ্যে গল্পগ্রন্থ ৩৭৮টি, উপন্যাস ৪৫৬টি, প্রবন্ধগ্রন্থ ১৫৭টি, কাব্যগ্রন্থ ৮৪৪টি, গবেষণাগ্রন্থ ৫৭টি, ছড়ার বই ৫৩ টি, শিশুতোষ গ্রন্থ ১৩০ টি, জীবনীগ্রন্থ ৮৫টি, রচনাবলি ৪টি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ ১১১টি, নাটক ১৬টি, বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থ ৬১টি, ভ্রমণকাহিনী ৫৩ টি, ইতিহাসগ্রন্থ ৬৪টি, রাজনীতি বিষয়ক গ্রন্থ ৮টি, চিকিৎসা-স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ১৭টি, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা গ্রন্থ ৮৭টি, রম্য-ধাঁধা ২৪টি, ধর্ম বিষয়ক গ্রন্থ ১০টি, অনুবাদ সাহিত্য ৩৩টি, অভিধান ১০টি, সায়েন্স ফিকশন ৪৭টি এবং অন্যান্য বই এসেছে ১৭৬টি।

ওএস/পিএসএস

 

শিল্প ও সাহিত্য: আরও পড়ুন

আরও